জাওয়াদের প্রভাবে দিনভর মেঘলা আকাশ : গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি

৩ নম্বর সতর্কসংকেত

স্টাফ রিপোর্টার: ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ ক্রমে দুর্বল হয়ে পড়ছে। আজ রোববারের মধ্যে এটি আরও দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। তবে এর প্রভাবে বাংলাদেশ ও ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। রোববার সকাল থেকে গুড়ি গুড়ি সৃষ্টির পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। আগামী দু-এক দিন ওই বৃষ্টি চলতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের উপকূলীয় এলাকাজুড়ে দমকা হাওয়া বয়ে যেতে পারে। বাংলাদেশ আবহাওয়াবিদ অধিদপ্তর ও আবহাওয়াবিষয়ক বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থা সূত্রে এসব তথ্য উঠে এসেছে। ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ এর প্রভাবে গতকাল শনিবার দিনভর আকাশ ছিলো মেঘলা। কোথাও কোথাও টিপটিপ বৃষ্টিও হয়েছে।
বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের অগ্রভাগের প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় এরই মধ্যে সঞ্চরণশীল মেঘমালা সৃষ্টি হয়েছে। চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশালে হালকা বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তবে বঙ্গোপসাগর উত্তাল থাকায় চট্টগ্রাম, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর এবং কক্সবাজারকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত নৌযানগুলোকে উপকূলে নিরাপদ স্থানে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাগরে যেতে মানা করা হয়েছে।
আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ শাহীনুল ইসলাম বলেন, ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাবে রোববার থেকে বাংলাদেশের বেশির ভাগ এলাকাজুড়ে বৃষ্টি শুরু হতে পারে। তবে এটি শেষ পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়ের শক্তি নিয়ে বাংলাদেশ বা অন্য কোনো দেশে আঘাত করবে কি না, তা এখনো নিশ্চিত না। রোববারের মধ্যে তা নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে এর প্রভাবে বৃষ্টি শুরু হতে পারে।
আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি ঘণীভূত হয়ে ৩ ডিসেম্বর দুপুর ১২টায় একই এলাকায় ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’-এ পরিণত হয়েছিলো। এরপর এটি উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছিলো। এটি আরও উত্তর দিকে অগ্রসর হতে পারে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More