আওয়ামী লীগের প্রার্থী মতিয়ার বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত

দর্শনা পৌর নির্বাচন সম্পন্ন : বিএনপির প্রার্থী বুলেটের ভোট বর্জন

হারুন রাজু/হানিফ ম-ল: দর্শনা পৌর নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪র্থ বারের মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন মতিয়ার রহমান। তিনি পেয়েছেন ১৭ হাজার ৭৩৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মো. হাবিবুর রহমান পেয়েছেন এক হাজার ১৯৪ ভোট। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়াত নেতা আশকার আলী মোবাইল প্রতীকে পেয়েছেন ৪৩৩ ভোট। ভোটগ্রহণ শেষে সন্ধ্যায় দর্শনা পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চুয়াডাঙ্গা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তারেক আহমেমদ নৌকা প্রতীকের মতিয়ার রহমানকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন।
এদিকে, এজেন্টদের বের করে দেয়াসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান বুলেট গতকাল শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হয়
এ নির্বাচনে দর্শনা পৌর মেয়র পদে ৩, সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর ৮ ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৯জন প্রার্থী ভোটযুদ্ধে লড়াই করেন। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে ৯টি ওয়ার্ডে ৯জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত, অসংখ্য পুলিশ-আনসার ছাড়াও মাঠে ছিলো ৩ প্লাটুন বিজিবি ও ২ প্লাটুন র‌্যাব। এছাড়া চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিদর্শন করেছেন নির্বাচনী এলাকা। এবারের নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে ১৬টি ভোটকেন্দ্রে ৮২টি বুথে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হয়েছে। দর্শনা পৌরসভায় মোট ২৭ হাজার ৫২০ ভোটারের মধ্যে পোল হয়েছে ১৯ হাজার ৬৫৩ ভোট। বাতিল হয়েছে ২৯০ ভোট। ফলে বৈধ ভোট হিসেবে গণনা করা হয়েছে ১৯ হাজার ৩৬৩ ভোট। এ নির্বাচনে আ.লীগ মনোনীত মতিয়ার রহমান নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ৭৩৬ ভোট পেয়ে ৪র্থ বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকে হাবিবুর রহমান বুলেট পেয়েছেন ১ হাজার ১৯৪ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়াত নেতা আশকার আলী মোবাইলফোন প্রতীকে পেয়েছেন ৪৩৩ ভোট।
এদিকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়ে মাঠ ছাড়েন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হাবিবুর রহমান বুলেট। তিনি ক্ষমতাশীন দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেই নির্বাচন বর্জন করেন। সকাল ৯টার দিকেই দর্শনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রেভোট দেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু, দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান ও দর্শনা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব গোলাম ফারুক আরিফ। এ নির্বাচনে ১, ২ ও ৩নং সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে বিলকিছ খাতুন (চশমা) প্রতীকে ৩ হাজার ৪৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আম্বিয়া খাতুন ফুট্টরি (আনারস) প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৪২০ ভোট। ৪, ৫ ও ৭নং ওয়ার্ডে জাহানারা খাতুন (চশমা) প্রতীকে ৩ হাজার ৩২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শিউলী আক্তার (আনারস) প্রতীকে ২ হাজার ৩৬৯ ভোট পেয়েছেন। ৬, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডে সুরাতন নেছা (আনারস) প্রতীকে ২ হাজার ৩৬৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শাহিমা বেগম (জবাফুল) প্রতীকে ১ হাজার ৯৭১, সেলিনা পারভিন (চশমা) প্রতীকে ১ হাজার ৩১০ ও ফাহিমা খাতুন (টেলিফোন) প্রতীকে ১ হাজার ৪৩ ভোট পেয়েছেন। ৯টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলরদের মধ্যে ১নং ওয়ার্ডে হাসান খালেকুজ্জামান (পানির বোতল) প্রতীকে ৬৬৪ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাসির উদ্দিন খেদু (উটপাখি) প্রতীকে ৬৬০, আজিজুর রহমান (ব্রিজ) প্রতীকে ৩৫৭ ও আনোয়ার হোসেন (গাজর) প্রতীকে পেয়েছেন ৪৫ ভোট। ২নং ওয়ার্ডে এনামুল কবির (পাঞ্জাবি) প্রতীকে ৮৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ. কুদ্দুস (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৮৬২ ও সোহেল রানা (উটপাখি) প্রতীকে পেয়েছেন ১০৮ ভোট। ৩নং ওয়ার্ডে রবিউল হক সুমন (উটপাখি প্রতীকে ১ হাজার ৮৫০ ভোট পেয়ে ৩য় বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনোয়ারুল ইসলাম দোলন (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৪৮১ ও শহিদুর ইসলাম (ব্লাকবোর্ড) প্রতীকে ১১৭ ভোট পেয়েছেন। ৪নং ওয়ার্ডে মনির