শোককে শক্তিতে পরিণত করে আরো তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান

ভোলায় পুলিশে গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা নিহতের ঘটনায় সারাদেশে বিএনপির গায়েবানা জানাজা

স্টাফ রিপোর্টার: ভোলায় পুলিশে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা রহিম হোসেনের স্মরণে কালো ব্যাজ ধারণ ও গায়েবানা জানাজা কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে বিএনপি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া চুয়াডাঙ্গায় ছাত্রদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পৃথক কর্মসূচি পুলিশি বাধায় পড়ে। পরে নেতাকর্মীরা সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে শোককে শক্তিতে পরিণত করে আরো তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার কথা জানিয়েছে বক্তারা বলেন, বিদ্যুতের দাবিতে কর্মসূচি ছিলো শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ। বিএনপির এ শান্তিপূর্ণ সমাবেশে ফ্যাঁসিবাদি সরকারের পুলিশ দিয়ে গুলিবর্ষণ করেছে। গুলি করে বিএনপি নেতা কর্মীদের হত্যা করে আমাদের আন্দোলনকে দমন করতে চায়। এটা প্রমাণিত হয়েছে এ দেশের মানুষ এই ফ্যাঁসিবাদি সরকারের দমননীতিকে ভয় করে না। দেশ ও গণতন্ত্র রক্ষার জন্য জীবন দিয়ে হলেও দেশ রক্ষা করবে বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারা বলেন, আব্দুর রহিমের রক্ত বৃথা যাবে না। এ শোককে শক্তিতে রুপান্তরিত করে দেশ ও গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনকে আরও বেগবান করা হবে।
ভোলায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে নিহত স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আবদুর রহিমের গায়েবানা জানাজা চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপি উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ চত্বরে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার আগে নেতাকর্মীরা কালোব্যাজ ধারণ করেন। জানাজার শুরুতে শহীদ আব্দুর রহিমের স্মরণে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন চুয়াডাঙ্গা পৌর বিএনপির সভাপতি মো. সিরাজুল ইসলাম মনি ও সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য মো. আবু বক্কর সিদ্দিক আবু, মির্জা ফরিদুল ইসলাম শিপলু, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান লিপ্টন, জেলা বিএনপির সদস্য নুর নবী সামদানী, সদর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্মসম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহাবুল হক, পৌর বিএনপির সিনিয়র যুগ্মসম্পাদক হাফিজুর রহমান মুক্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল আহমেদ মালিক সুজন, জেলা মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক বকুল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সফিকুল ইসলাম পিটু, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রশীদ ঝন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজীব খান, জেলা কৃষক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফ হোসেন জোয়ার্দ্দার সোনা, জেলা জাসাসের সাধারণ সম্পাদক সেলিমুল হাবিব সেলিম, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোমিন মালিতা প্রমুখ। জানাজা পরিচালনা করেন জেলা ওলামা দলের সদস্য সচিব মাও মো. আনোয়ার হোসেন।
এদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে। বিকেলে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সামনে থেকে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাজাহান খাঁনের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি চুয়াডাঙ্গা কোর্ট মোড়ে পৌঁছুলে পুলিশি বাধা পড়ে পুনরায় প্রেসক্লাবের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাজাহান খাঁনের সভাপতিত্বে সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান হাবিব মামুনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, সহ-সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহাম্মেদ, শেখ শাহাবাজ সুজন, আরিফ আহাম্মেদ, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক কায়েস আহমেদ, আরিফ আহাম্মেদ, রায়হান, যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক সৌরভ আরেফিন শাওন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক একরামুল হক ইকরা, সমাজসেবা সম্পাদক আব্দুল লতিফ, আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক শুকুর আলী, দর্শনা থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক নাফিউল ইবনে লিমন, চুয়াডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মআহবায়ক ওয়ালিদ হাসান, সরকারি কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মআহবায়ক রুবেল হোসেন, সদর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহবায়ক আল বেলাল, আলমডাঙ্গা উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহবায়ক মাহাবুব হাসান মাবুদ, ছাত্রদল নেতা জাহিদ, আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রনেতা সবুজ, সাগর, দর্শনা পৌর ছাত্রদলের যুগ্মআহবায়ক রানা, ছাত্রদল নেতা সাইদুর, কামাল, নাশিরুল, আলামিন, পারভেজ, শিহাব হসেন, হাবিব, সজীব, রিয়াদ, রাজু, ইমন, নাটুদাহ ইউনিয়ন ছাত্রনেতা পলাশ, শিশির, রাব্বি প্রমুখ।
অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোমিন মালিতার নেতৃত্বে¡ একটি বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করেন। সাহিত্য পরিষদ চত্বর থেকে বের হলে পুলিশি বাধায় তা প- হয়ে যায়। পরে সাহিত্য পরিষদের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়। জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোমিন মালিতা। জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মসাধারণ সম্পাদক জুয়েল মাহমুদের উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির আকাশ, সাহাবুদ্দিন আহমেদ বুদ্দীন, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান, আরিফ আহমেদ শিপ্লব, সাইমুম আহমেদ ইকবাল, জমির উদ্দিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক স্বাধীন শেখ, রাশিদুল ইসলাম, সহ-বৃত্তি ও ছাত্রকল্যাণ সম্পাদক মো. রফিক হোসেন, চুয়াডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক কৌশিক আহমেদ রানা, সদস্য সচিব মাজেদুল আলম মেহেদী, সদর উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব মাহবুবুর রহমান, সরকারি কলেজ ছাত্রদলের সদস্য সচিব সাইমুম আরাফাত, সদর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক আমির সোহেল, কলেজ ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক রকিবুল হাসান, পৌর ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম সৌরভ ও জেলা ছাত্রদলের সদস্য মো. রিমন।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, ভোলায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে নিহত স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আবদুর রহিমের গায়েবানা জানাজা মেহেরপুর জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনের সড়কে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১টার দিকে এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় বিএনপি, অংগ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন। তারা নিহত আব্দুর রহিমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন। জানাজা পরিচালনা করেন মেহেরপুর জেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম।
জানাজায় অংশ নেন, মেহেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি মাসুদ অরুন, জেলা বিএনপির সহসভাপতি জাভেদ মাসুদ মিল্টন, ইলিয়াছ হোসেন, আব্দুর রহমান, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক জুলফিকার আলী ভূট্টো, সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও আমঝুপি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, মেহেরপুর পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক সেন্টুসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More