গভীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার: শোক, শ্রদ্ধা আর গভীর ভালোবাসায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করছে দলমত-নির্বিশেষে সবাই। ফুলে ফুলে ভরে উঠেছে শহীদ বেদি। প্রতি বছর বিজয় উৎসবের আগে এ দিনটিতে জাতি গভীর বেদনার সঙ্গে স্মরণ করে আসছে স্বাধীনতার জন্য আত্মদানকারী শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। চুয়াডাঙ্গা, মেরেহপুরসহ সারাদেশে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন পূর্বক শহীদ স্মৃতিসৌধ পুষ্পমাল্য অর্পণ, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও আলোচনাসভার মধ্যদিয়ে বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। আলোচনাসভায় বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির চূড়ান্ত বিজয়ের মাত্র দুইদিন আগে ঘটেছিলো এক মর্মান্তিক হত্যাযজ্ঞ। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী তাদের পরাজয় নিশ্চিত জেনে লিপ্ত হয়েছিলো ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রে। স্বাধীনতাকামী বাঙালি জাতি যেন মেধায়-মননে মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারে, সে জন্য তারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের হত্যায় মেতে ওঠে। যারা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির সাথে জড়িত তাদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে বক্তারা বলেন, ‘যারা ইতিহাস বিকৃতির সাথে জড়িত, যারা অমুক্তিযোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধার সনদ প্রদান করেছে তারা ইতিহাসের সাথে প্রতারণা করেছে। তাদেরকে চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’
বক্তারা আরও বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও শহীদ বুদ্ধিজীবী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, রাজাকারদের সম্পূর্ণ তালিকা প্রণয়ন সম্ভব হয়নি। কারণ মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারীরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস মুছে ফেলতে চেয়েছে। তারা বিভিন্ন সময়ে ইতিহাসকে বিকৃত করেছে। আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তুলতে হলে তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে হবে।
বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যাকা-ের সাথে জড়িতদের সঙ্গে নিয়ে এখনো বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। এ ষড়যন্ত্রকারীদের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।
চুয়াডাঙ্গায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে শহীদ হাসান চত্বরে স্মৃতিসৌধে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। পরে শহীদ হাসান চত্বরের মুক্তমঞ্চে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল ইসলাম মালিক, আবু হোসেন, আদর্শ সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ রেজাউল করিম প্রমুখ।
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটনের নেতৃত্বে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ স্মৃতিসৌধে মোমবাতি প্রজ্বলন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নাসির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সম্পাদিকা নুরুন্নাহার কাকলী, যুব মহিলা লীগের আহব্বায়ক আফরোজা পারভীনসহ নেতৃবৃন্দ।
এদিকে, এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা বড় বাজারের শহীদ হাসান চত্বরে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে আওয়ামী যুবলীগ। পরে শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, যুগ্ম আহ্বায়ক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সদস্য হাফিজুর রহমান হাপু, সাজিদুর ইসলাম লাবলু, আলমগীর আজম খোকা, শরীফ হোসেন দুদু, অ্যাড. তসলিম উদ্দিন ফিরোজ। পুষ্পস্তবক অর্পণকালে আরও উপস্থিত ছিলেন পদ্মবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি বনফুল, সহসভাপতি বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক জান্টু, বাড়াদী ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক শরিফ উদ্দীন, জেলা আওয়ামী যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, মাসুদুর রহমান মাসুম, আলী ইমরান শুভ, জুয়েল জোয়ার্দ্দার, রামিম হাসান সৈকত, সামিউল শেখ সুইট, রাসেল, টুটুল, লোকমান, আলিম, আসাদ, বক্কর, সাদিকুর, দীপু, কবির, সজল, বাচ্চু প্রমুখ।
ডিঙ্গেদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার ডিঙ্গেদহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম মোখলেসুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শংকরচন্দ্র ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শরিফ উদ্দিন, সাবেক অভিভাবক সদস্য তাহাজদ্দিন, সহকারী শিক্ষক রোকনুজ্জামান। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুস ছাত্তার ও মনোয়ার হোসেনের উপস্থাপনায় আরও বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক নাজমুল হাসান, বাবুল আক্তার, ৮ম শ্রেণির ছাত্র রাবেয়া খাতুন ও সিলভি। শেষে শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক লোকমান হোসেন।
সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সরোজগঞ্জ তেতুল শেখ কলেজ ও ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। তেতুল শেখ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম কিবরিয়ার সভাপতিত্বে ও ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু সালেহ সভাপতিত্বে দুটি প্রতিষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তেতুল শেখ কলেজ ও ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা হাজি আব্দুল্লা শেখ। পরিচালনা কমিটির সদস্য জালাল উদ্দিন মহর, প্রভাষক, মোস্তফা শওকত ইমরান, রেজাউল করিম, খাইরুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান, ফারুক আহম্মেদ, ফারহানা পারভিন, মনিরা খাতুন জহির রায়হান, তাসলিমা খাতুন, আরিফ হোসেন, সুরুজ আলম, হারুনুর রশিদ, আবু সামা, আবু জার হোসেন, খাইরুল ইসলাম, শাহারিয়ার ইসলাম। ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক এমএকে আজাদ, সাইফুল আওয়াল, সাইফুল ইসলাম, কামরুজ্জামান, মনতাজুল ইসলাম, ছকিনা খাতুন, সাইদুর নাহার, হাবিবা খাতুন প্রমুখ। এছাড়া বদরগঞ্জ আলিয়ারপুর আজিজ মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভাপতিত্বে করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলাউদ্দিন আহমেদ। প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজি আব্দুল মোতালেব, সহকারী প্রধান শিক্ষক জাকিরুল ইসলাম, রমজান আলী প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শিক্ষক সাইফুল ইসলাম।
