দৈনিক মাথাভাঙ্গা আজ আড়াই যুগ পেরিয়ে ৩১ বছরে

স্টাফ রিপোর্টার: বিশ্বজুড়ে মহামারী। অধিকাংশেরই মন খারাপ। উৎসব বারণ। এর মাঝে বছর ঘুরে এলো দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকার প্রকাশানার শুভক্ষণ। সৃষ্টি সুখের উল্লাস। এবাররও উল্লাসের রঙ।
আজ ১০ জুন। আজ থেকে আড়াই যুগ আগে সমাজ থেকে মৌলবাদ, কুসংস্কার, সন্ত্রাস, অন্যায় অনিয়ম দূর করার প্রত্যয় নিয়ে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে একদল টগবগে যুবক। অবসম্ভবকে সম্ভব করার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাটুকুই ছিলো মূলত মূল পুঁজি। এখনও তাই।
সততার সাথে অন্যায়ের প্রতিবাদ করার মধ্যদিয়ে মাথাভাঙ্গা পরিবার পাশে পেয়েছে অগুণিত পাঠক। অসংখ্য শুভানুধ্যায়ীর স্বতঃস্ফূর্ত সহযোগিতায় দৈনিক মাথাভাঙ্গা আড়াই যুগ পেরিয়ে আজ প্রকাশানার ৩১ বছরে পদার্পণ। দীর্ঘ পথচলার অভিজ্ঞতা মাথাভাঙ্গা পরিবারকে করেছে আরও দায়িত্বশীল। পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে অঙ্গীকারবদ্ধ মাথাভাঙ্গা পরিবার আরও দৃঢ়তা নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চায়। দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকা কীভাবে প্রকাশ পায় তার বর্ণনা অনেক লম্বা। চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদের আঙিনায় কবিতা গল্প লেখা আর তা নিয়ে তুখোড় আড্ডায় মেতে থাকা ৪ যুবকের বিশেষ উদ্যোগেই চুয়াডাঙ্গা থেকে দৈনিক পত্রিকা প্রকাশের স্বপ্ন দেখা। যে সময়ে সাপ্তাহিক পত্রিকাই নিয়মিত প্রকাশ করা ছিলো দূরহ, সেই সময়ে দৈনিক পত্রিকা প্রকাশ! অনেকেরই চোখ উঠেছিলো কপালে। নিন্দুকদের সমালোচনার ঝড় ৪ যুবকের উদ্যোগকে দমিয়ে দিতে চয়েছে বার বার। সেই নিন্দাকে নন্দিত করতে অভাবনীয় প্রচেষ্টা যার, তিনি প্রকাশক মূদ্রাকর সরদার আল আমিন। তিনিই পত্রিকা প্রকাশের ছাড়পত্র নিয়ে যাত্রা শুরু করেন। সম্পাদক পদে অধিষ্ঠিত হন তৎকালীন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান গণমানুষের নেতা সাইফুল ইসলাম পিনু। আলী কদর পলাশ, রিচার্ড রহমান, পাঞ্জুসহ অনেকেই ছিলেন প্রতিষ্ঠালগ্নে। সাইফুল ইসলাম পিনুসহ অনেকেই এহকাল ত্যাগ করেছেন।
দৈনিক মাথাভাঙ্গা প্রথমে লেটারহ্যান্ড কম্পোজে ছাপা হতো। পরে অফসেটে। রঙিনের যাবতীয় আয়োজনও করা হয়েছে। মাঝে কিছুদিন রঙিন ছাপা হলেও করোনা ভাইরাসজনিত সংকটের কারণে বর্ধিত কলেবর থমকে গেছে। কোভিড-১৯ সংকট কাটলেই দৈনিক মাথাভাঙ্গা আরও বলিষ্ঠ হয়ে পাঠককূলের হাতে পৌঁছুবে বলে মাথাভাঙ্গা পরিবারের বিশ^াস। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভক্ষণে শুভেচ্ছা। সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা। প্রসঙ্গত: দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর উৎসব এবারও হচ্ছে না।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More