সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ বন্ধুকে পাশাপাশি দাফন

স্বপ্নের পদ্মা সেতু ভ্রমণ শেষে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিন বন্ধুর জানাজা শেষে নড়াইল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে পাশাপাশি চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় তাদের প্রিয় শিক্ষাঙ্গন নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একই সঙ্গে তিন বন্ধু তুর্য, রাউফুর ও সানের জানাজা সম্পন্ন হয়। এরপর নড়াইল পৌর কবরস্থানে তিন বন্ধুকে পাশাপাশি সমাহিত করা হয়। জানাজার নামাজ পড়ান নড়াইল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ঈমাম মাওলানা শফিউল্লাহ। জানাজায় নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজাসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নড়াইল-ভাটিয়াপাড়া-মাওয়া সড়কের ফরিদপুরের নগরকান্দার জয়বাংলা মোড় এলাকায় মাইক্রোবাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ওই তিন বন্ধু নিহত হন। নিহতরা হলেন- নড়াইল শহরের বাসিন্দা লোহাগড়া উপজেলার লাহুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জিএম নজরুল জমাদ্দারের ছেলে ও যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি মো. শাহীদুল ইসলাম শাহীর ভাইপো তুর্য (২২), মহিষখোলার বাসিন্দা গাজী আমিনুর রহমানের ছেলে রাউফুর রহিম (২২) ও আলাদতপুর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মান্নানের ছেলে সান (২৩)।
জানা যায়, সোমবার দুপুরের দিকে নড়াইল থেকে মোটরসাইকেলে পদ্মা সেতু দেখতে যান তিন বন্ধু। পদ্মা সেতু দেখে নড়াইলে ফেরার পথে সন্ধ্যায় নগরকান্দার জয়বাংলা মোড় এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে দ্রুতগতিতে আসা একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে তাদের মোটরসাইকেলটির ধাক্কা লাগে। এ সময় তুর্য ও রাউফুর রহিম ঘটনাস্থলে মারা যান। স্থানীয়রা গুরুতর জখম সানকে উদ্ধার করে প্রথমে মোকসেদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে গোপালগঞ্জ পৌঁছলে অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে সান মারা যান।
মঙ্গলবার সকাল ১০টায় তাদের প্রিয় শিক্ষাঙ্গন নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একই সঙ্গে তিনজনের জানাজা সম্পন্ন হয়। জানাজা শেষে নড়াইল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে পাশাপাশি চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More