করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে স্থগিত হওয়া দামুড়হুদার নতিপোতা ও নাটুদহ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ আজ

অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে মাঠে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন

জহির রায়হান সোহাগ: করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে স্থগিত হওয়া দামুড়হুদার নতিপোতা ও নাটুদহ ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন আজ। সকাল ৯টায় শুরু হয়ে একটানা ভোট গ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য করতে মাঠে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনের সরঞ্জাম।
এদিকে, ওই দুই ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠান সফল করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। উক্ত নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য করতে ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ২ জন বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৩’শ ২৬ জন পুলিশ এবং ৩’শ ২৩ জন আনসার সদস্য নিয়োজিত রয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে ২ প্লাটুন বিজিবি। নির্বাচনী এলাকায় কাজ করছে র‌্যাব।
নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯ টায় দামুড়হুদা মডেল থানা চত্বরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিতদের ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) কনক কুমার দাস, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামড়হুদা সার্কেল) আবু রাসেল, দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেকসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।
ভোট গ্রহন শতভাগ অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য করতে দায়িত্বে নিয়োজিত সকলকে নির্দেশনা দিয়ে পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, সকলকে ব্যক্তি ও দলের ঊর্ধ্বে থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। ভোট গ্রহন সুষ্ঠু করতে যা যা করণীয় তাই করতে হবে। অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট গ্রহন নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে জেলা পুলিশ। কারও গাফলতির কারণে অবাধ ভোট গ্রহণ বিঘিœত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সকল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের নির্বাচনের ফলাফল মেনে নেয়া এবং নির্বাচন পরবর্তী সকল প্রকার সহিংসতা পরিহার করার আহ্বান জানান তিনি।
নতিপোতা ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৫ হাজার ১২৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৫’শ ৭ জন ও মহিলা ভোটার ৭ হাজার ৬’শ ২০ জন। এ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ১০ টি কেন্দ্রে। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ৫ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী আজিজুল হক নৌকা প্রতীক, বিএনপি মনোনিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনির ধানের শীষ প্রতীক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনিত প্রার্থী মোশারফ হোসেন হাতপাখা প্রতীক, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা রবিউল হাসান মোটরসাইকেল প্রতীক ও ইয়ামিন আলী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন আনারস প্রতীক নিয়ে। এছাড়া নতিপোতা ইউনিয়নে সংরক্ষিত সদস্য পদের ১১ জন ও সাধারণ সদস্য পদের ২৭ জন প্রার্থী রয়েছেন।
নাটুদহ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১৪ হাজার ৮২৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৩’শ ৭৫ জন ও মহিলা ভোটার ৭ হাজার ৪’শ ৫১ জন। এ ইউনিয়নে ৯টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এখানে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ৬ জন প্রার্থী। আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি নৌকা, বিএনপি মনোনিত প্রার্থী আমির হোসেন মাস্টার ধানের শীষ, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা ইয়াচনবী অটোরিক্সা, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হালিম আনারস, বিএনপি নেতা ফজলুল হক মোটরসাইকেল ও আমিনুল ইসলাম মোক্তা টেবিল ফ্যান প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। এ ইউনিয়নে সংরক্ষিত সদস্য পদের ১২ জন ও সাধারণ সদস্য পদের ২৯ জন প্রার্থী রয়েছেন।
নতিপোতা ইউনিয়নে কালিয়াবকরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রুদ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নতিপোতা ইউনিয়ন পরিষদ, ছুটিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পোতারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এ ৫ টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে। নাটুদহ ইউনিয়নে চন্দ্রবাস ও চারুলিয়া এ দুটি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবচেয়ে বেশি নজরদারীতে থাকবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
উল্লেখ্য, গত ২৯ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে ভোটের সপ্তাহ খানেক আগে নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। পরে গেল ১৩ সেপ্টেম্বর ওই দুটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করে গণ বিজ্ঞপ্তি জারি করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More