প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী খুব শ্রীঘ্রই মেহেরপুরে রেল সংযোগ স্থাপন হবে

দর্শনা মেহেরপুর রেললাইন প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই অনুষ্ঠানে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

মেহেরপুর অফিস: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হেসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুয়ায়ী মেহেরপুরে রেল সংযোগ স্থাপনে অধিকতর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। দর্শনা থেকে মুজিবনগর হয়ে মেহেরপুর পর্যন্ত রেল সংযোগের আওতায় আনা হচ্ছে। পরবর্তীতে মেহেরপুর থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা অথবা মিরপুর পর্যন্ত বিস্তৃত করা হবে। গতকাল শুক্রবার সকালে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে ‘দর্শনা জংশন থেকে মুজিবনগর হয়ে মেহেরপুর পর্যন্ত ব্রডগেজ রেললাইন সংযোগের লক্ষ্যে সম্ভাব্যতা যাচাই ও বিশদ ডিজাইন’ বিষয়ক অবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেন। তিনি বলেন, রেল সংযোগ সারাদেশে স্থাপনের জন্য বর্তমান সরকার কাজ করছে। ২০১১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবসে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী খুব শ্রীঘ্রই মেহেরপুরে রেল সংযোগ স্থাপন হবে। রেল সংযোগ স্থাপন হলে মেহেরপুরের কৃষি অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হবে। আজকের দিনটি মেহেরপুর জেলাবাসীর জন্য অত্যন্ত শুভ দিন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। মেহেরপুর জেলার কৃষি ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে রেল সংযোগ।
দেশের সব জেলায় রেল সংযোগ আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি আরও বলেন, মেহেরপুরসহ আশেপাশের জেলা সবজি উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রেলের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলায় এখান থেকে সবজি পাঠানো সম্ভব হবে। এতে কৃষকরা যেমনি লাভবান হবেন তেমনি পরিবহন খবর হ্রাস পাওয়ায় লাভবান হবেন সবজি ক্রেতারা। সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের মাধ্যমে একনেকে পাশের মধ্যদিয়ে দ্রুত এ প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী।
এসময় তিনি আরও বলেন, মেহেরপুরের অর্থনীতি কৃষির উপর নির্ভরশীল। এ অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী করতে রেললাইনের কোনো বিকল্প নেই। জেলার কৃষি পন্য বিভিন্ন জেলায় কৃষকরা খুব সহজে পরিবহন করতে পারে সেজন্য খুব শীঘ্রই রেল সংযোগ স্থাপন হবে। প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, দর্শনা হতে দামুড়হুদা এবং মুবিবনগর হতে মেহেরপুর বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ৪২ কিলোমিটারে ৬ টি স্টেশন স্থাপন করা হবে। ইতোমধ্যে যাচাই-বাছাই সম্পন্ন হয়েছে।
দর্শনা-মেহেরপুর ভায়া দামুড়হুদা, মুজিবনগর ব্রডগেজ রেললাইন প্রকল্প পরিচালক (পিডি) বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহীর অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আসাদুল হক এ প্রকল্পের নকশা উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতার গৌরবের ইতিহাস গাঁথা মেহেরপুর জেলায় আসার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সড়ক পথ ছাড়া অন্য কোনো পথ নেই। তাই পরিবেশ বান্ধব, নিরাপদ ও কম খরচে রেলের মাধ্যমে জেলায় দর্শনার্থীরা আসতে পারবেন। জেলার বিভিন্ন উন্নয়নের সাথে রেলওয়ে সংযোগ একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন অনুষ্ঠানের সভাপতি মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খান। মতবিনিময়সভায় আরও অংশ গ্রহণ করেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ খালেক, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, অধ্যাপক হাসানুজ্জামান মালেকসহ জুমের মাধ্যমে অংশ গ্রহণ করেন মেহেরপুুুুুুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন, সাবেক সংসদ সদস্য মকবুল হোসেনসহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকবৃন্দ।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More