ভালাইপুর প্রতিনিধ জানিয়েছেন, আলমডাঙ্গার গোকুলখালী বাজারস্থ চিৎলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিসে আয়োজিত কর্মসূচির সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির শাহ আব্দুল বাতেন। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান নান্টু, যুগ্মসম্পাদক তহিদুল ইসলাম ফকা ও খাইরুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা শমসের ম-ল, মোজাম আলী, মনিরুল ইসলাম, আবু সিদ্দিক, নজরুল ইসলাম, মাসুদ আলী, হেলাল, জাহিদ, হিয়াত আলী, কামরুজ্জামান বাবু, হারেজ মিয়া, মজিবার রহমান, সোহেল শাহ, রাজিব হাসানও নাজমুল হক প্রমুখ। আলোচনাসভা শেষে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন এবং মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মোমিনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেল ৪টার দিকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান নিপুল। প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান বিশ্বাস নান্নু। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লহ আল মামুন রতন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান জোয়ার্দ্দার মুক্তা, ডা. আনিসুর রহমান, আব্দুর রাজ্জাক, সহসভাপতি সামসুল হক, সাইদুর রহমান, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক বাবু, নুরুজালালাল, প্রচার সম্পাদক সোনা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মজিদ প্রমুখ।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, দর্শনা সরকারি কলেজে স্মৃতি স্তম্ভে পূষ্প্যমাল্য অর্পণ শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। ৯টার দিকে কলেজ চত্বরে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু। দর্শনা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহিউদ্দিন, কলেজের উপাধ্যক্ষ মফিজুর রহমান, দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহব্বুর রহমান কাজল, দর্শনা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব গোলাম ফারুক আরিফ, ইউপি চেয়ারম্যান এসএএম জাকারিয়া আলম, জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা আনোয়ারুল ইসলাম বাবু, কমরেড অ্যাড. শহিদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্সপার্টি নেতা সৈয়দ মজনুর রহমান, হাজি এরশাদ আলী, দর্শনা পৌরসভার সচিব মনিরুজ্জামান শিকদার প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শিক্ষক পরিষদ নেতা সহকারী অধ্যাপক মফিজুল ইসলাম।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, দামুড়হুদায় দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সোমবার বেলা ১১টার সময় দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলারা রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন সভার প্রধান অতিথি দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মহিউদ্দিন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল মতিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মশিউর রহমান, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ইসহাক, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে জাহান ববি, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফ আলী, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ভারপ্রাপ্ত আয়ুব আলী, দামুড়হুদা মডেল থানার পরিদর্শক অপারেশন সামসুদ্দোহা, উপজেলা তথ্য আপা ওজিফা রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা বিল্লাল হোসেন, নূরুল ইসলাম, তমছের আলী, আবুল কাশেম প্রমুখ।
জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, জীবননগরে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সন্ধ্যায় বাসস্ট্যান্ডের মুক্তমঞ্চে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।
সকালে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে ইউএনও এসএম মুনিম লিংকনের সভাপতিত্বে শহীদ বুদ্ধিজীজী দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন এসি ল্যান্ড সুদীপ্ত কুমার সিংহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি ও থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম। জীবননগর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আলী আখতারের সভাপতিত্বে, জীবননগর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু ছালেহ মো. মুছার সভাপতিত্বে, সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক যাদব কুমার প্রামাণিকের সভাপতিত্বে উপজেলা আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মাও. আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে, শাপলাকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাকী বিল্লাহ’র সভাপতিত্বে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যথাযথভাবে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আয়োজন করে।
সন্ধ্যায় সেচ্ছাসেবী সংগঠন বন্ধু রক্তদান কেন্দ্র, শিকড় সমাজ কল্যাণ সংস্থা ও এফএসডিওর উদ্যোগে মুক্তমঞ্চে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে সন্ধ্যায় মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকন, এসিল্যান্ড সুদীপ্ত কুমার রায় সিংহ, জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ অমল, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফেরদৌস ওয়াহিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম আর বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন। শিকড় সমাজ কল্যাণ সংস্থার চুয়াডাঙ্গা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিঠুন মাহমুদের সভাপতিত্বে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ওই অনুষ্ঠান সমন্বয় করেন সংস্থার জীবননগর উপজেলা শাখার সভাপতি তুহিনুজ্জামান।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন পূর্বক শহীদ স্মৃতিসৌধ পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যদিয়ে মেহেরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগ।
গতকাল সোমবার সকালে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি’র বাসভবনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের সূচনা করা হয়। পরে মেহেরপুর কলেজ মোড়ে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধের শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে সেখানে মোনাজাত করা হয়।
মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, সহ-সভাপতি আলহাজ মো. আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, যুগ্মসম্পাদক অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীন, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য শামীম আরা হীরা উপস্থিত থেকে পূষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এর পরপরই সেখানে মেহেরপুর জেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে পূষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। জেলা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক সরফরাজর হোসেন মৃদুল উপস্থিত থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় সেখানে দোয়া করা হয়।
