চুয়াডাঙ্গার করোনা সমাচার : নতুন শনাক্ত ১০

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশে কর্মরত আব্দুল হান্নান নামের ৪৫ বছর বয়সী একজন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। গতকাল রোববার সকালে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অপরদিকে কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষার যন্ত্র বিকল হলেও ঢাকা ও রাজশাহী নমুনা প্রেরণ করে পরীক্ষার বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। গতকাল ঢাকা পিসিআর ল্যাবে চুয়াডাঙ্গার ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ১০ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে।
নতুন শনাক্ত ১০ জনের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলারই ৭জন। বাকি তিনজনের মধ্যে দুজন আলমডাঙ্গা উপজেলার ও একজন দামুড়হুদা উপজেলার। এদের বিস্তারিত ঠিকানা জানা সম্ভব হয়নি। গতকাল রোববার চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ আরও ৮০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া ল্যাবে প্রেরণ করেছে। আজ সোমবার কুষ্টিয়া ল্যাবের যন্ত্র সচল হলে কুষ্টিয়াতেই পরীক্ষা করা হবে। অন্যথায় ওই নমুনা রাজশাহী ও ঢাকায় প্রেরণ করবে কুষ্টিয় পিসিআর ল্যাব। সংশ্লিষ্টসূত্র এরকমই তথ্য দিয়ে বলেছেন, চুয়াডাঙ্গা জেলায় নতুন ১০জন দিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১শ ১৮ জন। রোববার আরও ১৩ জন সুস্থতার ছাড়পত্র পেয়েছেন। ফলে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬শ ২৩ জন। বর্তমানের অসুস্থদের মধ্যে হাসপাতাল তথা প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ৪২ জন। হোম তথা বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪শ ২১ জন। এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে চুয়াডাঙ্গায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ জন। করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যাও কম নয়। এরই মাঝে গতকাল করোনা উপসর্গ তথা সর্দি কাশি জ্বরসহ শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা গেছেন জেলা পুলিশের একজন সদস্য। তিনি চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.শামীম কবীর জানান, আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির সদস্য আব্দুল হান্নান দীর্ঘদিন থেকে জ্বর,ঠান্ডা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভুগছিলেন। সকালে শ্বাসকষ্ট বাড়লে তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে ওই পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। আব্দুল হান্নান কুষ্টিয়া জেলার দৌলৎপুর উপজেলার ইউসুফপুর গ্রামের রিকাত আলীর ছেলে। তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার মরদেহ দাফনের অনুমতি দেবে স্বাস্থ্য বিভাগ। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া পুলিশ সদস্য আব্দুল হান্নানের গ্রামের বাড়ি পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More