কুষ্টিয়া চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহে করোনা শনাক্ত হলেও মেহেরপুরে নতুন নমুনা পরীক্ষার সবই নেগেটিভ:

স্টাফ রিপোর্টার: মেহেরপুরে নতুন করে যে ক’জনের নমুমা প্রেরণ করা হয়েছে তার মধ্যে যে ক’জনের রিপোর্ট পাওয়া গেছে এদের কারোর রিপোর্টই পজিটিভ নয়। এদিকে চুয়াডাঙ্গায় সোমবার সর্বশেষ প্রাপ্ত রিপোর্ট অনুযায়ী নতুন করে ৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। কুষ্টিয়া সোমবার নতুন ১৮ জনের করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ভেড়ামারা পৌর মেয়রও রয়েছেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের ওয়েবসাইটে গ্রিনজোন হিসেবে ঘোষিত হওয়ার একদিন পর ঝিনাইদহে নতুন করে আরও ৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।
কুষ্টিয়ায় এক দিনে সর্বোচ্চ ১৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে জেলার ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র শামীমুল ইসলাম রয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, জেলায় গত পাঁচ দিনে ৫০ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত জেলায় কোনো করোনা রোগী মারা যাননি। সবাই সুস্থ হয়ে যাচ্ছেন।জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, করোনায় নতুন আক্রান্ত ১৮ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার নয়জন, দৌলতপুরে তিনজন, ভেড়ামারায় দুজন, মিরপুরে একজন ও খোকসার তিনজন রয়েছেন।করোনায় আক্রান্ত ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র শামীমুল ইসলাম বলেন, ‘শরীরে করোনার কোনো উপসর্গ নেই। সুস্থ আছি। করোনাকালের প্রথম দিন থেকেই মুখে মাস্ক, হাতে গ্লাভস ও প্রয়োজন অনুযায়ী পিপিই পরে মাঠে কাজ করে যাচ্ছিলাম। কীভাবে আক্রান্ত হলাম বুঝতে পারছি না। বাড়িতেই চিকিৎসকদের পরামর্শে আইসোলেশনে আছি। সবাই দোয়া করবেন।’করোনা ভাইরাসে মেহেরপুরে আরো ১৫ টি রিপোর্ট এসেছে যার সবগুলো নেগেটিভ । সোমবার রাতে মেহেরপুর সিভিল সার্জন অফিসে এ রিপোর্ট আসে। করোনা ভাইরাস সন্দেহে সোয়াব পরীক্ষার জন্য যে নমুনা পাঠানো হয়েছিল তার মধ্যে আরো ১৫ জনের রিপোর্ট এসেছে যার সবগুলো নেগেটিভ । এ সকল রিপোর্ট কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল দেওয়া হয় । মেহেরপুর সিভিল সার্জন ডাক্তার নাসির উদ্দিন জানান নতুন করে যে সকল নমুনা পাঠানো হয়েছিল তার মধ্যে ১৫ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাসের কোন নমুনা পাওয়া যায়নি । এ নিয়ে মেহেরপুর জেলায় ১ হাজার ২শ ৪০ জনের মধ্যে ৩০ টি পজেটিভ এবং ৭ জন সুস্থ হয়েছে। মৃত্যুবরণ করেছে ২ জন। এদিকে নতুন ৬ জন দিয়ে ঝিনাইদহ জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ৬০ জন। সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম সোমবার জানান, খুলনা, যশোর এবং কুষ্টিয়া ল্যাব থেকে ঝিনাইদহে মোট ২৮ টি রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে থেকে ৫ টি পজেটিভ। আক্রান্ত ব্যাক্তিদের একজনের বাড়ী ঝিনাইদহ সদরে, কালীগঞ্জ উপজেলায় ৩ জন এবং হরিনাকুন্ডু উপজেলায় একজন রয়েছেন । সুত্রমতে আক্রান্ত ৬০ জনের মধ্যে সুস্থ্য হয়ে বাড়ী ফিরেছেন ৩৮ জন।
চুয়াডাঙ্গায় গেল ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এনিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১২৭ জনে। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৮০ জন ও মারা গেছেন ১ জন। উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার পর তার নমুমা পজিটিভ আসে। মঙ্গলবার সকালে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা.এএসএম মারুফ হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান,গত ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব থেকে ৪১ জনের নমুনার প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। এরমধ্যে ৪ জন করোনা শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে জীবননগর উপজেলার ২জন, আলমডাঙ্গার ১ জন ও দামুড়হুদার ১ জন রয়েছেন।
উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ চুয়াডাঙ্গায় প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন ইতালি ফেরত এক যুবক। তার বাড়ি আলমডাঙ্গায়। চুয়াডাঙ্গায় মোট ১২৭ জন নারী-পুরুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৮০ জন ও মারা গেছেন ১ জন। আর উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে একজনকে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More