নাটরে দুর্ঘটনা : আলমডাঙ্গার আম ব্যবসায়ী চাচা-ভাতিজা নিহত

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থেকে আম কিনতে নাটোরে যাওয়ার পথে আলমসাধু উল্টে চাচা-ভাতিজা নিহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার ও সকালে নাটোর জেলার লালপুর উপজেলার কদিমচিলান ইউনিয়নের গোদড়া এলাকায় এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি দৈনিক মাথাভাঙ্গাকে নিশ্চিত করেছেন বনপাড়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন। নিহত মন্টু ফকির (৫০) চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার ডাউকি ইউনিয়নের হাউসপুর গ্রামের হঠাৎপাড়ার নবিস উদ্দিনের ছেলে এবং শাহীন (২৫) একই এলাকার আব্দুল হান্নানের ছেলে। এরা আপন চাচা-ভাস্তে বলে জানা গেছে। সোমবার রাত ১০ টার দিকে জানাজার নামাজ শেষে গ্রামের কবরস্থানে দাফনকাজ সম্পন্ন করা হয়।
বনপাড়া হাইওয়ে থানা সূত্রে জানা যায়, মন্টু ও শাহিন সোমবার সকালে আলমসাধুযোগে দুজন আম কেনার উদ্দেশ্যে নাটোরের আহম্মেদপুর বাজারে আসছিলো। পথে বড়াইগ্রামের বনপাড়া গোদড়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আলমসাধুটি মহাসড়কের পাশের খাদে উলটে পড়ে যায়। এতে চালকসহ তিনজনই আলমসাধুর নিচে পড়ে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে বনপাড়া জাহেদা হাসপাতালে ভর্তি করে। এর কিছুক্ষণ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজন মারা যান।
নিহত মন্টুর দুই সন্তান। মেয়ে বিবাহিত ও ছেলের বয়স ১৮ বছর। তবে নিহত ভাতিজা শাহীনের একমাত্র ৭ বছরের শিশুকন্যা রয়েছে। বাবা কী তা বুঝে ওঠার পূর্বেই চিরদিনের জন্য অবুঝ শিশুকন্যা বাবাকে হারালো। শাহিনের স্ত্রী ৭ মাসের ছোট্ট শিশুকন্যাকে নিয়ে অথৈই সাগরে পড়েছেন। স্ত্রী, মা-বাবা, ভাই-বোনসহ নিকটজনদের বুকফাটা আহাজারিতে এলাকার বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। একই বাড়িতে দুজন ব্যক্তির আকস্মিক মৃত্যুতে এলাকাজুড়ে শোকাবহ পরিবেশ বিরাজ করছে।
হাউসপুর গ্রামের ইউপি সদস্য বদর উদ্দিন বলেন, আম কিনতে যাওয়ার পথে আলমসাধু উলটে চাচা-ভাস্তে নিহত হয়েছেন। তারা বিভিন্ন জেলায় ঘুরে আম কিনে তা বিক্রি করতেন। বিকেলে মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছুলে দুই পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া। রাত ১০টার দিকে জানাজার নামাজ শেষে গ্রামের কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন বলেন, চুয়াডাঙ্গা থেকে আম কিনতে আসার পথে আলমসাধু উলটে চাচা-ভাস্তে নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনা-কবলিত আলমসাধুটি জব্দ করা হয়েছে। অভিযোগ না থাকায় অবেদনের প্রেক্ষিতে সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। এঘটনায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More