আগস্ট মাস আসলেই বঙ্গবন্ধুকে মনে করে সারাবিশ্ব

দামুড়হুদার আটকবরে স্থানীয় শহীদ দিবসের আলোচনা সভায় এমপি টগর

কার্পাসডাঙ্গা/কুড়ুলগাছি প্রতিনিধি: দামুড়হুদার জগন্নাথপুরের আটকবরে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্থানীয় শহীদ দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে দামুড়হুদার জগন্নাথপুরে আটকবর স্মৃতিসৌধে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। আট শহীদের স্মৃতিসৌধে জাতীয় পতাকা, মুক্তিযোদ্ধা পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর আট শহীদের স্মৃতিসৌধে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজি মো. আলী আজগার টগর ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন। এর আগে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পতাকা উত্তোলন করেন সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ও কালো পতাকা উত্তোলন করেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন।

পতাকা উত্তোলন শেষে শহীদবেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, দামুড়হুদা থানা, দর্শনা থানা, জেলা মহিলা লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে আটশহীদ স্মৃতি কমপ্লেক্সের মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় এমপি আলী আজগার টগর বলেন, আগস্ট মাস এলেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে সারাবিশ্ব। ৫ আগস্ট আট শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশের জন্য শহীদ হয়েছিলো।

মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত আমাদের যে সহযোগিতা করেছিলো তাদের সেই সহযোগিতা কখনও ভুলার নয়। ৫, ১৫ ও ২১ আগস্ট যে ষড়যন্ত্র হয়েছিলো সেই ষড়যন্ত্র এখনও চলমান রয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জনগণকে বিচ্ছিন্ন করতে চেয়েছিলো ষড়যন্ত্রকারীরা। তাই আমাদের সজাগ থাকতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করতে হবে। সাংগঠনিক ভীত যদি শক্ত না হয় তাহলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, অ্যাড. সামসুজ্জোহা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুন্সি আলমগীর হান্নান, মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল ইসলাম মালিক, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. তালিম হোসেন, উপপ্রচার সম্পাদক শওকত আলী বিশ্বাস, কার্য-নির্বাহী সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুজ্জামান নান্টু, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদের প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, সকল মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত কুমার সিংহ, দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ, দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবির, চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন হেলা, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল কাদের, সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আসমান, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি মিরাজুল ইসলাম কাবা, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজালুল হক, সাধারণ সম্পাদক রিপন ম-ল, শ্রমিক লীগ নেতা আফজালুল হক, টোকন, মিল্টু জোয়ার্দ্দার, শফিকুল ইসলাম, আন্তঃজেলা ট্রাক ট্যাঙ্কলরির সভাপতি শেখ মোহাম্মদ মুনতাজ, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউপি চেয়ারম্যান এসএম জাকারিয়া আলম, সাবেক নতিপোতা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম, দামুড়হুদা ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী, কার্পাসডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল করিম, নাটুদাহ ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি, দামুড়হুদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবির ইউসুফ, নতিপোতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাফর, সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক মাস্টার, নাটুদাহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হামিদুল্লাহ বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজির আহম্মেদ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হালিম, শহিদুল মাস্টার, দামুড়হুদা উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান ছোট, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল মালেক, জেলা মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নাহার কাকলী, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাহাজাদী মিলি, মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাবিলা রুকসানা ছন্দা, জেলা মহিলা লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শেফলী খাতুন, মহিলা কমিশনার রত্না, যুবলীগ নেতা জিএস আব্দুল হামিদ, এসএম মহাসিন আলী, হাতেম আলী, নাটুদাহ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান পিন্টু, জেলা ছাত্রলীগ নেতা মো. শাহাবুল হোসেন, তানিম হোসেন তারেক, রাজু, রিগান, সোহেল, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সাজু আহম্মেদ রিংকু, রফিকুল আসলাম ববি, তোয়াজ্জেল হোসেন তপু, মো. পারভেজ, আব্দুল করিমসহ আ.লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীবৃন্দ। অনুষ্ঠানটির সঞ্চানলায় ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক শওকত আলী। দোয়া অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ৫ আগস্ট স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালে দামুড়হুদার নাটুদহে জেলার ৮ মুক্তিযোদ্ধা সম্মুখ সমরে শহীদ হন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More