বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে আ.লীগের হুঁশিয়ারি : মাঠে নামলাম খেলা হবে

সিরিজ বোমা হামলার বার্ষিকীতে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে আ.লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। এখন থেকে বিএনপি-জামায়াত যেখানেই ‘সন্ত্রাস-নাশকতা’ করবে সেখানে প্রতিরোধ করবে তারা। দলটির নেতারা বলেন, আজকে অগ্নিসন্ত্রাসীরা মাঠে নেমেছে। আমরাও আজ থেকে মাঠে নামলাম। পেট্রলবোমা ও সন্ত্রাসী কর্মকা- করতে দেবো না। কাউকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির সুযোগ দেয়া হবে না। দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে নেতারা বলেন, আপনারা প্রস্তুত তো? খেলা হবে। রাজপথে, আন্দোলনে, নির্বাচনে, খেলা হবে। সেই খেলায় আমরাই জয় লাভ করবো। বিএনপি গত নির্বাচনে ধরা খেয়েছে, এবারো ধরা খাবে। এজন্য আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বিএনপি-জামায়াত অপশক্তির বিরুদ্ধে ও ১৭ আগস্ট দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার বার্ষিকীতে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরসহ সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন। এসব সমাবেশে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা একাত্তরের পরাজিত ঘাপটি মেরে থাকা অপশক্তির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান এবং নির্মূল করার শপথ নেন। দলের নেতাকর্মীর উদ্দেশে বক্তারা বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আজ শপথ নিতে হবে- বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের ঠিকানা বিএনপিকে দেশের রাজপথে মোকাবিলা করতে হবে। প্রস্তুত থাকেন, খেলা হবে, রাজপথে খেলা হবে, রাজপথে মোকাবিলা হবে, আগামী নির্বাচনে খেলা হবে, সেখানে আমরা জয়লাভ করবো। নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ রেখে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে।’

চুয়াডাঙ্গায় জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গার দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্ব দেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। এরপর দলীয় কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন- সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খুসতার জামিল, নাসির উদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোর্য়াদ্দার টোটন, অ্যাড শামসুজ্জোহা সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান মাসুদউজ্জামান লিটু, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম মালিক, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আরশাদ উদ্দিন আহমাদে চন্দন,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক এ্যাড তালিম হোসেন,উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলি,কোষাধ্যক্ষ আলি রেজা সজল,কার্যনির্বাহী সদস্য পিপি অ্যাড বেলাল হোসেন, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান নান্নু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক, সাধারণ সম্পাদক রিপন মন্ডল, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক নুরুন্নাহার কাকুলী, যুগ্মআহবায়ক নাবিলা রুকসানা ছন্দা, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল কাদের,আব্দুর রসিদ, মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আসমান, মাসুদুর রহমান মাসুম, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জি এস রাসেদুজ্জামান বাকি, কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম চন্দন, কৃষকলীগ নেতা মহাসীন রেজা, বঙ্গবন্ধু পরিষদের আহবায়ক শাজাহান আলী, যুগ্মআহবায়ক মাহাবুল ইসলাম সেলিম, কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবার রহমান, সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান মানিক, পদ্মবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি খাজা মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন, চেয়ারম্যান মো. আলম ম-ল, শংকরচন্দ্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নিলুয়ার হোসেন, আলুকদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আক্তারুল রহমান মুকুল, মাখালডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী বিশ্বজিত কুমার শাহা, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, তিতুদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান শুকুর আলী, গড়াইটুপি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, মোমিনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নিপুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আল মাহামুদ রতন, জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য শহিদুল ইসলাম শাহান, জহুরল ইসলাম, কাজল রেখা, পৌরসভার প্যানেল মেয়র সুলতানারা আঞ্জু রত্না, উজ্জল হোসেন, কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক গিনি ইসলাম, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানি মাসুম, শাহাজাদী মিলি, ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহামেদ, তানভীর আহামেদ সোহেল, সোয়েব রিগান প্রমুখ।

