হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে শপথ নিলেন জীবননগরের ড. হাফিজুল আলম

জীবননগর ব্যুরো: বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত বিচারপতি ড. কে. এম হাফিজুল আলম সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি হিসেবে স্থায়ী নিয়োগ লাভ করেছেন। রাষ্ট্রপতি প্রধান বিচারপতির সাথে পরামর্শক্রমে শুক্রবার ১৮ জন বিচারপতির সাথে তাকে এ পথে স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন। এ দিনই তিনি প্রধান বিচারপতির নিকট হতে বিচারপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। বিচারপতি ড. কে. এম হাফিজুল আলম চুয়াডাঙ্গা জেলার কৃতি সন্তান। তিনি জীবননগর উপজেলার খয়েরহুদা গ্রামের মৃত ডা. কে, এম আমির হোসেনের সেজ ছেলে।

ড. কে. এম হাফিজুল আলম ২০১৮ সালে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগে অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। গত ২ বছর যাবৎ তিনি দক্ষতার সাথে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন। শুক্রবার তিনি স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। আইন ও বিচার বিভাগের সচিব গোলাম সারওয়ার ২৯ এপ্রিল স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে ড. কে. এম হাফিজুর আলমের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। বিচারপতি ড. কে. এম হাফিজুল আলম ১৯৮৯ সালে জীবননগর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় হতে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাস করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয় হতে আইন বিভাগের ওপর অনার্স ও মাস্টার্সসহ পিএইচডি করে তিনি সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগে আইনজীবী হিসেবে আইন পেশা শুরু করেন। ২০১৮ সালে তিনি সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগে অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক। স্ত্রী মৌলি মোর্শেদ মৌও পেশায় একজন আইনজীবী। তিনি সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টে বিভাগে আইন ব্যবসা পরিচালনা করেন।

এদিকে ড. কে. এম হাফিজুল আলম সুপ্রিমকোর্ট হাইকোর্ট বিভাগে স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করায় জীবননগর প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More