কেরুজ চিনিকলে কর্মবিরতীর প্রথম দিন

দর্শনা অফিস: চিনিকলসমূহ বন্ধে সরকারি পরিকল্পনার প্রতিবাদে বাংলাদেশ চিনিশিল্প শ্রমিক-কর্মচারী ও আখচাষী ফেডারেশন কর্তৃক ঘোষিত ৫ দফা দাবিতে মিল চত্বরে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ মিছিল করছে ঐতিহ্যবাহী কেরুজ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ও আখচাষিরা। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত শ্রমিক-কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করে। আখচাষিদের সাথে নিয়ে মিল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে শ্রমিক-কর্মচারীরা। সমাবেশে বক্তারা বলেন, লাখ লাখ মানুষের রুটি-রুজির হাতিয়ার চিনিকলগুলো এদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের অংশ। এলাকার আর্থ-সামজিক উন্নয়নের ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছে। সুতারাং চিনিকল বন্ধ করার সকল অপতৎপরতা প্রতিহত করা হবে। এরপরও দাবি-দাবা মানা না হলে আরও বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। আজ বুধবার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারলিপি দিতে পারে চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ও আখচাষিরা। বৃহস্পতিবার মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও জানান শ্রমিক নেতৃবৃন্দ। আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে। কেরুজ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি তৈয়ব আলীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান, সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক খবির উদ্দিন, সাবেক সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম প্রিন্স, সহ-সভাপতি ফারুক আহমেদ, ওমর আলী, সভাপতি প্রার্থী ফিরোজ আহমেদ সবুজ, হাজি আকরাম হোসেন, আমিনুল ইসলাম, আখচাষি কল্যাণ সংস্থার সভাপতি আ. হান্নান, সাধারণ সম্পাদক আ. বারী, সহ-সভাপতি ওমর আলী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, রাষ্ট্রায়াত্ব ১৫টি চিনিকলের মধ্যে ২০২০-২০২১ আখ মাড়াই মওসুম শুরু করার আগে সম্প্রতি কুষ্টিয়া, পাবনা, পঞ্চগড়, রংপুর, শ্যামপুর ও সেতাবগঞ্জ এই ছয়টি চিনিকল বন্ধ ঘোষনা করেছে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More