৭ মার্চের ভাষণই ছিলো প্রকৃত স্বাধীনতার ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রী

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরসহ সারাদেশে নানা আয়োজন
মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। বাঙালি জাতির দীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের একটি দিন। ১৯৭১ সালের এইদিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন। মুক্তিপ্রেমী লাখো জনতার সামনে ১৯ মিনিট ধরে দেয়া ভাষণে বঙ্গবন্ধু অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেন। সেই সাথে তিনি পাকিস্তানের শোষণকারী শাসকগোষ্ঠীর হাত থেকে দেশকে মুক্ত করতে জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দেন। বঙ্গবন্ধুর কণ্ঠে ধ্বনিত হয়- ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’ ৭ মার্চ উপলক্ষে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ৭ মার্চের ভাষণই ছিলো প্রকৃত স্বাধীনতার ঘোষণা। ধানমন্ডির ৩২নম্বর থেকেই দেশ পরিচালিত হতো। বাবা যেভাবে নির্দেশ দিতেন, সেভাবেই দেশ চলতো। দেশের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ ছিলো ধানমন্ডির ৩২নম্বরে। শেখ হাসিনা বলেন, ৭ মার্চের ভাষণে তিনি সব ধরনের নির্দেশনা দিয়েছেন। যে ভাষণ সারাদেশের মানুষকে জাগ্রত করতে পেরেছিলো, সেই ভাষণ এক সময় বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ছিলো। আজ সেই ভাষণ জাতিসংঘের সেরা ভাষণ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ভাষণ বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদ হচ্ছে। এটি আজ বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল। ইতিহাস মুছে ফেলা যায় না। সত্য আজ উদ্ভাসিত হয়েছে। তিনি বলেন, ভাষণ দিতে যাওয়ার আগে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন আমার মা। যেকোনো ক্রান্তিলগ্নে আমার মা সঠিক সিদ্ধান্ত দিতে পারতেন। আমার মা বলেছিলেন, তোমার মনে যে কথা আসবে তুমি সে কথাই বলবে। মায়ের পরামর্শেই বাবা সেদিন এ রকম ভাষণ দিয়েছিলেন।
চুয়াডাঙ্গায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় উদযাপন করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গায় জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করা হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুুক্তিযোদ্ধা জননেতা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আওয়ামী লীগের অঙ্গ-সহযোগী এবং ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মাল্যদান করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, অ্যাড. শামসুজ্জোহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান, মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস, দফতর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস পিপি, উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলী, কোষাধ্যক্ষ আলি রেজা সজল, চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, পৌর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, চুয়াডাঙ্গা জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম কেতু, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল কাদের, রেজাউল করিম, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র সুলতান আরা রতœা, উজ্জ্বল হোসেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন নাহার কাকুলী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদী মিলি, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাবিলা রোকসানা ছন্দা, রীনা খাতুন, সাফিয়া, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুব মহিলা লীগের আহবায়ক আফরোজা পারভীন, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সহ-সভাপতি শাহাবুল হোসেন প্রমুখ। বিকেলে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পরভীন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরীন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান, এনডিসি আমজাদ উপস্থিত ছিলেন। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জেলার পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আবু তারেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম ও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ মো. ফকরুল আলম খান উপস্থিত ছিলেন। চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার পক্ষ থেকে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক এবং কাউন্সিলরবৃন্দ পূষ্পমাল্য অর্পণ করেন। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ডা. ওয়ালিউর রহমান নয়নের নেতৃত্বে পূষ্পমাল্য অর্পণ করেন। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা ইউনিটের পক্ষ থেকে সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মালিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান (বীর প্রতীক) এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলামসহ অন্যানারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজ, জেলা মৎস্য দফতর, গণপূর্ত বিভাগ, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি, জেলা কমান্ড্যান্ট আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী, জেলা আওয়ামী যুবলীগ, টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ, কর-কমিশনারের কার্যালয়, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজ, সড়ক বিভাগ, জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন, এলজিইডি, স্বাস্থ্য বিভাগের বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বিএডিসি শ্রমিক কর্মচারী লীগ (বি১৯০৩) সিবিএ, ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুত সমিতি চুয়াডাঙ্গা জোনাল অফিস, চুয়াডাঙ্গা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গায় প্রথমবারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ, আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সকাল ১০টায় ডিসি সাহিত মঞ্চে জেলা প্রশাসেনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরীন ও সাবেক অধ্যক্ষ (অব.) সিদ্দিকুর রহমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধার সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মালিক। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মুন্সী আবু সাইফ। এ সময় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বাঁধনের উদ্যোগে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করা হয়।
চুয়াডাঙ্গায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে আনন্দ উদযাপন করেছে জেলা পুলিশ। এ উপলক্ষ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা চত্বরে আলোচনাসভা, কেক কাটা ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের আয়োজনে গতকাল রোববার বিকেল ৩টার দিকে এ আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানের আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খানের স্বাগত বক্তব্যে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবু হোসেন, মোমিনপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দার, আলুকদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দিন, পদ্মবিলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের । আলোচনাসভা শেষে কেক কাটা হয় এবং উপস্থিত সকলকে মিষ্টিমুখ করানো হয়। শেষে পরিবেশিত হয় সঙ্গীতানুষ্ঠান। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই আহসানুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কবির, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) একরামুল হোসাইন, সদর ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ পরিদর্শক আবু সাইদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানটির সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আশিকুল ইসলাম ও এসআই জসিম উদ্দিন।
এদিকে, চুয়াডাঙ্গায় দিবসটি উপলক্ষে জেলা পরিষদ চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এ সময় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সাজিয়া আফরীন, সহকারী প্রকৌশলী মৌসুমী আক্তার, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. রোকনুজ্জামান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা রমজান আলী, হিসাবরক্ষক আসলাম উদ্দিন, উচ্চমান সহকারী বেদানা খাতুন, অফিস সহকারী মৌসুমী আক্তার, জেলা পরিষদ সদস্য মাফলুকাতুর রহমান সাজু, খলিলুর রহমান, জহুরুল ইনলাম, মাহবুবুর রহমান মোল্লা, শফিকুল আলম নান্নু, শফিউল কবির ইউসুফ, জাফর আলী, তপন কুমার, রকিবুল হাসান, মিজানুর রহমান, কাজল রেখা, তানিয়া বেগম ও হাসিনা খাতুনসহ জেলা পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। ইউনেস্কো ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর মহাকাব্যিক এ ভাষণকে বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টারে’ অন্তর্ভক্ত করেছে। দিবসটি প্রথমবারের মতো জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপন করা হলো।
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগ জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস ৭ মার্চ উদযাপন করেছে। গতকাল রোববার এ উপলক্ষে জেলা যুবলীগের কার্যালয়ে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। এর আগে সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসার প্রতিকৃতিতে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম জোয়ার্দ্দারের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাফুর পরিচালনায় আলোচনাসভায় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলী, সাজেদুল ইসলাম লাভলু, আলমগীর আজম খোকা, আবু সিদ্দিক আরিফ প্রমুখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষক লীগ নেতা মহসিন রেজা, জেলা যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, মাসুদুর রহমান মাসুম, বিপ্লব হোসেন, জুয়েল জোয়ার্দ্দার, রামিম হাসান সৈকত, সামী শেখ সুইট, টুটুল, দিপু বিশ্বাস, আলীম, জাকির, হীরা, সোহাগ ও সৌরভ। পুষ্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনাসভায় জেলা, উপজেলাসহ বিভিন্ন ইউনিট যুবলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ কেদারগঞ্জস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনসহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মাল্যদান করেন নেতা কর্মীরা। উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্মআহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্মআহ্বায়ক ইমরান আহম্মেদ, সদস্য মেহেদী হাসান পিয়াস, জেলা ছাত্রলীগ নেতা তানবিন আহমেদ সোহাগ, রাকিবুল হাসান নিপ্পন, জাভেদ আকিব, আরফিন সজীব, এলাহি তৌফিক, জাহিদ, সাইফুল, সুমন, মিরাজ, বিপ, নাজমুল, অনিক, তৌকির প্রমুখ।
সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সরোজগঞ্জ তেতুল শেখ কলেজের উদ্যোগে ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। অত্র অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কলেজের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজি আব্দুল্লাহ শেখ। বক্তব্য রাখেন পদ্মবিলা ইউপি চেয়ারম্যান অবু তাহের বিশ্বাস, কলেজের অধ্যক্ষ মারফুল হক, শওকত মাস্টার, হাফিজুর রহমান প্রমুখ। মহাম্মদজমা ডিএএসএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজি মজিবর রহমান, প্রধান শিক্ষক নাজমুল ইসলামসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ। ছাদেমান নেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের উদ্যোগে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা হাজি আব্দুল্লা শেখ, প্রধান অতিথি ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের বিশ্বাস, প্রধান শিক্ষক আবু সালেহ, পরিচালনা কমিটির সদস্য সেলিম রেজা, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য শওকত আলী প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শিক্ষক সাইফুল আওয়াল, দোয়া পরিচালনা করেন শিক্ষক মোমতাজুল ইসলাম।
বেগমপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার হিজলগাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয়ের সভাকক্ষে প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন স্বপনের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাইফুল আজম মিন্টু। উপস্থিত ছিলেন সহকারী প্রধান শিক্ষক আলী হোসেন, শিক্ষক শফিকুল ইসলাম, ওয়াজেদ আলী, শাহাবুদ্দিন, আজিজুল হক, আব্দুল কুদ্দুস, আবুল হোসেন, সাজেদুর রহমান, মাসুদ রানা, শাহানাজ পারভীন, শেফালী খাতুন প্রমুখ।
গড়াইটুপি প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার গড়াইটুপিতে দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গড়াইটুপি প্রাইমারি স্কুলে আয়োজিত আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম। প্রধান অতিথি ছিলেন গড়াইটুপি ইউপি চেয়ারম্যান বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি শফিকুর রহমান রাজু। উপস্থিত ছিলেন ইউপি সচিব হাফিজুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আওলাদ বিশ্বাস, লিয়াকত আলী, আনছার আলী, আবুল কাশেম, আবুল হাশেম, ইউপি মেম্বার হাফিজুর রহমান, ফারুক হোসেন চাঁন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সন্ন্যাসী কুমার পাল।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় দিবসটি উপলক্ষে সকালে আওয়ামী লীগ দলীয় অফিসে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম খান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক কাজি রবিউল হক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আতিয়ার রহমান, আলম হোসেন, সাবেক পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক সাইফুর রহমান পিন্টু, পৌর আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মাসুদ সালেহীন উৎপল প্রমুখ। পরে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যায় পৌর এলাকার বিভিন্ন মোড়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র প্রজেক্টরের মাধ্যমে দেখানো হয়।
এদিকে, আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ পৃথক পৃথকভাবে কর্মসূচি পালন করেছে। সকাল ৯টায় আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার ম-লের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে মাল্যদান করা হয়। তারপর বীর মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। শেষে দিবসটি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার ম-ল। কলেজিয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামীম রেজার উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বীর প্রতীক সাইদুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. সাহাবুদ্দিন আহমেদ সাবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক উপজেলা কমান্ডার শফিউর রহমান জোয়ার্দ্দার সুলতান, বীর মক্তিযোদ্ধা মইন উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, ডা. লিয়াকত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা দাউদ আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরজ আলী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হুমায়ন কবীর, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবীর, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী খালেদুর রহমান অরুন, আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার মিঠু, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুল্লাহিল কাফি, মৎস্য অফিসার ফাতেমা কামরুন্নাহার আখি, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান খান, শিক্ষা অফিসার শামসুজ্জোহা, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল বারী প্রমুখ।
এছাড়াও আলমডাঙ্গা থানা চত্বরে বেলা ৩টায় ‘আনন্দ উদযাপন’ নামক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে কেক কেটে উপস্থিত সকলের মাঝে কেক ও মিষ্টি বিতরণ করেন। সভাপতিত্ব করেন আলমডাঙ্গা থানার ওসি আলমগীর কবীর। প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপার সাজিদ হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. সাহাবুদ্দিন আহমেদ সাবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা ময়ইন উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহম্মেদ ডন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ পিন্টু, কাওছার আহমেদ বাবলু, আব্দুল হালিম ম-ল। পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত মাসুদুর রহমানের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মাবুদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর জব্বার, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন, পৌর কাউন্সিলর জহুরুল ইসলাম স্বপন প্রমুখ।