অন্যান্যের মধ্যে বুড়িপোতা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ জামান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক আরিফুল এনাম বকুল, যুগ্মআহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতিন, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনুসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন শেষে একটি র‌্যালি বের করা হয়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি’র বাসভবন থেকে শুরু করে র‌্যালিটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কলেজ মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।
এদিকে মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিন দুপুরের দিকে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মুনসুর আলম খাঁনের সভাপতিত্বে জুমের মাধ্যমে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি। আলোচনাসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ সহিদুজ্জামান খোকন, পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মো. গোলাম রসূল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. তৌফিকুর রহমান, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মৃধা মুজাহিদুল ইসলাম, প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীন, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য শামীম আরা হীরা প্রমুখ।
এদিকে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা যুবলীগের উদ্যোগে শহীদ স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়েছে। এদিন সকালে মেহেরপুর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও মেহেরপুর পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন শহরের কলেজ মোড়ে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধের শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান রিটনসহ যুবলীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে আলোচনা সভা, মৌন পথযাত্রাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে মেহেরপুর জেলা বিএনপি। এদিন সকাল ১০টায় জেলা বিএনপি কার্যালয় প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা শেষে জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে মৌন পথযাত্রাটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে মেহেরপুর সরকারি কলেজ মোড়স্থ শহীদ বেদীতে পূষ্পমাল্য অর্পণ করে। শহীদ বুদ্ধিজীবীসহ রক্ত ত্যাগে অর্জিত সকলের উদ্দেশ্যে এক মিনিট নিরবতা পালন ও আত্মার মাগফেরাত কামনায় মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় মাসুদ অরুন বলেন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আত্মত্যাগ স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী পূর্তির এই শুভক্ষণে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র পুর্নরুদ্ধার, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং গণমানুষের কাক্সিক্ষত রাষ্ট্র বিনির্মাণে যে সংগ্রাম তা চলমান থাকবে। সভা পরিচালনা করেন পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস। আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক আরজুল্লাহ মাস্টার বাবলু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের আহবায়ক রাইহানুল কবীর, যুবদল সভাপতি জাহিদুল হক জাহিদ, সাধারণ সম্পাদক কাওছার আলী, মুজিবনগর উপজেলা শ্রমিকদলের সভাপতি আলহাজ মশিউর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মিন্টু, সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক লিয়াকত আলী, মুজিবনগর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আবুল হাসান, গাংনী উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আবুল মালেক চপল, জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি আকিব জাভেদ সেনজির, তৌফিক এলাহী সাকিল, সদর উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক বখতিয়ার খালিদ বুলবুল, সদস্য সচিব রাশেদুল ইসলাম রাজন, মেহেরপুর সরকারি কলেজের আহবায়ক ফাহিম আহনাফ লিংকন, পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক তৌফিক এলাহী প্রমুখ।
এদিকে সন্ধ্যায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেছে মেহেরপুর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। মেহেরপুর শহীদ ড. শামসুজ্জোহানগর উদ্যানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। এ সময় মেহেরপুর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নিশান সাবেরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহীম শাহীন, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, বামনপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফৌজিয়া আফরোজ তুলি, মৃত্তাকা গ্রুপ থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক অনু প্রমুখ।
গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গাংনী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ খালেক, সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এম রিয়াজুল আলম, গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমান ও উপজেলা পরিষদে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন।
মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা হলরুমে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউদ্দীন বিশ্বাস। উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল আলম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ রফিকুল ইসলাম মোল্লা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা খাতুন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সমাজসেবা অফিসার আব্দুর রব।
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কুষ্টিয়ায় মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়ার উদ্যোগে কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোডস্থ ‘স্বাধীকার থেকে স্বাধীনতা’ মোড়ালে এ মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। পরে ১৪ ডিসেম্বর এর তাৎপর্য তুলে ধরে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় কুষ্টিয়া সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসীন, জেলা ওয়ার্কার্সপার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড হাফিজ সরকার, জেলা বাসদের আহবায়ক কমরেড শফিউর রহমান, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কনক চৌধুরী, সৈয়দা হাবিবা, বাংলাদেশ নদী পরিবাজক দলের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের প্রধান খলিলুর রহমান মজু, উদীচী’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক গোপা সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক বিশ্বাস, এজাজ আহম্মেদ রিন্টু, মানবাধিকার কর্মী তাজনিহার বেগম, মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলী প্রমুখ। মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও আলোচনা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সদস্য কারশেদ আলম।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More