চুয়াডাঙ্গায় পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত : আহত ১৪ জনের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা ও দুর্শনায় পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৪জন। গতরাত ৮টার দিকে থেমে থাকা ট্রাকের সাথে ধাক্কায় নিহত হন সিএনজি আরোহী পরাণপুরের নজির আহমেদ। গতকাল বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা বাস-টার্মিনালের অদূরে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন ইটভাটা শ্রমিক জালশুকার জোহর আলী। রাজশাহী মেডিকেলে নেয়ার পথে গতরাত আনুমানিক ৯টার দিকে মারা যান তিনি।

গতকাল শনিবার রাত ৮টার দিকে দর্শনা মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালের সামনে যাত্রীবাহী একটি সিএনজি সড়কের পাশে বিকল হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা কেরু অ্যান্ড কোম্পানির একটি ট্রাক্টরকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন সিএনজির যাত্রী নজির আহমেদ (৬৫)। আহত হন আরও এক শিশুসহ ৫জন। নিহত নজির আহমেদ দর্শনা পরাণপুর গ্রামের মৃত মোবারেক আলীর ছেলে ও সাংবাদিক আওয়াল হোসেনের বড় ভাই। স্থানীয়রা জানান, রাতে কাজ শেষে সিএনজিযোগে দর্শনায় আসছিলেন কয়েকজন যাত্রী। এ সময় সিএনজিটি দর্শনা মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালের সামনে পৌঁছুলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের আলোয় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে চালক। পরে সিএনজিটি সড়কের পাশে বিকল হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা কেরু অ্যান্ড কোম্পানির একটি ট্রাক্টরকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন সিএনজির যাত্রী নজির আহমেদ। আহত হন নজির আহমেদের স্ত্রী জাহান্নারা খাতুন (৫৫), দর্শনা নাস্তিপুর গ্রামের এরশাদ আলীর স্ত্রী নাজিরা খাতুন (৩২), তাদের ছেলে নাহিদুল ইসলাম (২), রামনগর গ্রামের চান মিয়ার স্ত্রী শাহান্নারা খাতুন (৪০) ও মোহাম্মদপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে সিএনজি চালক সুজন আলী (২৫)। তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মাহবুবুর রহমান জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় আহতরা সবাই আশঙ্কামুক্ত। তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাব্বুর রহমান জানান, দুর্ঘটনার কবলে পড়া সিএনজিটি উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে। কোনো অভিযোগ না থাকায় নিহত নজির আহমেদের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহতের ছোট ভাই দর্শনা সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আওয়াল হোসেন জানান, আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে পরাণপুর স্কুলমাঠে জানাজার নামাজ শেষে স্থানীয় গোরস্তানে দাফন করা হতে পারে। জানাজা ও দাফন কাজে সকলকে শরিক হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন সাংবাদিক আওয়াল হোসেন। নজির আহমেদের মর্মান্তিক মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন দর্শনা প্রেসক্লাবের নবগঠিত কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান ধীরু, সাধারণ সম্পাদক হারুন রাজু, সমিতির সাধারণ সম্পাদক এসএম ওসমান, সাবেক সভাপতি হানিফ ম-ল, ইকরামুল হক পিপুল, জাহিদুল ইসলাম, ইয়াছির আরাফাত মিলন, নজরুল ইসলামসহ সকল সাংবাদিক।
এদিকে, শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গার ভালাইপুর সিটি ইটভাটায় কাজ শেষে আলমসাধুযোগে বাড়ি ফিরছিলেন ১০জন শ্রমিক। এ সময় চুয়াডাঙ্গা বাস-টার্মিনালের অদূরে চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সড়কে পৌঁছুলে পেছন দিক থেকে ট্রাক ধাক্কা দেয়। আহত হন আলমসাধুতে থাকা শ্রমিকেরা। তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার লক্ষীপুর গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে জয়নাল আবেদীন (৩৫), চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার জালশুকা গ্রামের ববোল আলীর ছেলে তৈয়ব আলী (৪০), একই গ্রামের বাচাল আলীর ছেলে জোহর আলী (৪২), মৃত আফতাব আলীর ছেলে জাব্বারুল হক (৩৮), নাসির আলীর মেয়ে সাবিনা ইয়াসমিন (১০), মজিদের ছেলে বাবলু হোসেন (৩২), মৃত আইজউদ্দীনের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৪৬), মৃত সুরত আলীর ছেলে সোবহান আলী (৫০), তোফান আলীর ছেলে আজম আলী (৩৫) ও বোয়ালিয়া গ্রামের লোকমান হোসেনের স্ত্রী রহিমা বানু (৪৬)।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, রাস্তার পাশে মোটরগাড়ি ধোয়া দোকান থেকে ট্রাকটি সড়কে দ্রুত গতিতে তোলা হচ্ছিলো। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকটি ধাক্কা দেয় আলমসাধুর। ট্রাকটি সম্ভবত হেলপার চালাচ্ছিলেন। আনাড়ি চালকের কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ওয়াহিদ মাহমুদ রবিন বলেন, আহত বাবলু হোসেন, জোহর আলী ও সোবহান আলীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের মাথায় ও বুকে প্রচ- আঘাত লেগেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য জোহর আলী ও সোবহান আলীকে রাজশাহী এবং বাবলু হোসেনকে যশোরে রেফার করা হয়। বাকিদের সদর হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। রাত ৯টার দিকে রাজশাহী মেডিকেলে নেয়ার পথে পাবনায় পৌঁছুলে জোহর আলী মারা যান। তার লাশ চুয়াডাঙ্গায় ফিরিয়ে নেয়া হচ্ছে। আজ দাফন কাজ সম্পন্ন করা হবে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান বলেন, দুর্ঘটনার পর ট্রাকটি পালিয়ে গেলেও ট্রাক চালক ও মালিককে শনাক্ত করেছে পুলিশ। অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More