সরদার (ব্রিজ) প্রতীকে ১ হাজার ২৯২ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রফিকুল ইসলাম কভু (পাঞ্জাবি) প্রতীকে ৩৩৮, আব্দুর রাজ্জাক (উটপাখি) প্রতীকে ১৩৫, হাবিবুল্লাহ বাহার (ব্লাকবোর্ড) প্রতীকে ১২৪ ও সোহেল মিয়া (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে পেয়েছেন ৬৭ ভোট। ৫নং ওয়ার্ডে সাইফুল ইসলাম মুকুল (ডালিম) প্রতীকে ৬৩২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নজরুল ইসলাম (পাঞ্জাবি) প্রতীকে ৪৪২, আব্দুল মিয়া (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৩৪৩, লুৎফর রহমান (পানির বোতল) প্রতীকে ৩৩৮, রাজিবুল ইসলাম (উটপাখি) প্রতীকে ৩০৭ ও লাল্টু খান (ব্রিজ) প্রতীকে ১৯ ভোট পেয়েছেন। ৬নং ওয়ার্ডে রেজাউল ইসলাম (পানির বোতল) প্রতীকে ১ হাজার ৪৯ ভোট পেয়ে ৩য় বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কামরুল হুদা (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৮৩৫ ও হারুন অর রশিদ (উটপাখি) প্রতীকে পেয়েছেন ৪০৯ ভোট। ৭নং ওয়ার্ডে সাবির হোসেন মিকা (পাঞ্জাবি) প্রতীকে ৫১২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোস্তাফিজুর রহমান মতি (ডালিম) প্রতীকে ৪৫৩, আয়নাল হক (পানির বোতল) প্রতীকে ২৯৮ ও কানচু মাতবর (উটপাখি) প্রতীকে পেয়েছেন ২৫২ ভোট। ৮নং ওয়ার্ডে বিল্লাল হোসেন (উটপাখি) ৯১৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাংবাদিক শরীফ উদ্দীন (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৮৬১, বাবলু আক্তার (ডালিম) প্রতীকে ৪৯৮, চান্দু মাস্টার (পানির বোতল) প্রতীকে ২৬২ ও নাসির উদ্দিন (পাঞ্জাবি) প্রতীকে ১১ ভোট পেয়েছেন। ৯নং ওয়ার্ডে আশুর উদ্দিন (উটপাখি) প্রতীকে ৬২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাহাঙ্গীর আলম নানক (টেবিল ল্যাম্প) প্রতীকে ৫১১, সাইদুর রহমান (পানির বোতল) প্রতীকে ৪২৪, মঈনুদ্দিন মন্টু (গাজর) প্রতীকে ৩৭০, আজিজুল হক (ডালিম) প্রতীকে ১৬৬ ও বাবলুর রহমান (পাঞ্জাবি) প্রতীকে পেয়েছেন ১৩৬ ভোট। সন্ধ্যায় দর্শনা অডিটোরিয়াম কাম কমিউনিটি সেন্টারে দর্শনা পৌর নির্বাচনের কন্ট্রোল রুম থেকে ফলাফল ঘোষণা করেন জেলা নির্বাচন অফিসার তারেক আহমেমদ। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ইসাহাক আলী। নির্বাচন চলাকালীন এএসপি আবু রাসেলের নেতৃত্বে দর্শনা থানার ওসি মাহব্বুব রহমান কাজল ও ইন্সপেক্টর শেখ মাহাবুবুর রহমান ভোট কেন্দ্রগুলো তদারকি করেন। নির্বাচিত মেয়র মতিয়ার রহমানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর ও দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু।
এদিকে এজেন্টদের বের করে দেয়াসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান বুলেট। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে শহরের টিপু তরফদারের বাড়ির পাশে তার নির্বাচনী অফিসে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি। বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান বুলেট সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ১১ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পর আমার কর্মী সমর্থকরা বিধি মোতাবেক পৌরসভার সবগুলো ওয়ার্ডে ব্যানার ও পোস্টার ঝুলান। কিন্তু ১২ জানুয়ারি সরকারদলীয় লোকজন আমার সকল ব্যানার ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেন। এছাড়া নির্বাচনী প্রচারণা শুরু থেকে বিভিন্ন মহল্লায় সরকার দলীয় লোকজন আমার নির্বাচনী প্রচারে বাধা সৃষ্টি করেন।
বিষয়টি আমি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার এবং জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে একাধিকবার অভিযোগ করেছি। তারপরও সকল বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে আমি আমার সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে গিয়েছি। গত ২৮ তারিখ সন্ধ্যার পর থেকে রাত ১২াটা পর্যন্ত সরকারদলীয় লোকজন হ্যান্ডমাইক নিয়ে দর্শনা পৌর এলাকার সকল ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করে এবং আমার নির্বাচনী এজেন্টসহ কর্মী সমর্থকদের বাড়িতে ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে।
আজ নির্বাচনের দিনও সকাল থেকে পৌর এলাকার সকল ভোটকেন্দ্রে আমার কোনো পোলিং এজেন্টদেরকে ঢুকতে দেয়া হয়নি। যে সেন্টারে পোলিং এজেন্ট গিয়েছে, তাকেই গলাধাক্কা দিয়ে খুন জখমের হুমকি দিয়ে সরকার দলীয় লোকজন ভোট সেন্টার থেকে বের করে দিয়েছে। সরকার দলীয় লোকজন ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করার পর সকল বুথ দখল করে তাদের মনোনীত প্রার্থীর মার্কায় সিল মারছে।
এ অবস্থায় দর্শনা পৌরসভা নির্বাচনে যেহেতু সাধারণ ভোটারদের উপস্থিত হতে দিচ্ছে না, সেহেতু সাধারণ জনগণের মতের প্রতিফলন ঘটনোর সম্ভাবনা না থাকায় আমি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা করলাম।

