যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার শপথ

মেহেরপুরে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালিত হলেও চুয়াডাঙ্গার পৃথক শোভাযাত্রায় পুলিশি বাধা

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরসহ সারাদেশে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিলো সকালে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শোভাযাত্রা ও আলোচনাসভা। চুয়াডাঙ্গায় পৃথক দুটি স্থানে কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। মেহেরপুরের কর্মসূচিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালিত হলেও চুয়াডাঙ্গার পৃথক দুটি শোভাযাত্রা পুলিশি বাধায় পড়ে। পরে আলোচনসভার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে অনুষ্ঠান।

গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার শপথ নিয়ে নেতাকর্মীরা বলেন, ঘরে বসে থাকার সময় নেই, স্বৈরাচার সরকার পতন ঘটাতে সবাইকে রাজপথে নামতে হবে। বক্তারা বলেন, বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল ও এর অঙ্গসংগঠনকে নিশ্চিহ্ন করতে বর্তমান সরকার যে ষড়যন্ত্র করছে যুবদল থাকতে তা কোনো দিন সফল হবে না। গণআন্দোলনের মাধ্যমে যে কোনো মূল্যে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াসহ সকল নেতাকর্মীকে মুক্ত করা হবে। বক্তারা বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এখনও মুক্ত নন। তার মুক্তির আন্দোলন, গণতন্ত্র, ভোটের অধিকার, কথা বলার স্বাধীনতা ফিরিয়ে আনতে যুবদলের প্রতিটা সদস্যকে শপথ নিতে হবে। আগামী দিনের সরকার পতন আন্দোলনে সবাইকে রাজপথে নামার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। বর্তমান সরকারকে সন্ত্রাস, ধর্ষণ ও দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে তাদের পতন আন্দোলনে যুবদলকে মূল ভূমিকা রাখতে আহ্বান করেন বক্তারা। বক্তারা আরও বলেন, স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে যুবদল রাজপথে রয়েছে। দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যেকোনো আন্দোলনে প্রস্তুত রয়েছে নেতাকর্মীরা। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করা হবে। বক্তারা বলেন, সারাদেশে ধর্ষকদের রামরাজত্ব চললেও তাদের লাগাম টেনে ধরতে সরকার ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। আজ নারীরা ঘরে বাইরে কোথাও নিরাপদ নেই। চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটছে তাদের। ধর্ষণরোধে জনগণকে সাথে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান যুবদলের নেতাকর্মীদের প্রতি।

চুয়াডাঙ্গায় শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদল বর্ণিলভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে। সকাল ১০টায় যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়। বেলা ১১টার ঘটিকার সময় শিল্পকলা একাডেমির সামনে থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে শহীদ হাসান চত্বরের অভিমুখে পৌঁছুলে পুলিশের বাধায় পড়ে। পরে শোভাযাত্রাটি শিল্পকলা একাডেমিতে ফিরে আলোচনাসভা সভাস্থলে মিলিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা যুবদলের সভাপতি শরীফ উর জামান সিজার। সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রশিদ ঝন্টুর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাড. ওয়াহেদুজ্জামান বুলা। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আব্দুর জব্বার সোনা। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মুজিবুল হক মালিক মজু, জেলা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফ বিশ্বাস মিল্টু। