আবহাওয়া সমাচার : চুয়াডাঙ্গায় প্রবাহমান দাবদাহ

স্টাফ রিপোর্টার: কালবৈশাখী দূরের কথা চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুরসহ পার্শ্ববর্তি এলাকায় ধুলোটাও উড়েনি। বিকেলে গুমটভাব সৃষ্টি হলেও দু এক ফোট বৃষ্টিও ঝরেনি। অথচ শুক্রবার সকালে আবহাওয়া অধিদফতর যশোর ও কুষ্টিয়াসহ দেশের ৫টি বিভাগের ঝড়ের পূর্বাভাস দেয়। সন্ধ্যার পূর্বাভাসে বলা হয়, রাজশাহী, খুলনা যশোর চুয়াডাঙ্গা ও কুমারখালী অঞ্চলের উপর দিয়ে মৃদু তাপ প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কিছু এলাকায় প্রশমিত হতে পারে।
চুয়াডাঙ্গাসহ পাশ^বর্তী এলাকায় ভ্যাপসা গরমে জনজীবন বিষিয়ে উঠেছে। কবে কখন বৃষ্টি হবে তা জানার আগ্রহে প্রহর গুণছেন এলাকার মানুষ। গত বৃহস্পতিবার পূর্বাভাসে কুষ্টিয়া যশোর অঞ্চলে বৃষ্টির তেমন সম্ভবনার কথা না জানালেও শুক্রবার সকালের পূর্বাভাসে বলা হয়, যশোর কুষ্টিয়া ও কুমিল্লা অঞ্চলসহ রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু এক জায়গায় অস্থায়ীভঅবে দমকা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। শুক্রবার রাত ১০টা পর্যন্ত তেমন ঝড়ো বাতাস কিম্বা বৃষ্টির আলামত মেলেনি। সন্ধ্যায় দেয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে সারা দেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। ৪৮ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে বৃষ্টি বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা রয়েছে। ৫ দিনের পূর্বাভাসে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের সম্ভবনা নেই বলে জানানো হয়েছে। শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রাজশাহীতে ৩৬ দশমিক ৭ ও সর্বনিম্ন সিলেটে ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। সিলেটে ১১ মিলিমিটার ও শ্রমঙ্গলে সামান্য বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির প্রভাবে সিলেট এলাকার বাতাসে শীতলতা আসলেও চুয়াডাঙ্গায় ভ্যাপসা গরম রয়েছেই।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More