চুয়াডাঙ্গায় আ.লীগ কর্মী আলমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম

আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় রেফার্ড : হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় আলম হোসেন নামের এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে একদল দুর্বৃত্ত তাকে আচমকা কুপিয়ে জখম করে। জেলা শহরের বেলগাছি রেলগেটের অদূরে চায়ের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। জখম আলম হোসেন বেলগাছি মুসলিমপাড়ার সুরুজ আলীর ছেলে। প্রাথমিকভাবে এ হামলার সাথে জড়িত কয়েকজনকে চিহ্নিত করে খুঁজছে পুলিশ। আলম হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। এদিকে, চুুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলম হোসেনকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে রাতেই বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ছাত্রলীগ। সদর হাসপাতাল থেকে মিছিলটি বের হয়ে কবরী রোড হয়ে চুুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্মিত দলীয় কার্যালয়ে এসে প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয় নেতা-কর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী বেলগাছি রেলগেট এলাকার একজন ব্যবসায়ী জানান, পাশের একটি চা দোকানে বসেছিলেন আলম হোসেন (৩৫)। এ সময় একদল যুবক এসে সেখানেই তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। উপর্যুপরি কুপিয়ে দুর্বৃত্ত যুবকরা চলে যায়। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে আলম হোসেনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালসূত্রে জানা যায় আলম হোসেনের হাত-পা, মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে অসংখ্য কোপে ক্ষতবিক্ষত হয়েছেন তিনি। এ কারণে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বা পঙ্গু হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। আলম হোসেনের স্বজনরা জানান, আলম একজন দিনমজুর মানুষ। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কাজ করে সংসার চালান। বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা বিএডিসি ফার্মে অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো।

স্বজনরা আরও জানান, কয়েক বছর আগেও একই এলাকায় আলম হোসেনকে কুপিয়ে জখম করেছিলো কয়েকজন। সেই ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়। এদিকে, গতকাল সন্ধ্যারাতে নৃশংসভাবে কুপিয়ে চলে যাওয়া যুবকদের কয়েকজনের নাম পুলিশের কাছে আলম হোসেন বলেছেন বলে পুলিশ জানায়। তাদেরকে চিহ্নিত করে ইতোমধ্যে পুলিশ মাঠে নেমেছে বলে জানান সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খান।

অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্মিত দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদসভায় সভাপতিত্ব করেন ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কামরুজ্জামান তালু। বক্তব্য রাখেন ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল ইসলাম ইন্দা, চুুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি যুবলীগ নেতা আব্দুর রশিদ, সাবেক সভাপতি জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রেজাউল করিম, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাহাবুল হোসেন, সাবেক সহ-সভাপতি রুবায়েত বিন আজাদ সুস্তির, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি জাবিবুল ইসলাম জাবিদ। এসময় বক্তারা বলেন, একের পর এক ন্যাক্কারজনক হামলা ঘটিয়ে চলেছে বর্তমান মেয়রের সন্ত্রাসী বাহিনী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জানিফসহ তার চিহ্নিত ক্যাডাররা। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমাদের নেতার নির্দেশে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে আছি। আশাকরি প্রশাসন দ্রুত সকল আসামিদের গ্রেফতার করবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে। উপস্থিত ছিলেন চুুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ জোয়ার্দ্দার, সাবেক সহ-সম্পাদক বাপ্পি, সাবেক প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা অয়ন হাসান জোয়ার্দ্দার, বরকত জোয়ার্দ্দার, সাবেক স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রাজু আহম্মেদ, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শাকিল আহম্মেদ জিম, তানভির আহম্মেদ সোহেল, সদর থানা ছাত্রলীগ নেতা রেদওয়ান আহম্মেদ রানা, মোমিন, টোকন, জান্নাত, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ চুুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাবেক আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম রানা, সাধারণ সম্পাদক ওয়াসি হাসান রাজিব, পৌর ছাত্রলীগ নেতা এমদাদুল হক আকাশ, রামিম, নোমান, দিপু, তাজ, মিরাজ, হারুন, যুবলীগ নেতা সাঈদ, মন্টাসহ ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ চুুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি মেহেদী হাসান হিমেল মল্লিক।

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More