থার্টিফার্স্ট পিকনিকে নাচানাচির সময় সংঘর্ষ : উপর্যুপরি কোপে সঙ্কটাপন্ন দুই যুবক

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে পিকনিকের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষের ঘটনায় দু’যুবক গুরুতর জখম হয়েছে। উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে নাচানাচির সময় নিজেদের মধ্যে বাগবিত-ার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে জখম করা হয় দুজনকে। জখম দুজন হলেন, ইসলামপাড়ার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে পারভেজ (২০) ও একই এলাকার টগর হোসেনের ছেলে জিসান হোসেন (১৮)। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। তাদের দু’জনের অবস্থায় সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা অথবা রাজশাহী নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসক। গতরাত সাড়ে ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের ইসলামপাড়া বটতলায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে, এ ঘটনায় অভিযুক্ত রাজন নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, খ্রিষ্টীয় ২০২১ সাল উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গার ইসলামপাড়া বটতলায় স্থানীয় কয়েকজন যুবক পিকনিকের আয়োজন করে। গান-বাজনা হৈ-হুল্লোড় করে ভালোই চলছিলো অনুষ্ঠান। রাত ১০টার দিকে নাচানাচির সময় ঘটে বিপত্তি। নিজেদের মধ্যে আকস্মিক বাগবিত-া শুরু হয়। জখম জিসান বলেন, বাগবিত-ার বিষয়টি মীমাংসা হওয়ার পর সেখানেই ছিলাম। সে সময় হঠাৎ ইসলামপাড়ার হাফিজের ছেলে কবির ও একই এলাকার সজিব, মাহফুজ, রাজা, হাসিব, রাজনসহ কয়েকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে এসে আমাদের ওপর হামলা চালায়। এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে।
স্থানীয় ও পুলিশসূত্রে জানা যায়, গুরুতর জখম পারভেজ ও জিসানের চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসে। সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে পারভেজকে মাইক্রোবাসযোগে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে জিসানকেও হাসপাতালে নেয়া হয়। তাদের মধ্যে পারভেজের পিঠে ও ডান হাতে গুরুতর ক্ষতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান জখম হয়। তার হাতের কয়েকটি আঙুলও কেটে পড়ে গেছে। জিসানের পিঠে ও মাথায় জখম হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডা. শাকিল আরসালান বলেন, দুজনেরই পিঠে গুরুতর জখম হয়েছে। তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা ও রাজশাহীতে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সদর থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান বলেন, পিকনিকে নাচানাচির সময় নিজেদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। রাতেই রাজন নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More