কালীগঞ্জে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০ : পরিচয় পাওয়া ৭ জনের মধ্যে ৩ জনের বাড়ি চুয়াডাঙ্গায় 

স্টাফ রিপোর্টার: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বরোবাজারে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন প্রাণ হারিয়েছেন; আহত হয়েছেন আরও ২০ জন।
বুধবার বিকালে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের বারোবাজারে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে বারোবাজার হাইওয়ে থানার ওসি শেখ মেসবাহ উদ্দিন জানান।
নিহতদের মধ্যে ছয় জন হলেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের সুন্দরপুরের ইসহাক আলীরে ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (২৫), সদরের নাটকুন্ডুর ময়েজ আলী ছেলে ইউনুস আলী (৩২), চুয়াডাঙ্গার ডিঙ্গেদহের রশিদেরে মেয়ে রেশমা (২৬), চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার নাগদা গ্রামের জান্নাতুল বিশ্বাসের ছেলে শুভ (২২), ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের রঞ্জিত দাশের ছেলে সনাতন দাশ (২৫) এবং ঝিনাইদহের শৈলকুপার আব্দুল আজিজ (৬০),অনার্সের শিক্ষার্থী জীবননগর এলাকার রেশমা খাতুন (২৫), বাসের ড্রাইভার মাগুরা এলাকার উজ্জল হোসেন ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান।  বাকি চার জনের নাম জানা যায়নি।আহতদের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে শেখ মেজবাহ উদ্দিন জানান, জেকে পরিবহনের একটি বাস যাত্রী নিয়ে মাগুরার দিকে যাচ্ছিল। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বাসটি বারোবাজার পার হয়ে আমজাদ আলী ফিলিং স্টেশনের সামনে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। “এতে যাত্রীবাহী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার উপর আড়াআড়ি হয়ে উল্টে পড়ে। ঘটনাস্থলে নয় জন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর একজন মারা যান।”
মেজবাহ উদ্দিন জানান, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। দুর্ঘটনার পর সড়কে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সড়কের উভয় পাশে শত শত যানবাহন আটকে পড়ে বলে জানান তিনি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More