ইজিবাইক ছিনতাইয়ের জন্যেই জামালকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

মেহেরপুরে ডিবি পুলিশের অভিযানে ইজিবাইক উদ্ধার : ঘাতক আটক

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর সদর উপজেলার ময়ামারী গ্রামের মাঠের একটি লিচুবাগানে জামাল হোসেনকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তার ইজিবাইক ছিনতাই করার লক্ষ্যে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন মেহেরপুর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি সাইফুল আলম। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঘাতক শহিদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত শহিদুল ইসলাম মেহেরপুর সদর উপজেলার শোলমারী গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে। মেহেরপুর ডিবি পুলিশ ও সদর থানা পুলিশের একটি দল একদিনের ব্যবধানে ঘাতক শহিদুল ইসলামকে আটকসহ গতকাল শনিবার কুষ্টিয়ার কালিশংকরপুর গ্রাম থেকে ইজিবাইকটি উদ্ধার করে। ডিবি পুলিশের ওসি সাইফুল আলম জানান-আটক শহিদুল ইসলাম ও নিহত জামাল হোসেন একসাথে মাদক সেবন করত। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ময়ামারী গ্রামের মাঠের একটি লিচু বাগানে দু’জনে নেশা করার পর শহিদুল ইসলাম কৌশলে জামাল হোসেনকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে ইজিবাইক নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে ইজিবাইকটি কুষ্টিয়া জেলার কালিশংকরপুর গ্রামের রাজিব নামের এক ব্যক্তির কাছে এক লাখ ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। রাজিব তাকে এক লাখ টাকা পরিশোধ করে। বাকি ৩০ হাজার টাকা ইজিবাইকের চার্জারসহ অন্যান্য কাগজপত্র দেয়ার পরে পরিশোধ করার কথা হয়। ডিবি পুলিশের ওসি সাইফুল আলম আরো জানান-গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গত শুক্রবার দিবাগত রাতে শহিদুল ইসলামকে শোলমারী গ্রাম থেকে আটক করা হয়। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গতকাল শনিবার মেহেরপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) মেজবাহউদ্দিনসহ সঙ্গীয় ডিবি ও থানা পুলিশ ফোর্স কুষ্টিয়ার কালিশংকরপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে ইজিবাইকটি উদ্ধার করে। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় কৃষকদের দেয়া তথ্যমতে মেহেরপুর সদর উপজেলার ময়ামারী গ্রামের মাঠের জনৈক খাইরুল ইসলামের একটি লিচু বাগান থেকে একটি মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তার পকেটে থাকা পরিচয়পত্র দেখে সে গাংনী উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ধলা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে ইজিবাইক চালক জামাল হোসেন বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More