হাটবোয়ালিয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, আলমডাঙ্গার ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্যোগে এক বর্ণাঢ্য পুনর্মিলনী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান ভাংবাড়িয়া কুটুমবাড়ি পার্কে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা খোশদেল আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ভাংবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক। এ সময় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল হক। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাসেম মাস্টারের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনছুর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাব হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়বউদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবেছ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুক্তার আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিয়ার রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুছদ্দিন মুহুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দীনসহ ৫০জন মুক্তিযোদ্ধা। অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণ আহ্বায়ক কমিটি গঠন মুক্তিযোদ্ধা ফলক স্থাপন বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।
মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, আলমডাঙ্গার খাদিমপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাহিদুর রহমান জোয়ার্দ্দার লোটাস, সহসভাপতি আমিরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন আলী, মুকুল হোসেন, আ.লীগ নেতা জহির উদ্দিন জোয়ার্দ্দার, আবু সাঈদ খোকন প্রমুখ।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দিবসটি বিশ্বে যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করা হয়েছে। নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে দর্শনায় ৭ মার্চ পালিত হয়েছে। দর্শনার বিভিন্ন স্থানে দিনভর বাজানো হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণ। সকালে দর্শনা পৌর আ.লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়েছে। সকাল ৯টার দিকে পৌর আ.লীগের কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকেল ৩টার দিকে দর্শনা থানা পুলিশের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল থেকে উত্তোরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে আনন্দ উদযাপন করা হয়েছে। এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু। বিশেষ অতিথি ছিলেন, দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, অবসরপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক অ্যাড. শহিদুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান এসএএম জাকারিয়া আলম। দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান কাজলের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শেখ মাহবুবুর রহমান, আ.লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজি শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজি জয়নাল আবেদীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, আতিয়ার রহমান হাবু, আ. রফিক কাবি, বিল্লাল হোসেন, আ. গফুর, কামাল উদ্দিন আহমেদ সান্টু। আ.লীগ নেতা শফিকুল আলম ও কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন তপুর উপস্থাপনায় আরও উপস্থিত ছিলেন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আ. হান্নান ছোট, সহসভাপতি সোলায়মান কবির, সহসম্পাদক আ. মান্নান খান, দর্শনা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসলাম আলী তোতা, সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মতি, মামুন শাহ, হবা জোয়ার্দ্দার, আবু ফয়সাল, দর্শনা পৌর প্যানেল মেয়র রবিউল হক সুমন, রেজাউল ইসলাম, মনির সরদার, এনামুল কবির, হাসান খালেকুজ্জামান, শিক্ষক নাসির উদ্দিন আহমেদ, হাসমত আলী, দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফ মল্লিক, দর্শনা পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ পারভেজ, ছাত্রলীগ নেতা রিপন, লোমান, মিল্লাত, রায়হান, প্রভাত, অপু সরকার প্রমুখ। পরে থানা পুলিশের আয়োজনে কেক কাটা হয়।
এদিকে দর্শনা সরকারি কলেজে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত হয়েছে। জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পুষ্পমাল্য অর্পণ ও সংক্ষিপ্ত আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলাম, উপাধ্যক্ষ মফিজুর রহমান, শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইকরামুল হক, আনোয়ারুল ইসলাম, জমসেদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, তরিকুল ইসলাম, পিংকু পাল প্রমুখ।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, দামুড়হুদায় গতকাল রোববার সকাল ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে উপজেলা প্রশাসন-পরিষদের পক্ষে উপজেলা চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, দামুড়হুদা মডেল থানা, দর্শনা থানা, আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত কুমার সিংহ, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. মনিরুজ্জামান, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আছির উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল খালেক, দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিন, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য শফিউল কবীর ইউসুফ, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে জাহান ববি, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ইসহাক, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফ আলী, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ প্রমুখ।
