নিহত তিন শিক্ষার্থীর একজন আলমডাঙ্গা বলেশ্বরপুর গ্রামের তৌহিদ

ঝিনাইদহে ভেটেরিনারি শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের আন্দোলন : প্রতিপক্ষের ধাওয়ায় পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহে প্রতিপক্ষ গ্রুপের ধাওয়ায় পালাতে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে মোটরসাইকেল ধাক্কায় নিহত তিনজনের মধ্যে রয়েছেন চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা বলেশ্বরপুর গ্রামের তৌহিদ ইসলাম (২৫)। তিনি ঝিনাইদহ সরকারি ভেটেরিনারি কলেজের শিক্ষার্থী ও বলেশ্বরপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে। নিহত অন্য দুজন হলেন ঝিনাইদহ সরকারি ভেটেরিনারি কলেজের ভিপি ও সদর উপজেলার কুশাবাড়িয়া গ্রামের বাদশা মোল্লার ছেলে সাইদুজ্জামান মুরাদ বিশ্বাস (২৫) ও যশোর মনিরামপুর উপজেলার পালদিয়া গ্রামের রাখাল চন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে সমরেশ চন্দ্র বিশ্বাস (২৩)। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ঝিনাইদহ চুয়াডাঙ্গা সড়কের ১৮মাইল নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এর আগে ভেটেরিনারি কলেজের জিএস সজিব হাসানকে ছাত্রলীগের প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ কুপিয়ে জখম করে। তাকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই জেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী।
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে ঝিনাইদহ শহর থেকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা সাগর হোসেন সোহাগের সঙ্গে দেখা করে ক্যাম্পাসে ফিরছিলেন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নের ঘোষপাড়ায় অবস্থিত জোহান ড্রিম ভ্যালি পার্কের কাছে পৌঁছুলে ভেটেরিনারি কলেজের জিএস সজিব হাসানকে চলন্ত মোটরসাইকেলে বসা অবস্থায় ওৎপেতে থাকা ছাত্রলীগের আরেকটি গ্রুপ কুপিয়ে জখম করে। সজিব মোটরসাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে পাশের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেয় এবং পুলিশের সহায়তা চাইলে ঝিনাইদহ সদর থানার পুলিশ তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পৌঁছে দেয়। এরপর ভেটেরিনারি কলেজের ভিপি মুরাদ বিশ্বাসসহ ছাত্রলীগের তিন কর্মী একই মোটরসাইকেলে যাওয়ার সময় চলন্ত অবস্থায় তাদেরকেও আক্রমণ করে প্রতিপক্ষরা। এ সময় তারা দ্রুত মোটরসাইকেল চালিয়ে ১৮ মাইল নামক স্থানে পল্লী বিদ্যুতের ডিপোর সামনে পৌঁছুলে অন্ধকারে দাঁড়িয়ে থাকা বিদ্যুতের খাম্বা বোঝায় ট্রাকের (চট্ট মেট্রো-চ-৮১৩৪৫৪) সাথে সজোরে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন ভেটেরিনারি কলেজছাত্র সংসদের ভিপি মুরাদ বিশ্বাস, তৌহিদুল ইসলাম ও সমরেশ চন্দ্র বিশ্বাস।
ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের উপপরিচালক শামীমুল ইসলাম জানান, নিহতদের মাথায় আঘাত লেগেছে। মোটরসাইকেল ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে।
অন্যদিকে ভেটেরিনারি কলেজ সংসদের জিএস সজিব আহম্মেদ অভিযোগ করে বলেন, সরকারি ভেটেরিনারি কলেজের শিক্ষার্থীরা ডিগ্রি বাতিলের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে তারা আন্দোলন চালিয়ে আসছেন। নেতৃত্ব দেয়া নিয়ে কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফাহিম আহমেদের সাথে তাদের বিরোধ চলে আসছে। তারই জের ধরে ভিপি মুরাদসহ আরও কয়েকজনকে শহর থেকে ক্যাম্পাসে ফেরার সময় পথে জোহান পার্কে সামনে পৌঁছুলে প্রতিপক্ষরা তাদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুত জখম করে। তাদের হামলা থেকে বাঁচতে গিয়ে ভিপি মুরাদসহ ৩ জন মোটরসাইকেলে পালানোর চেষ্টা করে। তখন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা দিলে তাদের মৃত্যু হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন। এছাড়া তাদের হামলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত নিয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন। বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।
এদিকে ঝিনাইদহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও হামলায় আহত নেতাকর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছে জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। শনিবার সকালে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রলীগ নেতা সজিব আহম্মেদ ও সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র মুরাদ হোসেন, তৌহিদুল ইসলাম ও সমরেশ বিশ^াস স্বজনদের কাছে গিয়ে সমবেদনা জানান। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আল ইমরান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রানা হামিদসহ অন্যান্যরা হাসপাতালে যান। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব আহম্মেদ আহত ও নিহতদের স্বজনদের সান্ত¦না দেন ও হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া আশ^াস দেন।
সাধারণ সম্পাদক আল ইমরান বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভেটেরিনারি কলেজ ছাত্রলীগের কর্মীদের মাঝে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। একটি একটি অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা। আমরা আপনাদের আশ^স্ত করতে চাই এ ঘটনায় মূলত যারা দোষী তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
যে গ্রুপই হামলা করুক এটা অন্যায় ও অমানবিক হয়েছে। তিনি এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, সরকারি ভেটেরিনারি কলেজের ভিপি ও জিএস তার সঙ্গেই রাজনীতি করেন।
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ভেটেরিনারি কলেজের ৩ শিক্ষার্থী ঝিনাইদহ শহর থেকে এক মোটরসাইকেলে করে কলেজের দিকে যাচ্ছিলেন। তারা ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা মহা-সড়কের ১৮মাইল নামক স্থানে পৌঁছুলে জাগরণী চক্র এনজিও অফিসের সামনে এসে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিদ্যুতের খাম্বা বোঝাই রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে সজোরে ধাক্কা মারে। সে সময় ঘটনাস্থলেই ৩জন মারা যায়। এর আগে ছাত্রলীগের এক গ্রুপের হামলায় ভেটেরিনারি কলেজের জিএস সজিব আম্মেদ ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়। তাকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More