চুয়াডাঙ্গায় করোনা কাড়লো আরও দুজনকে : ৪১ জনের নুমান পরীক্ষা করে ৪১ জনেরই করোনা শনাক্ত

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় ৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪১ জনেরই করোনা ভাইরাস জনিত রোগী পজিটিভ হয়েছে। অবশ্য এই ৪১ জনেরই নমুনা স্থানীয়ভাবে র‌্যাপিড এন্টিজেন পরীক্ষা করে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাব থেকে গতকাল বুধবার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। এদিকে বুধবার চুয়াডাঙ্গার আরও দুজন করোনা আক্রান্ত রোগী মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃতের সংখ্যা স্বাস্থ্য বিভাগের হিসেবে ৯১ জন। এর মধ্যে চুয়াডাঙ্গাতে আক্রান্ত হয়ে চুয়াডাঙ্গাতেই মারা গেছেন ৮১ জন। করোনা আক্রান্ত হয়ে চুয়াডাঙ্গার বাইরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ১০। বেসরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা আরও বেশি।
চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ বুধবার নতুন ২২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে প্রেরণ করেছে। এদিন কুষ্টিয়া থেকে কোন ফলাফল না পাওয়া গেলেও চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে র‌্যাপিড এন্টিজেন পরীক্ষায় ৪১ জনের মধ্যে ৪১ জনেরই কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছে। এর মধ্যে ১৯ জন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার, ৭ জন আলমডাঙ্গা উপজেলার, ১ জন দামুড়হুদা উপজেলার ও ১৪ জন জীবননগর উপজেলার। বুধবার আরও ২৯ জন সুস্থ হয়েছেন। নতুন ৪১ জনকে নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৮শ ৩৭ জন। সুস্থ ২৯ জনকে নিয়ে মোট সুস্থ হলেন ২ হাজার ৮৯ জন। বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা জেলায় সক্রিয় রোগী রয়েছে ৬৯৭ জন। এর মধ্যে হাসপাতালে ৬১ জন, রেফার্ড রয়েছেন ৩ জন। বাড়িতে রয়েছেন ৬৩৩ জন। সদর উপজেলার ২৭২ জনের মধ্যে হাসপাতালে ২৩ জন, বাড়িতে ২৪৯ জন। আলমডাঙ্গা উপজেলার ৯৪ জনের মধ্যে হাসপাতালে ১০ জন, রেফার্ড ১ জন, বাড়িতে রয়েছেন ৮৩ জন। দামুড়হুদা উপজেলার ২০৫ জনের মধ্যে ১৯ জন রয়েছেন হাসপাতালে, দুজনকে রেফার্ড করা হয়েছে। বাড়িতে রয়েছেন ১৮৪ জন। জীবননগর উপজেলার ১২৬ জনের মধ্যে হাসপাতালে ১৯ জন, বাড়িতে ১১৭ জন। অপরদিকে গতকাল বুধবার চুয়াডাঙ্গার যে দুজন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন এ দুজনের মধ্যে একজন চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের কুন্দিপুরে ও অপরজনের বাড়ি জীবননগর উপজেলার দৌলতগঞ্জে। সদর উপজেলার কুন্দিপুরের আতিয়ার রহমান করোনা আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত হলে তাকে নেয়া হয় ঢাকায়। সেখান থেকে ফিরিয়ে নেয়া হয়। পরে মারা যান তিনি। এদিকে জীবননসগর উপজেলা শহরের দৌলতগঞ্জের সুফিয়া খাতুন নামের এক নারীকে বুধবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। তার নমুনা নেয়া হয়। পরীক্ষা করে তার করোনা ভাইরাস পজিটিভ। তিনিও মারা গেছেন।
দেশে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৮ হাজার ২শ ৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪ হাজার ৭শ ২৭ জনের করোনা ভাইরাস পজিটিভ হয়েছে। এ সময়ে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ১শ ৬৮ জন। মারা গেছেন ৮৫ জন। এ নিয়ে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা সরকারি হিসেবে ১৩ হাজার ৭শ ৮৭ জন। এদিকে চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ বুধবার নতুন ২২৩ জনের নমুনা নিয়ে মোট ১২ হাজার ৫শ ১২ জনের নমুনা নিয়েছে। এর মধ্যে বুধবার ৪১ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে মোট ১১ হাজার ৬শ ৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া গেছে। এ হিসেবে ৮৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পেতে বাকি রয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More