শেখ হাসিনা সরকারে থাকলে কৃষি আর কৃষক ভালো থাকে 

গাংনীতে কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন

ভোটে সভাপতি নির্বাচিত আতিয়ার : বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সম্পাদক পলাশ 

গাংনী প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী থাকা মানেই এদেশের কৃষি ও কৃষক ভালো থাকে বলে মন্তব্য করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে গাংনী উপজেলা কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন তিনি। গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় তিনি বলেন, এদেশের বেশিরভাগ মানুষ কৃষির সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত। কৃষি উৎপাদন আমাদের দেশের প্রাণশক্তি। এ কথা মাথায় রেখেই আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা কৃষির উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগ আমলে সার তেলের জন্য প্রাণ দিতে হয় না উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রতি বছর কৃষিতে ভর্তুকির পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সার, ডিজেল ও কৃষি যন্ত্রপাতি কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সরকারের বিরাট চেষ্টা রয়েছে। কৃষি ও কৃষকদের ভালো রাখতে যা যা করণীয় তাই করতে শেখ হাসিনার কড়া নির্দেশনা রয়েছে। সরকারি নানামুখী বাস্তব পদক্ষেপের ফলে আমাদের কৃষি এগিয়ে যাচ্ছে। অদূর ভর্বিষ্যতে আরও এগিয়ে যাবে। তাই যারা কৃষকলীগ করেন তারা কৃষি ও কৃষকদের জন্য আরও নিবেদিত প্রাণ হয়ে কাজ করবেন এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা কৃষক লীগের বিদায়ী সভাপতি মোশারফ হোসেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ খালেক, সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, গাংনী পৌর মেয়র আহম্মেদ আলী। প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও মেহেরপুর জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখন।

সম্মেলন সম্পন্ন করতে কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে প্রতিনিধিত্ব করেন কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মাহবুবুল আলম শান্তি, বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ আশরাফ, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল ইসলাম পানু, বেসরকারি সংস্থা বিষয়ক সম্পাদক মিরুল ইসলাম, কৃষি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফ হোসেন স্বপন, কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক শাহিনুর রহমান, সহ প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম বাদশা।

দ্বিতীয় পর্বে উপজেলা কৃষক লীগের নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে আলোচনা করা হয়। এতে ভোটের মাধ্যমে সভাপতি নির্বাচিত হন আতিয়ার রহমান। গত কমিটিতে তিনি সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। অপরদিকে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় মশিউর রহমান পলাশ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

সভাপতি পদে চারজন প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। এরা হলেন বিদায়ী সভাপতি মোশারফ হোসেন, উপজেলা কৃষক লীগের আগের কমিটির সাধারণ সম্পাদক আতিয়ার রহমান, কৃষকলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম ও রিয়াজ উদ্দীন। মোট ২৯১ জন কাউন্সিলর ছিলেন। বেশিরভাগ কাউন্সিলর তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১৫৫ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন আতিয়ার রহমান। ভোট গণনা শেষে রাত এগারটার দিকে ফলাফল ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

গাংনী উপজেলা কৃষক লীগের কমিটিতে মোট সদস্য থাকবে ৭১ জন। এর মধ্যে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের নির্বাচন সম্পন্ন। ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির বাকি সদস্য নির্বাচন করে দ্রুত পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More