প্রথমদিনে অনুপস্থিত ৩৩ হাজার ৮৬০ : নকল করায় বহিষ্কার ২৬

চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরসহ সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি)ও সমমানের প্রথম দিনের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে গতকাল বৃহস্পতিবার। এদিন নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে বাংলা প্রথমপত্র (আবশ্যিক) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১৬ হাজার ৬২৭ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলো। অপরদিকে মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে দাখিল পরীক্ষায় ১০ হাজার ৯৫৮ ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৬ হাজার ২৭৫ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলো। সব মিলিয়ে ১১টি শিক্ষাবোর্ডের ৩৩ হাজার ৮৬০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেনি। তাছাড়া অসাধু উপায় (নকল) অবলম্বন করায় ২৬ জন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তবে প্রথম দিন কোনো শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি প্রফেসর তপন কুমার সরকারের সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৪২৭ টি কেন্দ্রে ৩ লাখ ৭৪ হাজার ১৫৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩ হাজার ৭২১ জন অনুপস্থিত ছিলো। অনুপস্থিতির হার শূন্য দশমিক ৯৯ শতাংশ। এ বোর্ডের অধীনে একজন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। রাজশাহী বোর্ডে এক হাজার ৭১৯ জন অনুপস্থিত, চট্টগ্রাম বোর্ডে এক হাজার ৬৮৩ জন অনুপস্থিত, বহিষ্কার দুজন, সিলেটে এক হাজার ১১৯ জন অনুপস্থিত, বরিশালে ৯৯২ জন অনুপস্থিত, দিনাজপুরে এক হাজার ৬৯৬ জন অনুপস্থিত এবং ময়মনসিংহে এক হাজার ২ জন অনুপস্থিত, বহিষ্কার দুজন। তাছাড়া মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৭১৫টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমদিন সারাদেশে ১০ হাজার ৯৫৮ জন অনুপস্থিত ছিলো। বহিষ্কার করা হয়েছে ৮ পরীক্ষার্থীকে। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন অনুপস্থিত ৬ হাজার ২৭৫ জন। বহিষ্কার হয়েছে ১২ পরীক্ষার্থী।

চুয়াডাঙ্গায় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় জেলার ৪১টি কেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান ভিক্টোরিয়া জুবিলি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন। প্রথমদিনে বাংলা ১মপত্র পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আগামীকাল শনিবার বাংলা ২য়পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। জেলা প্রশাসকের সাথে পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনকালে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম ভূইয়া উপস্থিত ছিলেন। চলতি  বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় চুয়াডাঙ্গা জেলায় মোট ৪১টি কেন্দ্রে ১৪ হাজার ৯৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে। পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। তবে, আইসিটি শিক্ষা বিভাগের হিসাব অনুযায়ী মোট ১৩ হাজার ৪১৬ জন পরীক্ষার্থী ফরম পূরণ করে। এর মধ্যে ১৩ হাজার ১৮৮৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে। পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিলো ২৩৩ শিক্ষার্থী। এসএসসি পরীক্ষায় ১০ হাজার ৬৪৩ জন, ভোকেশনাল পরীক্ষায় এক হাজার ৭৯২ জন এবং দাখিল পরীক্ষায় ৯৮১ জন ফরম পূরণ করে। এরমধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ১০ হাজার ৪৮২ জন উপস্থিত এবং ১৬১ জন অনুপস্থিত ছিলো। ভোকেশনাল পরীক্ষায় এক হাজার ৭৬২ জন উপস্থিত এবং ৩০ অনুপস্থিত ছিলো এবং দাখিল পরীক্ষায় ৯৩৯ জন উপস্থিত এবং ৪২ জন অনুপস্থিত ছিলো।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান জানান, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে ও শান্তিপূর্ণভাবে এবং নকলমুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতি কেন্দ্রে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃংখলা বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া ট্যাগ অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলায় এসএসসি বাংলা, ভোকেশনাল-বাংলা-২ এবং দাখিল কুরআন মাজিদ ও তাজভিদ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে পরীক্ষা শুরু হয়ে ১টার সময় শেষ হয়। বেলা সাড়ে ১১টায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আরাফাত রহমান, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রনি আলম নূর, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি রেজওয়ানা নাহিদ পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল বারী, একাডেমি সুপারভাইজার ইমরুল হক। আলমডাঙ্গা পাইলট বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র ও সরকারি কলেজ উপকেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন এক হাজার ৪ শ ২৬ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে দু’কেন্দ্র মিলে অনুপস্থিত ছিলো ১৮ শিক্ষার্থী। আলমডাঙ্গা পাইলট সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র পরীক্ষার্থী ছিলো ৫শ ৫১ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিলো ১২ জন। আলমডাঙ্গা মুন্সিগঞ্জ একাডেমি কেন্দ্র ও মুন্সিগঞ্জ বালিকা বিদ্যালয় উপকেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ছিলেন ৬শ ৬৪ জন। এর মধ্যে দুই কেন্দ্র মিলে অনুপস্থিত ছিলো ৮ জন শিক্ষার্থী। আলমডাঙ্গা হাটবোয়ালিয়া স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র ও হাটবোয়ালিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় উপকেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ছিলো ৭শ ৪১জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে দুই কেন্দ্র মিলে অনুপস্থিত ছিলো ৯ শিক্ষার্থী। আলমডাঙ্গা সিদ্দিকীয়া আলিম মাদরাসায় দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ছিলো ২শ ৩৬ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিলেন ৭জন শিক্ষার্থী। আলমডাঙ্গা পাইলট সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের উপকেন্দ্র মহিলা ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে ভোকেশনাল পরীক্ষার্থী ছিলো ৩শ ১৫ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিলো ৮ জন শিক্ষার্থী। আলমডাঙ্গা হারদী নিপ্পনজোহা টেকনিক্যাল স্কুল কেন্দ্রে ভোকেশনাল পরীক্ষার্থী ছিলো ৫৬ জন শিক্ষার্থী।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More