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য আব্দুল খালেক, সোহেল আহম্মেদ মালিক সুজন, দেলোয়ার হোসেন দিনু, আবুল কালাম আজাদ, শহিদ হোসেন লাড্ডু, আনিসুজ্জামান আনিস, নাসির উদ্দিন খেদু, মাগরিবুর রহমান, আরিফ জাহাঙ্গীর রাজা, আরিফুজ্জামান পিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজি রবিউল হক মল্লিক, বকুল হোসেন বকুল, মিজানুর রহমান লাভলু, অপূর্ব কুমার সাহা, সহ-সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম রেজা, আরিফ হোসেন আরিফ, হোসেন মোহাম্মদ আমির, পিনু মুন্সি, সাইফুল ইসলাম সুমন, মোমিনুর রহমান মোমিন, আসান শেখ, মাহবুব হোসেন, আবদার হোসেন রাজু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন আলী, কোষাধ্যক্ষ মোমিনুর রহমান মোমিন, সহ-কোষাধ্যক্ষ অমিত হাসান মালিক, প্রচার সম্পাদক ইমরান হোসেন উজ্জ্বল, দফতর সম্পাদক মামুন উর রশিদ টনিক, সহ-দফতর সম্পাদক হাসান বিশ্বাস আশা, সাইদুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক এমএ তালহা, সিনিয়র সহ-সভাপতি শরিফুর ইসলাম বিলাস, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহাজান খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি তৌফিক এলাহী, সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান হাবিব মামুন, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আহ্বায়ক রাহাত হাসান মালিক রাজীব, সদস্য সচিব সাজিদুর রহমান মিলন, চুয়াডাঙ্গা পৌর যুবদলের আহ্বায়ক বিপুল হাসান হ্যাজী, সদস্য সচিব আজিজুল হক, দামুড়হুদা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক এইচ এম মাহাবুবুর রহমান বাচ্চু, সদস্য সচিব মাহফুজুর রহমান মিল্টন, দর্শনা পৌর যুবদলের আহ্বায়ক ফারুক হোসেন, সদস্য সচিব জালাল উদ্দিন জালাল, জীবননগর উপজেলা যুবদলের ময়েন উদ্দিন মঈন চেয়ারম্যান, জীবননগর পৌর যুবদলের আহ্বায়ক হযরত কমিশনার, আলমডাঙ্গা পৌর যুবদলের আহ্বায়ক নাজিম মোল্লা, সাহিত্য প্রকাশনা মজিবর রহমান মজু, সহ-সাহিত্য ও প্রকাশনা আশাদুজ্জামান টিটু, আরিফুল ইসলাম আপু, আইন বিষয়ক সম্পাদক শাহিন আক্তার, সহ-আইন সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাত ফিরোজ, ক্রীড়া সম্পাদক আহনাফ সাহারিয়া সনি, সহ-ক্রীড়া সম্পাদক জাহিন শেখ, মোমিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আলাউদ্দিন মিন্টু, যোগাযোগ সম্পাদক হুমাইন কবির শান্ত, সহ-সমাজ কল্যাণ সম্পাদক রুপম আজাদ টারজান, সহ-সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সাজ্জাতুল ইসলাম সাজ্জাত, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাও. আব্দুর রহমান আজাদ, সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হারুন উর রশিদ, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক রায়হান হোসেন রাজন, সহ-শিল্প বিষয়ক সম্পাদক আরুক আহম্মেদ, সহ-পল্লী উন্নয়ন সমবায় সম্পাদক আবু সাঈদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান রানা, সহ-বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সুমন, সহ-ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান খান, কামরুজ্জামান, সহ-গ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক রাজু আহমেদ, মৎস ও পশু পালন বিষয়ক সম্পাদক সোহেল রানা টুটুল, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আহসান হাবিব সুইট, কর্ম সংস্থা বিষয়ক সম্পাদক অপু সুলতান, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার যুগ্ম-আহ্বায়ক হাসমত আলী, আশরাফ উদ্দিন রুবেল, মোস্তফা আহসাব রকি, চুয়াডাঙ্গা পৌর যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মিলন আলী লিমন, সোলাইমান হক, বাচ্চু, লালন সরদার, সাইফুল ইসলাম জনি, আরাফাত আমির অপু, দামুড়হুদা উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল রানা, তাজ আলম সাহা, দর্শনা পৌর যুবদলের আহ্বায়ক জালাল উদ্দিন লিটন, সরোয়ার হোসেন, জাহান আলী, অপু সুলতান, মিল্টন, নাসির উদ্দিন খান হাসু, জীবননগর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আলতাব হোসেন, সাইফুল ইসলাম, সাইদুর রহমান রানা, জীবননগর পৌর যুবদলের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন, মিঠু, আলমডাঙ্গা উপজেলা যুবদল নেতা শফিকুল আজম ডালিম, রহিত, আলমডাঙ্গা পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল কাদের, আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফারুক হোসেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদলের সদস্য বাদশা কাঠাল, এমদাদুল হক এমদাদ, সজীব, সুলতান, শিপন, শিবলু, ইখলাস, আব্দুল ওহাব, আব্বাস আলী, বিল্পব হোসেন বিল্পব, সরোয়ার হোসেন, আব্দুর রশিদ মনজু, শামসুজ্জোহা পলাশ, ওসমান পাকা, শাহাবুদ্দিন, টুটুল শাহা, সালমান হক উজ্জল, ইমতাজুল হক ইমতা, মিজানুর রহমান মিজান, ইসতিয়াক আহমেদ রবিন, আব্দুস সালাম মেম্বার, ফিরোজ আলম, সুন্নত আলী, সমিউল আলিম রকি, আকুল, মিতুল, আবু জিহাদ, সমসের আলী, মিজানুর রহমান মিজান, যুবনেতা মেহবুব হোসেন, চিনির উদ্দিন, ওমর ফারুক সুমন, রানা, লিটন, ইউসুফ আলী, সোহেব, সোহাগ, আলী কদর, রিপন, শহিদুল, শুকুর, বিদ্যুৎ, জুয়েল, জনি, চান্দু, রাশিদুল, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা যুবদলের সদস্য শেখ শাহাবাত সুজন, মানোয়ার, আব্দুল মতিন খোকন, আব্দুল আলিম, শরিফুজ্জামান শামীম রেজা, মওলা, আশারাফুল, আনোয়ার, সেলু বিশ্বাস, শাহাজাহান, মোজাম্মেল, আব্দুস সাত্তার, আসাদুল্লাহ, মনিরুল ইসলাম, অনিক, জাহাঙ্গীর হোসেন, মতিয়ার, হামিদুল চুয়াডাঙ্গা পৌর যুবদলের সদস্য মামুন মল্লিক, হান্নান, লাল্টু, মো. বকুল, শামীম, সুমন রশিদ, মনিরুজ্জামান মিন্টু, সুমন, ফরহাদ, বাপ্পি, মালেক, রিংকন, রিয়াদ, রাকিব হাসান, হৃদয়, লিপু, সিরাজুল ইসলাম, স্বপন, আলামিন, সাব্বির, আলমডাঙ্গা পৌর যুবদলের সদস্য মিসকাত, সাজিদুল, নজরুল, লিনি, চান্দু, সাকির, শাজাহান, জনি, রফিকুল, মিলন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবদলের সদস্য আমিনুল ইসলাম রশিদ, এজাজুল হক, মোমিন, লিটন বিশ্বাস, আরিফুল ইসলাম টুটুল, ইমান আলী, আশরাফুল হক, সুমন, ইমতিয়াজ, জাহিদ, আসাদ, কোকো, মিয়া, হাসান, মনি, জানু, দর্শনা পৌর যুবদলের সদস্য সোহেল তরফদার, হাসু, ব্রাইট, আব্দুল মান্নান, সাত্তার, মাহবুল হোসেন, মোহন, তরিকুল, সুলতান, ওসমান, রশিদ, আরিফ, বিদ্যুৎ, হৃদয়, জীবননগর উপজেলা যুবদলের সদস্য কাশেম, জিয়া মেম্বার, নাজমুল, ফিরোজ আলম, জাহাঙ্গীর, রবগুল, মোমিন, এনামুল, সুমন, মন্টু, রফিউল আলম, জীবননগর পৌর যুবদলের সদস্য বকুল, ইয়াদুল, সামাউল, আক্তার হোসেন, বাসের, বল্টু, হাকিম, শহিদ।

চুয়াডাঙ্গায় গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদল চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ চত্বরে র‌্যালি ও আলোচনাসভার আয়োজন করে। এর আগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এর ঠিক পরেই চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ চত্বর থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করতে গেলে পুলিশি বাধার মুখে পড়েন নেতাকর্মীরা। পুলিশের বাধায় শোভাযাত্রাটি বের করতে না পারায় সাহিত্য পরিষদ চত্বরেই এক আলোচনাসভা হয়। সভাপতিত্ব করেন জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক চিৎলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বিপ্লব। প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অন্যতম সদস্য শরীফুজ্জামান শরীফ। চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহেদ মো. রাজিব খানের পরিচালনায় আলোচনাসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল জব্বার, চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও পৌর কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম মনি, আবু বক্কর সিদ্দিক আবু, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও মহিলা দলের নেত্রী জাহানারা বেগম, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ হাসান পল্টু, সদর থানা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম নজু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিকুল ইসলাম পিটু, পৌর বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জেলা জাসাসের সাধারণ সম্পাদক সেলিমুল হাবিব