চুয়াডাঙ্গায় পৌঁছেছে করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজ

জহির রায়হান সোহাগ : ভারত থেকে আসা করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজ চুয়াডাঙ্গায় এসে পৌঁছেছে। বুধবার সকালে করোনার টিকাবাহী গাড়ি কুষ্টিয়া থেকে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পৌঁছায়। এসময় সিভিল সার্জনসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা টিকার গাড়ি থেকে টিকা নামিয়ে নির্দিষ্ট কক্ষে সংরক্ষণ করেন।  বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুরের টঙ্গীতে বেক্সিমকোর ওষুধ কারখানায় রাখা করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজ গতকাল সকালে কোম্পানিটির কুষ্টিয়া ডিপোতে এসে পৌঁছায়।  পরে সেখান থেকে করোনার টিকাবাহী গাড়ি চুয়াডাঙ্গার সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পৌঁছায়।  দ্বিতীয় ধাপে ৩ হাজার ৯০০ ভায়াল টিকা পাঠানো হয়েছে।  এই টিকা ৩৯ হাজার জনকে দেয়া হবে।  এসময় বেক্সিমকো কোম্পানির কুষ্টিয়া ডিপো ইনচার্জ আবির হোসেনসহ চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

চুয়াডাঙ্গার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান জানান, চুয়াডাঙ্গা জেলার জন্য করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ডোজের টিকা এসে পৌছেছে।  এই টিকা ৩৯ হাজার জনকে দেয়া হবে।  যারা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন কেবল তাদেরকেই দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হবে। জেলা সদরসহ উপজেলা হাসপাতালগুলোতে পাঠানো হবে টিকা। জেলার চার উপজেলাতেই টিকা সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে করোনা টিকার প্রথম ডোজ দেয়া শুরু হয়।   প্রায় ৫৭ হাজার জনকে ওই টিকার প্রথম ডোজ দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী প্রথম ডোজের ৭০ ভাগ টিকা দ্বিতীয় ধাপে পাঠানো হয়েছে। সকাল থেকে পুরো জেলায় দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হবে। জেলায় করোনাভাইরাসের টিকাদান নিয়ে কাজ করবে স্বাস্থ্য বিভাগের ৫০টি দল।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জানুয়ারি করোনাভাইরাস টিকার প্রথম ডোজ চুয়াডাঙ্গায় পৌঁছায়। ওই টিকা জেলার ৩৬ হাজার জনকে দেয়া হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More