মাইক্রোবাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধর

চুয়াডাঙ্গায় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় ইউসুফ নবী (৮০) নামে এক পাখি ভ্যান ফৱআরোহী নিহত হয়েছেন। এ সময় পাখি ভ্যানে থাকা নিহতের স্ত্রী সহ ৪ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে সদর উপজেলার হিজলগাড়ি গ্রামের একটি ইট ভাটার সামনে এদূর্ঘটনা ঘটে।

নিহত বৃদ্ধ ইউসুফ নবী দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মসজিদপাড়ার মৃত রববুল হোসেনের ছেলে। আহতরা হলেন, নিহত বৃদ্ধ’র স্ত্রী মঞ্জুরা খাতুন (৬০), তার শালিকা ফাহিমা খাতুন (৪০) ও নাতনী হাজিরা খাতুন (৭) ও জনৈক পাখিভ্যান চালক (৪০)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে হিজলগাড়ি ইটভাটার সামনে একটি পাখিভ্যানকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয় মাইক্রোবাস। এতে পাখিভ্যানটি উলটে যাত্রীরা ছিটকে পাকা রাস্তার উপর পড়ে। এসময় স্থানীয়রা মাইক্রবাসটিকে আটক করে। পরে ওই মাইক্রোবাসে করে আহতদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে পৌছানোর পূর্বেই বৃদ্ধ ইউসুফ নবীর মৃত্যু হয়। নিহত ইউসুফ নবীর স্ত্রী মঞ্জুরা খাতুন বলেন, দুপুরে ঝিনাইদহ জেলার ডাকবাংলা গ্রামে আত্মীয় বাড়ি থেকে একটি পাখিভ্যানযোগে আমার স্বামীসহ চারজন নিজ বাড়ি ফিরছিলাম। পথিমধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হিজলগাড়ি ইটভাটার সামনে পৌছালে পিছন থেকে একটি মাইক্রোবাস পাখিভ্যানকে ধাক্কা দেই। এতে পাখিভ্যান উলটে আমরা সবাই রাস্তায় ছিটকে পড়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আমাদেরকে উদ্ধার করে ওই মাইক্রোবাসযোগেই হাসপাতালে পাঠায়। তিনি আরও বলেন, আমার স্বামী মারা গেলো। আমি বিধবা হয়ে গেলাম। আমার ছেলে-মেয়েরা বিয়ে করে অন্যত্র সংসার করছে।  দিনমজুরের কাজ করেই দিন এনে দিন খেতাম। আমার স্বামীকে হারিয়ে আমি কি নিয়ে থাকবো, কি খাবো বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিতসক ডা. ওয়াহেদ মাহমুদ রবিন বলেন, হাসপাতালে নেয়ার পূর্বেই বৃদ্ধ ইউসুফ নবীর মৃত্যু হয়। এছাড়াও আহতদের অবস্থা শঙ্কামুক্ত। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। এদিকে মাইক্রোবাসটি চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে আহতদেরকে নিয়ে আসলে হাসপাতালে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যরা মাইক্রোবাস ও চালক আবুল কাশেমকে হেফাজতে নেই। দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে হিজলগাড়ি সড়কে একটি পাখিভ্যানকে ধাক্কা দেয় মাইক্রোবাসটি। এতে পাখিভ্যানটি উলটে যাত্রীরা আহত হয়। স্থানীয়রা মাইক্রোবাসটিকে আটক ওই গাড়িতে করে আহদেরকে হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে যাওয়ার আগেই বৃদ্ধ ইউসুফ নবীর মৃত্যু হয়। তিনি আরও বলেন, সদর হাসপাতালে থাকা নিয়োজিত পুলিশ সদস্যরা মাইক্রোবাস ও চালক আবুল কাশেমকে আটক করে হেফাজতে নিয়েছে। এবিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো বলে জানান তিনি।

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More