এক নজরে দর্শনা পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রাপ্ত ভোটের ফলাফল

ওয়ার্ড
নং ভোট কেন্দ্রের নাম মোট ভোটার সংখ্যা মোট
পোল নৌকা ধানের
শীষ মোবাইল
ফোন বাতিল
০১ দক্ষিণ চাঁদপুর মা:বি: ১৫১৯ ৯৬০ ৮৯১ ১৫ ৩০ ২৪
” দক্ষিণচাঁদপুর স:প্রা:বি: ১৫৩৬ ৮৫৫ ৭৩০ ৮৩ ৩৩ ০৯
০২ কেরুজ প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৪২২ ৯৫৩ ৮৮৫ ২৬ ২১ ২১
” আলহেরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১৯৪৭ ৯৬৯ ৮৬০ ২৯ ৫২ ২৮
০৩ আজমপুর স:প্রা:বি: ২২০২ ১৬৮৬ ১৫৮৭ ৫৬ ২৩ ২০
” দর্শনা ডিএস ফাজিল মাদরাসা ৯১৯ ৮০০ ৭৭৮ ১৫ ০৭ ০০
০৪ আনোয়ারপুর হাফিজিয়া মাদরাসা ১৪১৯ ৮৫০ ৮০৩ ২৩ ০৮ ১৬
” শান্তিনগর স:প্রা:বি: ১৬৯০ ১১৫৭ ১১৩৪ ০৭ ০৭ ০৯
০৫ কাস্টমস স:প্রা:বি: ১১২৯ ৯২৮ ৮৩৫ ৬৭ ২১ ০৫
” পরানপুর স:প্রা:বি: ১৮৭৭ ১৪৬০ ৮৯১ ৪৬১ ৬৯ ৩৯
০৬ পূর্বরামনগর স:প্রা:বি: ৫৯৪ ৪৭৭ ৪৫৫ ১১ ০৭ ০৪
” মেমনগর বিডি মা:বি: ২৪২৯ ১৮৯৬ ১৬৯৭ ১৩৭ ৩৯ ২৩
০৭ দর্শনা মাধ্যমিক বালিকা বি: ২৪৬৫ ১৫৫৪ ১৪৫৮ ৬০ ৩২ ০৪
০৮ জয়নগর স:প্রা:বি: ১২৯২ ১১০৮ ৮৯৯ ১৪৪ ৩৪ ৩১
” শ্যামপুর স:প্রা:বি: ২১৫২ ১৭১৯ ১৬৫২ ২১ ১৭ ৩৯
০৯ ঈশ্বরচন্দ্রপুর স:প্রা:বি: ২৯২৮ ২২৮১ ২১৯১ ৩৯ ৩৩ ১৮
সর্বমোট ২৭৫২০ ১৯৬৫৩ ১৭৭৩৬ ১১৯৪ ৪৩৩ ২৯০

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More