দুুপুরের খাবার নিয়ে বসে থাকা স্ত্রীর আহাজারিতে এলাকার বাতাস ভারি

চুয়াডাঙ্গায় ট্রেনের ধাক্কায় মধ্যবয়সী শাহিনের মর্মান্তিক মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: ট্রেনের ধাক্কায় আছড়ে পড়ে থেতলে ছিলেছুলে নির্মমভাবে মারা গেলেন হতদরিদ্র পরিবারের গৃহকর্তা শাহিন আলী (৫৫)। গতকাল বুধবার বেলা ২টার দিকে চুয়াডাঙ্গা স্টেশনের দক্ষিণপ্রান্তের এস-৪১ নম্বর সিগন্যালের নিকট এ দুর্ঘটনা ঘটে। গোসল করে বাড়ি ফিরেই তার দুপুরের খাবার খাওয়ার কথা ছিলো। স্ত্রী খাবার নিয়ে যখন বসে ছিলেন, তখনই খবর আসে স্বামী আর নেই। স্বামীর আকস্মীক মৃত্যুতে স্ত্রী বিলকিস বেগমসহ নিকটজনেরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।
নিহত শাহিন আলী চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের হকপাড়ার মৃত মঙ্গল শেখের ছেলে। তিনি দু’ছেলে ও এক মেয়ের জনক ছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, শাহিন আলী প্রতিদিনই দুপুরে বাড়ির অদূরবর্তী রেললাইন পার হয়ে মিজানুর রহমানের পুকুরে গোসল করতে যান। বুধবার দুপুরেও তিনি ওই পুকুরে গোসল করেন। গোসল করে আপন মনে বাড়ি ফিরছিলেন। রেললাইন পার হওয়ার সময় খুলনা থেকে ছেড়ে আসা রকেট মেলে ধাক্কা মারে। ট্রেনের ধাক্কায় আছড়ে পড়লে তাকে টেনে হেঁচড়ে নিয়ে যায় বেশ কিছু দূরে। ছোট ছেলে সাগরসহ স্থানীয়রা দ্রুত ছুটে যান। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। স্থানীয়দের কয়েকজন বললেন, শাহিন আলী যখন রেললাইন পার হচ্ছিলেন তখন ট্রেন আসছে দেখে চিৎকার করে তাকে সরতে বললেও অন্যখেয়ালে থাকার কারণে বোধ হয় শুনতে পাননি। জিআরপি পুলিশে খবর দেয়া হয়। লাশ গতরাতেই দাফনের প্রক্রিয়া করা হয়।
পরিবারের সদস্যরা বলেছেন, শাহিন আলী কখনো রাস্তার পাশে বসে ধুপি বানিয়ে বিক্রি করতেন, কখনও চপ পেয়াজও বিক্রি করতেন। মাঝে মাঝে তাকে দিনমজুরির কাজেও যেতে হতো। তিন সন্তানের মধ্যে বড় মেয়ে পারভীনের বিয়ে হয়েছে। দু’ছেলে শামীম ও সাগর। শাহিন আলী প্রতিদিনই দুপুরে ওই পুকুরে গোসল করে বাড়ি ফিরে দুপুরের খাবার খেতে বসতেন। গতকালও দুপুরের ভাত নিয়ে বসে ছিলেন স্ত্রী বিলকিস বেগম। চোখের সামনে থেকে যে মানুষটা গোসল করতে গেলেন সেই মানুষটার আকস্মীক মৃত্যুতে সান্ত¦না খুঁজে পাচ্ছেন না স্ত্রীসহ পরিবারের সদস্যরা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More