মেয়ের কোল ভরতে আরেক মায়ের শিশু চুরি করলেন মা

স্টাফ রিপোর্টার: ‘মেয়ের কোল ভরে দিতে’ ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে সদ্যজাত একটি শিশু চুরি করেন এক মা। পরে চুরি যাওয়া শিশুটিকে উদ্ধার করা হয় জেলার সদরপুর উপজেলার ঠেঙ্গামারী থেকে। গতকাল সোমবার বেলা ১১টার দিকে চুরি যাওয়া শিশুটিকে উদ্ধার করে দুপুর ১টার দিকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেয় ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

হাসপাতাল, পুলিশ ও আকলিমা বেগমের স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ১৮ সেপ্টেম্বর ভর্তি হন সন্তানসম্ভবা মা আকলিমা বেগম (২২)। আকলিমা পাশের মাদারীপুর সদর উপজেলার সৈয়দ নূর শিরখাড়া গ্রামের রুবেল মুন্সীর স্ত্রী। রুবেল মুন্সী একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। গত রোববার অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে একটি ছেলেসন্তানের জন্ম দেন আকলিমা। অস্ত্রোপচারের পর আকলিমা ও তার সদ্যজাত শিশুকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে রাখা হয়। একই দিন অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আরেক মা আন্না বেগম (২৪) একটি সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন। ওই শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ফরিদপুর ডা. জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে শিশুটি মারা যায়।

কিন্তু ওই প্রসূতির মা ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার ঠেঙ্গামারী গ্রামের ইসমাইল মোল্লার স্ত্রী নাজমা বেগম (৫০) নিজের মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতে গত রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে আকলিমার সদ্যজাত শিশুটি চুরি করেন। তিনি শিশুটিকে চুরি করে প্রথমে ফরিদপুর সদরের নিখুর্দী গ্রামে মেয়ে লাবনী বেগমের বাড়িতে রাখেন। পরে তাকে সদরপুরে ঠেঙ্গামারীতে নিয়ে যান।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রবীর রায় জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রথমে নিখুর্দী ও পরে ঠেঙ্গামারী গ্রামে অভিযান চালিয়ে সোমবার বেলা ১১টার দিকে নাজমা বেগমের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় আকলিমার চুরি যাওয়া শিশু। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নাজমা বেগম ও তার এক মেয়ে লাবনী বেগমকে আটক করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোরশেদ আলম বলেন, নিজের মেয়ের কোল ভরিয়ে দেয়ার জন্য আকলিমার শিশুকে চুরি করেছিলেন নাজমা বেগম।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More