সেলিম, আলমডাঙ্গা পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান আনিস, আলমডাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও জেহেলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল হক রোকন, জেলা বিএনপির সাবেক তথ্য বিষয়ক সম্পাদক ও বাড়াদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তবারক হোসেন, পৌর বিএনপির সাবেক দফতর সম্পাদক ইয়াছিন হাসান কাকন, জেলা যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন, জেলা যুবদলের সাবেক নেতা মনিরুজ্জামান লিপটন, আলুকদিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, খাদিমপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি শেরেগুল ইসলাম বিশ্বাস, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম সোহেল, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক হাফিজ উদ্দিন হাবলু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোখলেছুর রহমান মুকুল, জেলা যুবদলের সদস্য মহিবুল রহমান মাহাবুব, শমসেরের আলী সমে, খাইরুল আলম, রফিকুল ইসলাম, ইমরান মহলদার রিন্টু, আলমডাঙ্গা হাফিজুল রহমান হ্যাপি, পৌর যুবদলের সদস্য সচিব কনক, রোকনুজ্জামান সোহাগ, জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বাবু, হাসান মালিক, সুমন, সাইফুল মেম্বার, আমির মেম্বার, মশিউর রহমান, হামিদ উদ্দিন হামিদ, হাসান কাজী, হাসিবুল, শাফায়েত, শামীম, আব্দুল রহিম, মহাসিন, হাবিবুর রহমান রাজিব, তুহিন ইসলাম, মিঠু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি সরাজ, শামসুল হক ঝন্টু, প্রচার সম্পাদক মাবুদ সরকার, রনি আলম, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক আমানুল্লাহ আমান, আরিফ আহমেদ শিপলব।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, যুবদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষির্কী উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা যুবদলের উদ্যোগে ‘যুব ও নির্যাতিত জনতার শৃঙ্খলমুক্তির অঙ্গীকার, রুখবে এবার স্বৈরাচার’ এ সেøাগানে যুব-জনতার সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জেলা বিএনপির কার্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা যুবদলের সভাপতি জাহিদুল হক জাহিদ। জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক কাওছার আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মাসুদ অরুণ। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান, শেখ সাঈদ আহমেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস প্রমুখ। জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জুলফিকার আলী ভুট্টো (গাংনী), সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ (মুজিবনগর), জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুর রহিম, আব্দুল আওয়াল, আরজুল্লাহ মাস্টার বাবলু, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুদ্দিন বিশ্বাস, সদর উপজেলা সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু, গাংনী পৌল বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ইনসারুল হক ইনসু, সাংগঠনিক সম্পাদক সাহাবুদ্দিন মোল্লা, বিএনপি নেতা সামসুল আলম, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক আবু সুফিয়ান হাবু, সদও উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক লিয়াকত আলী, সদস্য সচিব কামরুজ্জামান বিপ্লব, মুজিবনগর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক হাসান আলী, সদস্য সচিব আনোয়ারুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আব্দুল মালেক চপল, সদস্য সচিব জাহিদুল ইসলাম, গাংনী পৌর যুবদলের আহ্বায়ক সাইদুর কমিশনার ও সদস্য সচিব এনামুল কমিশনার প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক তোফায়েল আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মিন্টুসহ এ সময় সমাবেশে জেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More