চুয়াডাঙ্গায় চলন্ত আলমসাধু থেকে ছিটকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হাকিমপুরে চলন্ত আলমসাধু থেকে ছিটকে আনিকা খাতুন নামে সাত মাসের এক শিশুর করুন মৃত্যু হয়েছে। রোববার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে তাকে মৃত ঘোষনা করেন। আনিকা খাতুন চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ইউনিয়নের তিয়রবিলা গ্রামের কুঠিরপাড়ার কাশেম আলীর মেয়ে।
শিশুর চাচা আবু তাহের বলেন, কয়েকদিন যাবত শিশু আনিকা ঠান্ডা-কাশিতে আক্রান্ত হয়। রোববার সকালে শিশু আনিকাকে নিয়ে তার মা চুয়াডাঙ্গায় শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মাহবুবুর রহমান মিলনের কাছে আসেন। বিকেলে চিকিৎসা নিয়ে ইঞ্জিনচালিত অবৈধযান আলমসাধুযোগে বাড়ি ফিরছিলেন তারা। পথিমধ্যে হাকিমপুর গ্রামে পৌছালে চলন্ত আলমসাধু থেকে মা ও শিশু আনিকা দুজনই ছিটকে রাস্তায় পড়ে যায়। পরে আনিকাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
শিশুর মা আদুরী বেগম বলেন, সোমবার সকালে চুয়াডাঙ্গায় মেয়ের ডাক্তার দেখাতে আসছিলাম। বাড়ি ফেরার পথে চলন্ত আলমসাধু থেকে অসাবধানতায় আমিসহ মেয়ে রাস্তার উপর পড়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার আগেই আমার মেয়েটা মারা যায়। দুইছেলে-মেয়ের মধ্যে আনিকা ছিলো ছোট। মেয়েকে হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন মা আদুরী বেগম। স্বজনদের কান্নায় হাসপাতাল চত্তর ভারি হয়ে উঠে।
চুয়াডাঙ্গায় সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, পরিক্ষা-নিরিক্ষার পর শিশু আনিকাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে। হাসপাতালে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন বলেন, চলন্ত আলমসাধু থেকে মা ও শিশুটি রাস্তায় পড়ে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। কোনো অভিযোগ না থাকায় সুরতহাল শেষে মরদেহটি পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More