বিদ্যালয়ে র‌্যাগিং বন্ধসহ শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে আন্তরিক হওয়া প্রয়োজন 

চুয়াডাঙ্গা জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিকসভায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান

স্টাফ রিপোর্টার: বিদ্যালয়ে র‌্যাগিং বন্ধসহ বিপথগামী কিশোরদের সঠিকপথে ফেরাতে শিক্ষক ও অভিভাবকদের বিশেষ উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেছেন, যে কোনো মূল্যে শিশু কিশোর শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষকম-লী আন্তরিক হয়ে বিদ্যালয়ে সৃজনশীল শিক্ষাদানের পাশাপাশি নীতি নৈতিকতার শিক্ষা দেয়ারও প্রয়োজন রয়েছে।

গতকাল রোববার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা শহরের সড়কগুলোর পাশের ফুটপাথ দোকানীদের মালামাল ও একাডেমী মোড়সহ কয়েকটি স্থানে ট্রাক ও বাস রাখা, ব্যাটারির মোটরচালিত পাখিভ্যানে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীবহন, শহরের প্রধান সড়কে সিসি ক্যামেরাগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন স্থাপনায় সিসি ক্যামেরা যথযথভাবে স্থাপন, শহরের কিছু স্থানে পতিতাবৃত্তি, মাদক, সড়ক নিরাপত্তা, আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নকলমুক্ত সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করা, আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপনসহ সার্বিক আইন-শৃঙ্খলার বিষয়ে বিষদে আলোচনা করা হয়। সভায় চুয়াডাঙ্গার নবাগত পুলিশ সুপার আব্দুল্লা আল মামুন, সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ডা. আওলিয়ার রহমানসহ সভায় উপস্থিত সদস্যদের প্রায় সকলেই মতামোত পোষণ করেন। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা উপ-পরিচালক মো. শরিয়তউল্লাহ চুয়াডাঙ্গায় গত এক মাসে অভিযানের বর্ণনা দিয়ে চুয়াডাঙ্গাকে মাদমুক্ত করার লক্ষে সকলের সার্বিক সহযোগিতার আহ্বান জানান। চুয়াডাঙ্গা বাস মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক মঈনুদ্দিন মুক্তা বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গায় অবৈধভাবে ঝুকি নিয়ে পাখিভ্যান ও লাটাহাম্বার চলার কারণে সড়ক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে বলে অভিমত ব্যক্ত করে অবৈধযান বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানান। সভায় চুয়াডাঙ্গা এমএ বারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেণির কয়েকজন ছাত্র ৯ম শ্রেণির একছাত্রকে নির্মমভাবে আঘাত করে আহত করার বিষয়টিও গুরুত্বের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের তাগিদ দেয়া হয়। সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মাহব্বুর রহমান এ বিষয়ে কয়েকজনকে গ্রেফতারসহ যেসব পদক্ষেপ  গ্রহণ করা হয়েছে তার বর্ণনা দেন। এক পর্যায়ে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে এমএ বারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেন সভার সভাপতি জেলা প্রশাসক। পুলিশ সুপার তার বক্তব্যে বলেন,  আমাদের সকলকে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে কর্তব্যপরায়ন হতে হবে। সম্মিলিত প্রচেষ্টা অবশ্যই প্রত্যাশিত ফল মিলবে। তিনি বলেন, শারদীয় দুর্গাপূর্জা উদযাপনে এবার চুয়াডাঙ্গায় ১২৩টি ম-প হয়েছে। এখন থেকেই পুলিশ নানাভাবে নজরদারি করছে। উৎসব শান্তিপূর্ণ ও আনন্দঘন পরিবেশে যাতে সম্পন্ন হয় সে লক্ষে যে যে পদক্ষেপ নেয়া দরকার চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ নিয়েছে। এরপরও সর্বস্তরের সর্ব সাধারণে সহযোগিতা প্রয়োজন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আরাফাত রহমানের উপস্থাপিতসভায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশে নকলমুক্তভাবে গ্রহণের গুরুত্বারোপ করে বলেন, আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা সুষ্ঠু পরিবেশে শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে যাতে সম্পন্ন হয় সে লক্ষ্যে সম্প্রীতির চুয়াডাঙ্গায় সকলে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আমরা আশা করি। বিদ্যালয়গুলোতে অবশ্যই দ্রুততম সময়ে অভিভাবকদের নিয়ে সভা করতে হবে। বখে যাওয়া শিক্ষার্থীকে লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করার দায়িত্ব আমাদের। আজকের শিক্ষার্থী আমাদের দেশের ভবিষ্যত। হবে না, হচ্ছে না বলে থেমে থাকার কোন কারণ নেই। পারতে হবে। সকল অভিভাবকই চান তার সন্তান মানুষের মত মানুষ হোক। বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ের উদ্দেশে বের হয়ে সে বিদ্যালয়ে আসছে নাকি বাইরে থেকে বিপথগামী হচ্ছে তা নিশ্চিত করতে শিক্ষকদের সাথে অভিভাবকদের যোগাযোগ বাড়াতে হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More