মোটরসাইকেল কেনার ২ দিনের মাথায় বিপত্তি : বুকে বাঁশ গেথে প্রাণ গেলো যুবকের 

বারাদী (মেহেরপুর) প্রতিনিধিঃ মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কের দরবেশপুর নামকস্থানে এক সড়ক দুর্ঘটনায় বুকে বাঁশ বিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন রিপন (২৩) নামের এক যুবক। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন মামুন নামের অপর এক যুবক। নিহত রিপন মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার মহাজনপুর ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের “স” মিলপাড়ার আব্দুল হাকিমের ছেলে এবং আহত মামুন একই গ্রামের ভুটলের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে মেহেরপুর সদর উপজেলার নতুন দরবেশপুর নামক স্থানে।

জানা যায়- রিপন ও মামুন মোটরসাইকেল যোগে কোমরপুর থেকে চুয়াডাঙ্গা যাবার পথে মেহেরপুর সদর উপজেলার দরবেশপুর নামক স্থানে একটি মাইক্রোকে ওভারটেক করে একই দিকে যাওয়া তার সামনের বাঁশ বোঝায় একটি আলগামনের বাঁশের সাথে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগে। এসময়  আলগামনে থাকা বাঁশ রিপনের বুকে বিদ্ধ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে মেহেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে এবং বাঁশ কেটে অংশ বিশেষ বাঁশসহ তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের নেয়।

নিহত রিপনের পিতা আব্দুল হাকিম জানান, দুইদিন পূর্বে রিপনকে মোটরসাইকেলটি কিনে দেয়া হয়েছিল। আজ দুপুরের দিকে তার বন্ধু মামুনকে নিয়ে সে চুয়াডাঙ্গার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

প্রত্যক্ষ দর্শিরা আরো জানিয়েছেন- দ্রুতগতিসম্পন্ন মোটরসাইকেলটির চালক রিপন সামনের একটি মাইক্রোকে ওভারটেক করার পরপরই সামনে পড়ে যায় বাঁশ বোঝায় আলগামন। এ সময় সে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাঁশ বোঝায় আলগামনের বাঁশের সাথে সজোরে ধাক্কা মারে। ওই সময় একটি বাঁশ তার বুকে বিদ্ধ হয়। পরে মেহেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা বাঁশ কেটে মৃত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নেয়।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, রিপন ছিলো একজন মাইক্রো চালক। কোমরপুর গ্রামের আব্দুল হাকিমের ২ ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে ছোট সে। আব্দুল হাকিমের বড় ছেলে প্রবাসী ও মেয়েটি বিবাহিত।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More