শারদীয় উৎসব শুরু

সনাতন বিশ্বাসে, কৈলাসশিখর ছেড়ে পিতৃগৃহে আসা মা দুর্গার অকালবোধন হয়েছে বুধবার। আজ থেকে শুরু হচ্ছে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। পঞ্চমীতে ঘট বসে মণ্ডপে। আজ ষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে মূল আনুষ্ঠানিকতা।
দুর্গোৎসবের প্রাক্কালে এই বোধনের মাধ্যমে দক্ষিণায়নের নিদ্রিত দেবীর নিদ্রা ভাঙার জন্য বন্দনা পূজা করা হবে। মণ্ডপে, মন্দিরে আজ পঞ্চমীতে সায়ংকালে তথা সন্ধ্যায় এ বন্দনা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। বোধন দুর্গাপূজার প্রধান একটি আচার। ‘বোধন’ শব্দের অর্থ জাগরণ বা চৈতন্যপ্রাপ্তি। পূজা শুরুর আগে সন্ধ্যায় বেলশাখায় দেবীর বোধন দুর্গাপূজার একটি অত্যাবশ্যকীয় অঙ্গ। সাধারণত শুক্লা ষষ্ঠীর সন্ধ্যায় বোধন হলেও এবার তিথি অনুযায়ী পঞ্চমীতেই বোধন পড়েছে। শরত্কালের দুর্গাপূজায় এই বোধন করার বিধান রয়েছে। বিভিন্ন পুরাণ অনুসারে, ভগবান রামচন্দ্র শরত্কালে রাক্ষসরাজ রাবণকে বধ করার উদ্দেশ্যে দুর্গাপূজা করেন। তিনি অকালে এই বোধন করেন বলেই এটি অকালবোধন নামে খ্যাত। তবে বসন্তকালে চৈত্র মাসে যে দুর্গাপূজা তথা বাসন্তীপূজা অনুষ্ঠিত হয়, তাতে বোধন করার প্রয়োজন হয় না।
করোনা মহামারির কারণে এবারের পূজায় উত্সবের আমেজ থাকছে না। কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে সাজানো হয়েছে পূজার নির্ঘণ্ট। ২৬ অক্টোবর দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হবে দুর্গাপূজা। তবে এবার হবে না বিজয় শোভাযাত্রা। জনসমাগম এড়াতে দুর্গাপূজার অষ্টমী তিথিতে এ বছর ঢাকায় কুমারীপূজা হবে না। পূজার সময় সারা দেশে মণ্ডপগুলো প্রতিদিন বন্ধ হবে রাত ৯টার মধ্যে। কেবল বাংলাদেশ নয়, পশ্চিমবঙ্গে মণ্ডপে সাধারণ দর্শনার্থীর সমাগম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মূলত এবার উৎসব সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো পরিহার করে সাত্ত্বিক পূজায় সীমাবদ্ধ রাখতে নির্দেশনা দিয়েছে পূজা উদ্যাপন পরিষদ। তাই এবারের দুর্গোৎসবকে দুর্গাপূজা হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। পূজামণ্ডপের সংখ্যাও কমে গেছে এবার। গত বছর সারা দেশে মণ্ডপের সংখ্যা ছিল ৩১ হাজার ৩৯৮টি। এবার এ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০ হাজার ২১৩টি, যা গত বছরের চেয়ে ১ হাজার ১৮৫টি কম।
মহাসপ্তমী ২৩ অক্টোবর। ২৪ অক্টোবর মহাষ্টমী। ২৫ অক্টোবর মহানবমী। ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমী। হিন্দু বিশ্বাসে, গত বছর দেবীর আগমন আর গমন দুটোই ঘোড়ায় ঘটেছিল। এ বছর আসছেন দোলা বা পালকিতে। ফিরবেন গজ অর্থাত্ হাতির পিঠে চেপে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More