ধর্ম নিয়ে যারা ব্যবসা করে তাদের উৎখাত করে অক্ষুন্ন রাখতে হবে সম্প্রদায়িক সম্প্রতি

চুয়াডাঙ্গা জেলা বাউল কল্যান সংস্থার ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ছেলুন জোয়ার্দ্দার এমপি

স্টাফ রিপোর্টার: “ধর্ম নিয়ে যারা ব্যবসা করে তাদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে। দেশ সবার, ধর্ম যার যার। অথচ এক শ্রেনীর মুখোশধারীরা ধর্মের নামে দেশে অস্থিরতা সৃষ্টি করে উদ্দেশ্য হাচিল করতে চায়। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রেখে যাওয়া দেশে আমরা ধর্মের নামে যাচ্ছে তাই হতে দেবো না। আমরা সম্মিলিতভাবে ধর্ম ব্যবসায়ীদের উৎখাত করে সম্প্রতির দেশ গড়ব।”
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি উপরোক্ত অভিমত ব্যাক্ত করে বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ বিশ^ দরবারে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশবাসীর অর্জন ওই মুখোশধারী মৌলবাদ চক্র নস্যাত করতে চায়। বাংলার এই মাটিতে ওই মতলববাজদের কোন কু-মতলব বাস্তবায়ন হবে না, আমরা সর্বস্তরের মানুষ সম্মিলিতভাবে তা প্রতিহত করবো।
চুয়াডাঙ্গা জেলা বাউল কল্যান সংস্থার ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বাউল সমাজ মানবতার কথা বলে। বাউলদের মধ্যে সব ধর্মের মানুষ থাকে, আছে। মানুষ হয়ে মানবতার কথা বলার অধিকার সকলের রয়েছে। এই অধিকারও ওই মৌলবাদচক্র ধুলিস্যাত করতে চায়। বাউল সমাজ ঐক্যবদ্ধ থাকলে কোন চক্র দেশের সম্প্রতি বিনষ্ঠ করতে পারবে না। মহান সৃষ্টিকর্তা এক এবং অদ্বিতীয়। বাউল যেমন মহান সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টি, অন্যান্য ধর্মের মানুষও তাঁরই সৃষ্টি। জন্মের সময় তো নবজাতক তথা কেউ ধর্ম নিয়ে আসে না। বউল স¤্রাট লালন জাত ভেদাভেদ বিষয়ে স্পষ্ট করে বলেগেছেন। মানুষ হয়ে আমরা সকলে সকলকে যথাযথ সম্মান দিতে পারলে অবশ্যই আমাদের এই সমাজ সুন্দর হবে। বাউল সমাজ সেই চেষ্টা করে যাচ্ছে।
বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের শৈলগাড়ি বাউল কল্যান সংস্থার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা বাউল সংস্থার সভাপতি মুনতাজ শাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি দৈনিক মাথাভাঙ্গা সম্পাদক সরদার আল আমিন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বাউল অনুসারী ওহিদ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মজনু শাহ, রুহুল শাহ, লিয়াকত শাহ, আজিম মাস্টার, কাজি আমিরুল ইসলাম, হাফিজ মাস্টার, কাশেম আলীসহ অনেকে। উপস্থাপনায় ছিলেন তৌহিদ হোসেন মাস্টার। সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন বাউল নাসিমা। আলোচনা সভার মাঝে অতিথিদের সকলকে ফুল ও ফুলের মালা দিয়ে বরণ করা হয়। এ সময় লালনগীতি পরিবেশন করেন একুশে পদকপ্রাপ্ত খোদা বকশ শাহের ছেলে বিশিষ্ট বাউল শিল্পি আব্দুল লতিফ শাহসহ তার সহযোগি শিল্পিরা। সভাপতির বক্তব্যে জেলা বাউল কল্যান সংস্থার কার্যক্রম ও কার্যালয় নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সার্বিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সংগঠনের কার্যালয়ের রাস্তা নির্মাণসহ পাশে থাকার কথা পুনঃব্যক্ত করেন।
আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আগে সকাল ১০টায় জেলা শহরে বাউল শোভাযাত্রা বের হয়। এ শোভযাত্রারও উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More