এদিকে, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে বাংলাদেশ পুলিশের আয়োজনে দামুড়হুদা মডেল থানায় আনন্দ উদযাপন করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে দামুড়হুদা মডেল থানার পরিদর্শক ওসি আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে কেক কাটা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম, বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক। এ সময় অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, জেলা পরিষদের সদস্য আবু জাফর, শফিউল কবির ইউসুফ, কার্পাসডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান ভুট্টু, নতিপোতা ইউপি চেয়ারম্যান ইয়ামিন আলী, উপজেলা আওয়ামী লী নেতা অ্যাড. আবু তালেব, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী, শেখ ইট ব্রিকসের স্বতাধিকারী হাজি আব্দুল কাদির প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন থানার এসআই তৌহিদুর রহমান।
কার্পাসডাঙ্গা/ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দামুড়হুদা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গতকাল রোববার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভবনে কার্পাসডাঙ্গায় আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মনজু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত কুমার সিংহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা যাচাইবাছাই কমিটির সভাপতি রুস্তম আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার নাসির উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম-বিষয়ক সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার আছের আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা তমসের আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সবুর, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজির আহম্মেদ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শিক্ষক শফিকউর রহমান, সহসভাপতি আব্দুল কাদের বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুর রহমান মুকুল, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এমএ জলিল, আওয়ামী লীগ নেতা শওকত আলী, রেজাউল করিম মিন্টু, সহিদুল সর্দ্দার প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কুরআন তেলওয়াত করেন শিক্ষক আব্দুল মমিন।
জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়শীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চুড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গতকাল রোববার বিকেলে থানা ক্যাম্পাসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানের শুরুতে কেক কেটে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন অতিথিবৃন্দ।
জীবননগর থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাঁকজমকপূর্ণ এ অনুষ্ঠানে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষনের তাৎপর্য ও উন্নয়নশীল দেশের চুড়ান্ত সুপারিশের লাভের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কণক কান্তি দাস, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ অমল, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, নব-নির্বাচিত পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকি, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খান, জীবননগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নিজামউদ্দিন, উপজেলা মহিলালীগ নেত্রী রেনুকা আক্তার রিতা ও প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক এম আর বাবু।
জীবননগর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশার সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে এ ছাড়াও বিশিষ্ট সমাজসেবক কাজি বদরুদ্দোজা, উথলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হান্নান, পৌর কাউন্সিলর মাহফুজা পারভীন বিউটি, বাঁকা ইউপি সদস্য মঈদুল ইসলাম ও উথলী কিশোরী ক্লাবের মুক্তা খাতুন প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ লাভের সুপারিশ প্রাপ্ত হওয়ায় শেষে সকলকে পুলিশের পক্ষ থেকে মিষ্টি মুখ করানো হয়।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে পতাকা উত্তোলন ও পুষ্পমাল্য অর্পণ করেছে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল রোববার সকালে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপির মেহেরপুর বাসভবনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীন, মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমাম হোসেন মিলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমঝুপি ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন আহমেদ চুন্নু, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পিরোজপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শাশ্বত নিপ্পন চক্রবর্তী, বুড়িপোতা ইউপি চেয়ারম্যান শাহজামান, বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম খোকন, জেলা যুবলীগের যুগ্মআহবায়ক সরফরাজ হোসেন মৃদুল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তারিকুল ইসলাম লিজন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহবায়ক শাকিল আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে মেহেরপুর জেলা প্রসাশনের উদ্যোগে মেহেরপুরে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস পালিত হয়েছে। এদিন সকাল সাড়ে ১০টার সময় জেলা প্রসাশকের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জনপ্রসাশন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি জেলা প্রসাশক ড. মোহাম্মদ মনসুর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের গুরুত্ব ও মুক্তিযুদ্ধের অবদান নিয়ে আলোচনা করেন বক্তারা। এ সময় জেলার মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন। সভায় রাজনৈতিক কর্মী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অনেকে অংশগ্রহণ করেন।
