চুয়াডাঙ্গায় ১২ ঘন্টার ব্যবধানে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু-কিশোরসহ ৩ জন নিহত

আফজালুল হক: চুয়াডাঙ্গায় ১২ ঘন্টার ব্যবধানে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু-কিশোর সহ তিনজন নিহত হয়েছে। বুধবার (২২ জুন) বিকেল ৩ টার থেকে মধ্য রাত ৩ টা পর্যন্ত এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়,  বুধবার বিকেলে একটি মোটরসাইকেলে চার কিশোর চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলার লোকনাথপুর গ্রামের মাঠে ফুটবল খেলা দেখতে যাচ্ছিল। চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর মহাসড়কে কাঁঠালতলা এলাকায় পৌছালে একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই বন্ধু ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হলে ঘটনাস্থলেই সুমন নামে এক কিশোরের নিহত হয়। দূর্ঘটনার পর ট্রাকটি পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ।

নিহত সুমন আলী একই উপজেলার জয়রামপুর গ্রামের কুঠিরপাড়ার কৃষক বাবলু রহমানের ছেলে এবং জয়রামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

আহতরা হলো-জয়রামপুর গ্রামের কুঠিরপাড়ার তারা মিয়ার ছেলে তামিম হোসেন (১২), একই পাড়ার আরিফুল ইসলামের ছেলে ইমন আলী (১২) ও শেখপাড়ার সাইফুল ইসলামের ছেলে ফখরুদ্দিন (১২)।
খবর পেয়ে দর্শনা থেকে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা এসে আহত কিশোরদের উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। তাদের মধ্যে ইমনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠানো হয়। বাকি তিনজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সুমন আলীকে মৃত ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক সাদিয়া মা-আরিজ জানান, পরিক্ষা-নিরিক্ষার পর সুমনকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে। আহত তামিম ও ফখরুদ্দিন শঙ্কামুক্ত নয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী রেফার্ড করা হয়েছে।

এদিকে, বুধবার বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে দামুড়হুদা উপজেলার মুক্তারপুর গ্রামে রাস্তা পারাপারের সময় ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকের ধাক্কায় সামসুন্নাহার (৪) নামে এক শিশু গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে সেখান থেকে রাজশাহী নেয়ার পথে সন্ধার দিকে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় পৌছালে শিশু সামসুন্নাহার মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে। শিশু সামসুন্নাহার চাঁদপুর গ্রামের মসজিদ পাড়ার আবুল কাশেমের মেয়ে। বুধবার সকালে মুক্তারপুর গ্রামে বাবার সঙ্গে নানা বাড়ি বেড়াতে এসেছিল। রাত ১০ টার দিকে জানাযা শেষে গ্রামের কবরস্থানে দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ।

অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ভালাইপুর এলাকায় বাড়ি ফেরার পথে ট্রাকের ধাক্কায় নিশান আলী (২৫) নামে এক সিএনজি চালক নিহত হয়েছেন। বুধবার (২২ জুন) দিবাগত অনুমানিক রাত ১ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর মহাসড়কের আলুকদিয়া-ভালাইপুরের মাঝামাঝিস্থানে এদূর্ঘটনা ঘটে। নিহত নিশান আলী চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার চিৎলা ইউনিয়নের কয়রাডাঙ্গা গ্রামের মল্লিকপাড়ার এস মহাম্মদের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইন্দ্রজীত রয় বলেন, আনুমানিক রাত ১ টার দিকে টহল দেয়ার সময় আলুকদিয়া-ভালাইপুরের মাঝামাঝি সড়কের উপর রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। খবর পেয়ে আহত অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি আরও বলেন, পুরো সিএনজিটা ধুমড়ে মুচড়ে গেছে। দুর্ঘটনা কবলিত সড়কের চাকার সাফ দেখে মনে হচ্ছে বড় কোন যানবহন কিংবা ট্রাক সিএনজিকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় আহতের নিকট থেকে স্বর্ণের দুই জোড়া কানের দুল ও এক জোড়া হাতের বালা উদ্ধার করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আহতের মাথাসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। রাত পৌনে ৩ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মরদেহ হিম ঘরে রাখা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট থানায় বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More