এদিকে, চুয়াডাঙ্গায় গতকাল বুধবার দুপুরে শহরের কেদারগঞ্জ এলাকা থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আসাদুল হক বিশ্বাস ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদুল ইসলাম আজাদের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। শহর প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ হাসান চত্বরে এসে মিছিলটি শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ ও ছাত্রলীগের কয়েকশ নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। মিছিল শেষে শহীদ হাসান চত্বরে এক বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদুল ইসলাম আজাদ। জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. শফিকুল ইসলাম শফির পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আইলহাস ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. আব্দুল মালেক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক সাবেক পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু, জেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি মোমিনপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দার। উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, সদর উপজেলা কৃষকলীগের আহ্বায়ক আব্দুল মতিন দুদু, আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার বজলুর রহমান বজলু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো জানিফ, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি জুয়েল রানা, সাধারণ সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর মাফিজুর রহমান মাফি, দামুড়হুদা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান বাবু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম, দর্শনা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইসলামুল হক আল আমিন, চুয়াডাঙ্গা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম ভুলন, সাধারণ সম্পাদক শেখ সামি তাপু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী ইমদাদুল হক সজল প্রমুখ।

অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গায় জেলা যুবলীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার জেলা যুবলীগ আয়োজিত প্রতিবাদ মিছিল জনস্রোতে রূপ নেয়। দুপুরের পর থেকে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ের নেতাকর্মী শ্লোগান নিয়ে মিছিলের মূলকেন্দ্র জেলা টাউন ফুটবল মাঠে আসতে শুরু করে। বিকেল ৪টার দিকে প্রতিবাদ মিছিলটি জনস্রোতে পরিণত হয়। পরবর্তীতে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক শেষে টাউন ফুটবল মাঠে এক বিক্ষোভ সমাবশে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলীর সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা যুবলীগের সদস্য সাজেদুল ইসলাম লাভলু, আবু বক্কর সিদ্দিক আরিফ, আলমগীর আজম খোকা। উপস্থিত ছিলেন আলুকদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা শান্তি, যুবলীগ নেতা আসমাউল, মনোয়ার মেম্বার, মোমিনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোমিন হোসেন, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি বিপ্লব হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জাণ্টু মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমন মেম্বার, শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা, কুতুবপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুম, গড়াইটুপি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি পলাশ, তিতুদহ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাশেদ, নেহালপুরর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর, সাধারণ সম্পাদক সামসুল, খাদিমপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কামাল, পুটু মাস্টার, জেহালা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান শিলন, সাধারণ সম্পাদক বকুল, নাগদাহ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, বারাদী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শরীফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সেতু, আলমডাঙ্গা পৌর যুবলীগের সভাপতি ডিটু, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর, ডাউকি ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা রকি, বেগমপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শামিম মিজি, গাংনী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা বজলুর রহমান, ইয়ামিন, হারদী যুবলীগের নেতা জাফর, দামুড়হুদা উপজেলার নতিপোতা যুবলীগ নেতা কাওছার, জাহাঙ্গীর মালেক, ফকির, চুয়াডাঙ্গা পৌর তিন নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রানা, সাধারণ সম্পাদক খানজাহান, ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠুন, ৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব, পিরু মিয়া, শেখ শাহী, মাসুদার রহমান মাসুম, ফটিট চাঁন, আল ইমরান শুভ, হাসানুল ইসলাম পলেন, রামীম হাসান সৈকত, শেখ রাসেল, দিপু বিশ্বাস, খালিদ ম-ল, লোকমান, জাকির, পাভেল, সজল, সুমন, বিপ্লব, হাসান, নাজমুল, সরব, লিপ্টন, জুয়েল, কবির, বিপুল, সাকিব, সৌরভ, তামিম, বাচ্চু, আলী, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ।

আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় গতকাল বুধবার আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। সমাবেশে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুছার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী  লীগের সহ-সভাপতি মাসুদ উজ জামান লিটু বিশ^াস, প্রশান্ত অধিকারী, বন ও পরিবেশ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী আলহাজ লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী খালেদুর রহমান অরুন, সাবেক প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ জকু, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুর রহমান পিন্টু, রাজাবুল ইসলাম মনা, পৌর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বিশ^জিৎ সাধুখাঁ, রিপন আলী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন, ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ পিন্টু, আশিকুজ্জামান অল্টু, মাহমুদুল হাসান চঞ্চল, তরিকুল ইসলাম, বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মাসুদ সালহীন উৎপল, জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মিজান। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান ফারুকের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক মহিদুল ইসলাম মহিদ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদকের মধ্যে জয়নাল আবেদীন, মোল্লা কামরুজ্জামান শামিম, আব্দুর রাজ্জাক, হাসানুজ্জামান হান্নান, আব্দুল হান্নান মাস্টার, মকবুল হোসেন, শহিদুল হক লাল্টু, আইনাল হক, হেলাল মাস্টার, রুবেল, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মালেক, সিরাজুল ইসলাম, মহসিন কামাল, পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লাকচু, মুসা, সাংস্কৃতি সম্পাদক আব্দুল লতিফ, কাউন্সিলর জহুরুল ইসলাম স্বপন, খন্দকার মজিবুল ইসলাম, আব্দুল গাফফার, মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী সাইদা ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, পৌর আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ডালিম রানী, জেলা পরিষদের সদস্য কাজল রেখা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোল্লা জাফর, রেজাউল, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল হক, সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা তপন, পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক নাহিদ হাসান তমাল, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক হাসানুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক পিন্টু, উপজেলা ছাত্রলীগের অর্থ সম্পাদক আলম হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা ইছানুর কবীর, রকি, সাকিব, অটল, টিটন, সজীব, অটল, শিহাব, রোমান, অভি, সৈকত, সাগর, যুবলীগ নেতা সৈকত খান, রঞ্জু, মশিউর, হৃদয়, পৌর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সম্পাদকের মধ্যে সোনাউল্লাহ, দ্বীনেশ, সিরাজুল, লাবলু, কালু ঘোষ, মিজান, দেলোয়ার, আক্তারুজ্জামান, দেলোয়ার মোল্লা, জাহাঙ্গীর, রেজাউল হক তবা, মাহবুবুর রহমান, শহিদুল মোল্লা, শাফায়েত প্রমুখ। পরে উপজেলা মঞ্চ থেকে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের নেতৃত্বে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্বাধীনতা স্তম্ভ মোড় ঘুরে শেষ হয়।

দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, দামুড়হুদায় গতকাল বুধবার বিকেলে এমপি হাজি আলী আজগার টগর এমপির নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলা স্টেডিয়াম মাঠ থেকে শুরু হয়ে দামুড়হুদা ব্রিজমোড় ঘুরে চৌরাস্তার মোড়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিল শেষে চৌরাস্তার মোড়ে প্রতিবাদ সামবেশ অনুষ্ঠিত হয়। দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মনজুর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি হাজি আলী আজগার টগর। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি শহিদুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, যুগ্ম-সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল হক ও দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবির ইউসুফ। দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলি মুনছুর বাবুর সঞ্চালনায় সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. আব্দুল কুদ্দুস, কার্পাসডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল করিম, নাটুদহ ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, দামুড়হুদা সদর ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী, কুড়–লগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাবিবুল্লাহ বাহার, সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, হাউলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজি আলী আহম্মদ সোনা, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ খোকন, নতিপোতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলী, সাধারণ সম্পাদক মোমিনুল হক, পাকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনতাজ আলী, সাধারণ সম্পাদক জিয়াবুল হক, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজির আহম্মদ, যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুস সালাম বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুর রহমান মুকুল, নাটুদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হামিদুল্লাহ বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, জুড়ানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. রেজাউল হক রেজা, সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব, উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. রফিকুল আলম রান্টু, সেলিম উদ্দীন বগা, শহীদ লতিফ মিল্টন, দামুড়হুদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগেরসহ-সভাপতি আব্দুল করিম মেম্বার, যুগ্ম-সম্পাদক মোমিনুল ইসলাম মনির, যুগ্ম-সম্পাদক নূর আলম লাভলু, দফতর সম্পাদক বখতিয়ার হোসেন বকুল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শমশের আলী, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান ছোট, যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুল মান্নান খাঁন, দর্শনা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসলাম আলী তোতা, উপজেলা যুবলীগের দফতর সম্পাদক রকিবুল হাসান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাজু আহম্মেদ রিংকু, হাউলী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আয়ুব আলী স্বপন, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেন, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান কচি, দামুড়হুদা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুল হালিম ভূট্টু, সাধারণ সম্পাদক সাহেব আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিশান তরফদার, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জামিরুল ইসলাম, দর্শনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ পারভেজ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহমান, ফাকের মাস্টার, জসিম উদ্দীন, ইমতিয়াজ হোসেন, শামসুল মেম্বার, মোজাফ্ফর হোসেন, সোবহান ম-ল, ইছা মেম্বার, আবুল কাশেম, যুবলীগ নেতা ফয়সাল, বড় শাহিন, ছোট ভুট্টু, ছাত্রলীগ নেতা রাকিব, সুমন মেম্বারসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ খালেকের নেতৃত্বে মেহেরপুর শহীদ ড. সামসুজ্জোহা নগর উদ্যান থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, সহ-সভাপতি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহীম শাহীন, পি.পি পল্লব ভট্টাচার্য, মেহেরপুর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি ইকবাল হোসেন বুলবুল, নবগঠিত শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান মতিন, বারাদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম মোমিন, বুড়িপোতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ জামান, আমদাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনারুল ইসলাম, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসেম আলী, মেহেরপুর শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আক্কাস আলী, মেহেরপুর মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য শামীম আারা হিরা, জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সরফরাজ হোসেন মৃদুল, বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম খোকন, গাংনী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশ প্রমুখ।

এদিকে ২০০৪ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে মেহেরপুর জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিন সন্ধ্যায় মেহেরপুর কমিউনিটি সেন্টার থেকে শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একইস্থানে ফিরে বিক্ষোভ মিছিলটি শেষ হয়। পরে সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে মেহেরপুর পৌরসভার মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম পেরেশান, মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মফিজুর রহমান, মেহেরপুর সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও দুই নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আল মামুন প্রমুখ। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা যুবলীগ নেতা ইয়ানুস আলী, মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবু মোর্শেদ শোভন সরকার প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে মেহেরপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন বলেন, বিএনপির হাতে হারিকেন ধরিয়ে দিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম এবং তারেক রহমান; শুধু বাঁশ দেয়াটা বাকি আছে।

মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মুজিবনগরের কেদারগঞ্জ বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কেদারগঞ্জ বাজার চত্বরে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম তোতার সভাপতিত্বে সমাবেশে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহসভাপতি মতিউর রহমান মতিনের সঞ্চলনায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দারিয়াপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাকিম হক খোকন, বাগোয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান মধু, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, মহাজনপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বল্টু, সাবেক উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক নাসির উদ্দীন বাবলু, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি জাহিদ হাসান রাজিব, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি তকলিমা খাতুন, সাধারণ সম্পাদিকা তহমিনা খাতুন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ সাকিব, মোনাখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি স্বপন গাজী, উপজেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা তাঁতীলীগের আহ্বায়ক আব্দুল খালেক প্রমুখ। শুরুতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম তোতার নেতৃত্বে কেদারগঞ্জ চার রাস্তার মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে বাজারের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More