কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ-ভিডিও ধারণ, শিক্ষক গ্রেফতার

প্রাইভেট পড়ানোর সময় এক কলেজছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ ও গোপনে ভিডিও ধারণ করেছে গৃহশিক্ষক আশরাফুজ্জামান রানা (৩২)। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভায় নিজ বাড়িতেই প্রাইভেট টিউটর এ অপকর্ম করে।
ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে সোমবার লোহাগড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। বিকালে অভিযুক্ত শিক্ষক রানা নড়াইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমাতুল মোর্শেদার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।
মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, লোহাগড়া পৌরসভার গোপিনাথপুর গ্রামের মৃত মনিরুজ্জামান শেখের ছেলে গৃহশিক্ষক আশরাফুজ্জামান রানার বাড়িতে প্রতিবেশী এক কলেজছাত্রী (১৭) প্রতিদিনের মতো গত বছর ১৪ আক্টোবর প্রাইভেট পড়তে যায়। ওই দিন শিক্ষকের বাড়ী ফাকা থাকায় শিক্ষক ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং গোপনে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র মোবাইলে ধারণ করে রাখে। লম্পট শিক্ষক ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে এবং তার কাছ থেকে স্বর্ণের গহনা বিক্রি করে বিভিন্ন সময় টাকা হাতিয়ে নেয়।
এ দিকে পারিবারিক সম্মতিতে পার্শ্ববর্তী ধোপাদাহ গ্রামে এক ছেলের সঙ্গে গত রোববার ওই ছাত্রীর বিয়ের দিন ঠিক হয়। এর এক দিন আগে অভিযুক্ত গৃহশিক্ষক রানা পাত্রপক্ষের বাড়িতে গিয়ে ধর্ষণের ভিডিও দেখায়। এক পর্যায় তাদের বিয়ে ভেঙ্গে গেলে ধর্ষণের বিষয়টি ওই ছাত্রী তার পরিবারকে জানাই। সোমবার সকালে ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে লোহাগড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। লোহাগড়া থানার এসআই সাইফুল ইসলাম সোমবার রানাকে আটক করে এবং তার কাছে থাকা ধর্ষণের ভিডিওসহ মোবাইল ফোন উদ্ধার করে। লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, সোমবার বিকালে অভিযুক্ত আশরাফুজ্জামান রানা নড়াইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমাতুল মোর্শেদার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।একই আদালতে সন্ধ্যায় ভিকটিম কলেজছাত্রীর ২২ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More