করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেলেন চুয়াডাঙ্গা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি

স্টাফ রিপোর্টার: মহামারি করোনা উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুল হোসেন জোয়ার্দ্দার লেমন মারা গেছেন। (ইন্না …. রাজেউন)। ঢাকায় নেয়ার পথে বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১২টার দিকে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের নিকট গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে নেয়া হয় নিকটস্থ হাসপতালে। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ওই এ্যাম্বুলেন্সেই মৃতদেহ চুয়াডাঙ্গার উদ্দেশ্যে নেয়া হয়।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের ফেরীঘাট সড়কের বাসিন্দা আসাদুল হোসেন জোয়ার্দ্দার লেমন দিন দশেক ধরে স্বর্দি জ্বরে ভুগছিলেন। কয়েকদিন ধরে শুরু হয়েছিলো শ্বাসকষ্ট। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) সকাল থেকেই শ্বাসকষ্টের মাত্রা অসহনীয়  পর্যায়ে পৌঁছয়। এক পর্যায়ে তাকে নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। দ্রুত অক্সিজেন দেয়া হয়। একই সাথে পরীক্ষার জন্য সংগ্রহ করা হয় নমুনা। রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা ক্রমশ হ্রাসের দিকে যাচ্ছে দেখে দীর্ঘশ্বাস ছাড়েন চিকিৎসক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। ফলে পরিবারের সদস্যরা রাতেই তাকে ঢাকার উদ্দেশে নেন। দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুল হক লেমনকে ঢাকায় নেয়া হচ্ছে শুনে অনেকেই হাসপাতালে ছুটে যান। তবে করোনা শুনে তাদের বেশিরভাগই নিরাপদ দূরুত্ব বজায় রাখেন। কেউ কেউ পাশে গিয়ে কথা বলেন। তুলে দেন এ্যাম্বুলন্সে। ঢাকার পথে  ফেরীঘাটে পৌঁছুলে তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়। ফলে নিকটস্থ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
আসাদুল হোসেন জোয়ার্দ্দার লেমনের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শোকের ছায়া নেমে আসে। অনেকেই শোক প্রকাশ করে বলেন, চুয়াডাঙ্গার ব্যবসায়ী মহল একজন যোগ্য নেতাকে হারালো। মহামারি করোনায় আরও ক’জনকে কাড়বে কে জানে।

প্রসঙ্গত: বুধবার রাতে মারা যান চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ফেরদৌসওয়ারা সুন্না। বৃহস্পতিবার তার লাশ দাফন করা হয়। শুক্রবার দাফন করতে হচ্ছে আসাদুল হক লেমনের মৃতদেহ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More