মেহেরপুরে করোনায় আরও ৩৪জন আক্রান্ত : একজনের মৃত্যু

মেহেরপুর অফিস: করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মেহেরপুর জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মেহেরপুরে নতুন করে একজন রোগী মারা গেছেন। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ জন। আক্রান্তের হার শতকরা প্রায় সাড়ে ১৭ ভাগ। বর্তমানে করোনা পজেটিভ হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫৭৭ জন। প্রতিদিন মেহেরপুরে মৃত্যুর মিছিলে যোগ হচ্ছে নতুন নতুন মুখ। করোনা সংক্রমণে লম্বা হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। দিনে দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা কম হলেও মৃত্যুর হার না কমায় মেহেরপুরে সচেতন মানুষের মাঝে বাড়ছে উদ্বেগ আর উৎকন্ঠা। করোনা সংক্রমণ কমাতে মেহেরপুরের লকডাউন কঠোরভাবে পালনে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।
গত ২৪ ঘন্টায় মেহেরপুর জেলায় নতুন আক্রান্ত ৩৪ জনের মধ্যে মেহেরপুর সদর উপজেলায় ৪ জন, গাংনী উপজেলায় ২২ জন ও মুজিবনগর উপজেলায় ৮ জন রয়েছেন। এছাড়া এ পর্যন্ত শুধু করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন ১৩৭ জন। গত শনিবার রাতে সিভিল সার্জন ডা. মো. নাসির উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মেহেরপুর সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে আরো জানা যায়, কুষ্টিয়া ল্যাব থেকে ১৯৩টি (পিসিয়ার ল্যাবে-৫৩, এন্টিজেন- ১৪৪ ও জিন এক্সপার্ট-০) নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৩৪ জন করোনা রোগী চিহ্নিত হয়েছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন মোট ৫৭৭ জন করোনা রোগীর মধ্যে সদর উপজেলার বাসিন্দা ১৮৭ জন, গাংনী উপজেলার বাসিন্দা ২৯৪ জন ও মুজিবনগর উপজেলার বাসিন্দা ৯৬ জন রয়েছেন। এছাড়া ট্রান্সফার হয়েছেন ১২০ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলার ৭৭ জন, গাংনী উপজেলার ১৮ জন ও মুজিবনগর উপজেলার ২৫ জন রয়েছেন। এছাড়া এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩ হাজার ৭২ জন। যার মধ্যে সদর উপজেলায় এক হাজার ৪৭৭ জন, গাংনী উপজেলায় এক হাজার ১৭৭ জন ও মুজিবনগর উপজেলায় রয়েছেন ৪২০ জন রয়েছেন। মারা যাওয়া ১৩৭ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৬১ জন, গাংনী উপজেলায় ৪৬ জন ও মুজিবনগর উপজেলায় ৩০ জন রয়েছেন।
এদিকে সরকার ঘোষিত ৯ম দিনের চলমান কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে মেহেরপুর জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকার মাঠে রয়েছে সেনাবাহিনী। গতকাল শনিবার সকাল থেকে এলাকার বিভিন্ন জায়গায় সেনাবাহিনীর পাশাপাশি পুলিশ সদস্যদের টহল দিতে দেখা যায়।
সেনাবাহিনীর সদস্যরা টহলের পাশাপাশি জনসচেতনতামূলক প্রচারণা করেন। শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিনা প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে আসতে নিষেধ করা হচ্ছে। তাছাড়া জরুরী কেনাকাটা করতে আসা জনগণকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে উদ্বুদ্ধ করাসহ দ্রুত প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করে বাড়িতে ফিরে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানান।
এদিন দেখা যায়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যশোর সেনানিবাসের ২৭ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারির ক্যাপ্টেন নাহিয়ান ইমতিয়াজের নেতৃত্বে লকডাউন কার্যকর করতে মাঠে কাজ করছে। এ সময় কোভিট- ১৯ মোকাবেলায় সরকারি নির্দেশনা মানতে সতর্কতামূলক প্রচারণা চালানো হয়। জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হতে হলে মাস্ক পরে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে আহ্বান জানান সেনা সদস্যরা।
এদিকে ‘মাস্ক ব্যবহার অভ্যেস, করোনামুক্ত বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কোভিড-১৯ মহামারী প্রতিরোধে সাধারণ মানুষের মধ্যে শতভাগ মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতকরণে সচেতনাতামূলক প্রচারণা ও জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেছে মেহেরপুর পুলিশ।
গতকাল শনিবার মেহেরপুর পুলিশের একটি দল মেহেরপুর শহরের হোটেল বাজার মোড় এবং পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালান। অযথা ঘরের বাইরে বের না হওয়ার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়। একইসাথে সকলকে মাস্ক ব্যবহার করার জন্য আহ্বান জানানো হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More