ডায়রিয়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন জরুরি পদক্ষেপ

সম্পাদকীয়

ঋতু পরিবর্তন ও প্রচণ্ড গরমের কারণে চুয়াডাঙ্গায় ডায়রিয়ার প্রকোপ হঠাৎ বেড়ে গেছে। গতকাল সোমবার রাতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৭৫জন রোগী ভর্তি ছিলেন। চাপ সামাল দিতে চিকিৎসক-নার্সদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এদিকে, রাজধানীতে গত কয়েক দিন ধরেই চলছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। চিকিৎসার জন্য মহাখালীর আন্তর্জাতিক উদরময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিআরবি)’তে আক্রান্ত রোগীরা ভিড় করতে শুরু করেছে। চাপ সামাল দিতে চিকিৎসক-নার্সদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালেও বেড়েছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।

আইসিডিআরবি সূত্র মতে, গরমের মরসুমে প্রতিদিন গড়ে ৭০০ থেকে ৮০০ রোগী ভর্তি হতো। কিন্তু এবারের গরমে রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। ১৬ মার্চ থেকে ২৪ মার্চ পর্যন্ত ৯ দিনের মধ্যে নতুন ভর্তি হওয়া ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা কোনদিনও এক হাজারের নিচে নামেনি। পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে বলেও গণমাধ্যমে প্রকাশ।

ডায়রিয়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও ডায়রিয়া থেকে বাঁচতে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। স্বাস্থ্য বুলেটিনের মাধ্যমে তারা জানিয়েছে, প্রতিদিনকার কাজকর্মে বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করলে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে এবং সবসময় সুপেয় পানি পান করলে ডায়রিয়া রোগ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব। সরকারি হাসপাতালগুলোতে খাবার স্যালাইন, আইভি ফ্লুইড স্যালাইন, পানি বিশুদ্ধিকরণ ট্যাবলেট এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় উপকরণের সরবরাহ রয়েছে। অল্প ডায়রিয়া থাকতেই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে এ রোগ নিয়ন্ত্রণ সম্ভব।

করোনা পরবর্তী সময়ে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে গেছে। প্রচণ্ড এই গরম ও ডায়রিয়াজনিত পরিস্থিতির কারণে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিশ্চিত করতে হবে নিরাপদ পানির। এছাড়া রাস্তার মুখোরোচক খাবার, যেমন- ফুচকা, চটপটি, ভেলপুরি বা ডালপুরি এগুলো পরিহার করতে হবে। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি কর্মমুখী সবাইকে সাবধান হতে হবে যথাসম্ভব বাইরের পানি পানের বিষয়ে।

চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের আশা, বৃষ্টিপাত হলে বা কোনো কারণে তাপমাত্রা কমে আসলে ব্যাকটেরিয়াজনিত ডায়রিয়ার প্রকোপ কমে আসবে। তবে আমরা মনে করি, যতক্ষণ না পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে ততক্ষণ আমাদের সাবধান থাকতে হবে, আর সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কর্তৃপক্ষকে নিতে হবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More