এর আগে সকালে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ের সামনে বিশেষভাবে তৈরি বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। এ সময় জেলা প্রশাসনের পক্ষে জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ মুনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। এর পরপরই স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে সিভিল সার্জন ডা. নাসির উদ্দিন মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মো. গোলাম রসূল, মেহেরপুর সরকারি কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ প্রফেসর শফিউল আলম সরদার, সরকারি মহিলা কলেজের পক্ষে প্রফেসর রফিকুল ইসলাম, মেহেরপুর পৌরসভার মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম, মেহেরপুর জেলখানার পক্ষে ভারপ্রাপ্ত জেল সুপার ও সহকারী কমিশনার নিরুপমা রায়, মেহেরপুর জেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসের পক্ষে জেলা কমান্ডার রফিকুল ইসলাম, মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের সুপার ডা. রফিকুল ইসলাম, ছহিউদ্দিন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ একরামুল আজিম, জেলা যুব উন্নয়ন অধিদফতরের উপ-পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, টিটিসির অধ্যক্ষ আরিফ আহমেদ তালুকদার, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা লাভলী ইয়াসমিনসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।
সদর থানা আওয়ামী লীগের পক্ষে সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মো. গোলাম রসুল, শহর আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের পক্ষে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটনসহ বিভিন্ন সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। দিবসটি উপলক্ষে নানা আয়োজনে কর্মসূচি সাজিয়েছে জেলা প্রসাশন।
এদিকে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এদিন বিকেলে মেহেরপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসন এমপির সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন বুড়িপোতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বুড়িপোতা ইউপি চেয়ারম্যান শাহজামান, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক সরফরাজ হোসেন মৃদুল, কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আদিব হোসেন আসিফ। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, আইন বিষয়ক সম্পাদক পিপি ভট্টাচার্য, দপ্তর সম্পাদক মোখলেছুর রহমান খোকন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের আহবায়ক প্রফেসর (অব.) হাসানুজ্জামান মালেকসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে মেহেরপুরে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শিশুদের মধ্যে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। এদিন দুপুরের দিকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মেহেরপুর পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মো. গোলাম রসুল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. তৌফিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, মেহেরপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. নাসির উদ্দিন, মেহরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শফিউল আলম সরদার, জেলা শিক্ষা অফিসার মাহফুজুল হোসেন উজ্জ্বল, মেহেরপুর পৌর মেয়র মাহ্ফুজুর রহমান রিটন, গাংনী পৌর মেয়র আহমেদ আলী, জেলা আনসার অ্যাডজুটেন্ট রফিকুল ইসলাম, জেলার হাসানুজ্জামান, জেলা যুব উন্নয়ন অধিদফতরের উপ-পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, টিটিসির অধ্যক্ষ আরিফ আহমেদ তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে মেহেরপুর সদর উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ও কবিতা আবৃত্তি ও প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আফিল উদ্দিন, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম, পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস প্রমুখ। এর আগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
অপরদিকে, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ এবং বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের জাতিসংঘের চূডান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে মেহেরপুর সদর থানার উদ্যোগে আলোচনাসভা, কেক কাটা, বেলুন ও পায়রা উড়োনো এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গতকাল রোববার বিকেলে মেহেরপুর সদর থানা প্রাঙ্গণে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীন, প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, পিপি পল্লব ভট্টাচার্য। বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মোখলেছুর রহমান, মেহেরপুর সদর থানার সেকেন্ড অফিসার শরিফ ইকবাল, ইউপি চেয়ারম্যান শাহজামান, কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইদ্রিস আলী, জেলা পরিষদের সদস্য ইমতিয়াজ আহমদ মিরন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিউর রহমান প্রমুখ। পরে সেখানে কেক কাটা হয় এবং মিষ্টি বিতরণ করা হয়। এর আগে পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী বেলুন এবং শান্তির প্রতীক কবুতর ওড়ান।
গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুরের গাংনীতে সরকারি কর্মসূচি পালনের অংশ হিসেবে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল ১০টায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজ, সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন।
এদিকে মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামানসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, গাংনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের পক্ষ থেকে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। গাংনী মেয়র আহম্মেদ আলী পরিষদের কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। পৌর পরিষদে আলোচনাসভাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এদিকে সকাল সাড়ে দশটায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সভা কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। গাংনী থানায় আনন্দ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় বিকেল তিনটায়। ওসি বজলুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এফএম ফয়সাল, সাবেক এমপি মকবুল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন।
মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দিবসটি উপলক্ষে মেহেরপুরের মুজিবনগরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ১০টায় মুজিবনগর উপজেলা প্রশাসনের আয়াজনে মুজিবনগর মানচিত্রের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার, মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল হাশেম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, উপজেলা আনসার ভিডিপি প্রমুখ। এছাড়াও মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউদ্দীন বিশ্বাসের নেতৃত্বে র‌্যালি শেষে মুজিবনগর মানচিত্রের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ রফিকুল ইসলাম মোল্লা, উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খাইরুল ইসলাম ইতা, মহাজনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান নান্নু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বল্টু, জামাত আলী ও সাবেক সম্পাদক কুতুব উদ্দীন প্রমুখ।
অপরদিকে, মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমাম হোসেন মিলুর নেতৃত্বে বেলা ৪টায় আনন্দ র‌্যালি শেষে মুজিবনগর মানচিত্রের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পাষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক ও বাগায়োন ইউপি চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রফিকুল ইসলাম তোতা, গোলাম মোস্তফা, মোনাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুরর রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রোফা, মোস্তাকিম হক খোকন কমান্ডার, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, মুজিবনগর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান চাঁদু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেলাল উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক শেখ সাকিব, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ম-ল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বেলাল হাসান বিপ্লব, সহসভাপতি মতিউর রহমান মতিন প্রমুখ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। পরে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা প্রশাসনের আয়াজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবসের জাতির জনকের ওপর আলোচনাসভায় ও চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
অপর দিকে, ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ জাতীয় দিবস হিসেবে বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতীসংঘের চুড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে মুজিবনগরে আনন্দ উৎসব করেছে মুজিবনগর থানা পুলিশ। এ উপলক্ষে গতকাল রবিবার বিকেলে মুজিবনগর থানা চত্তরে মুজিবনগর থানা পুলিশের আয়াজনে আনন্দ অনুষ্ঠানে মুজিবনগর থানা ইচার্জ (ওসি) আব্দুল হাশেমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জামিরুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওসি তদন্ত শরিফুল ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমাম হেসেন মিলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক ও বাগায়োন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রফিকুল ইসলাম তোতা, গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি সাহাদত হোসেন চাদু, মোনাখালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুরর রহমান, ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফা, মোস্তাকিম হক খোকন কমান্ডার, সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেলাল উদ্দীন, সাধারন সম্পাদক শেখ সাকিব প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চলনায় ছিলেন সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান কামরুল হাসান চাদু।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More