কুষ্টিয়ায় আরও ২০ জনের করোনা শনাক্ত : সুস্থ হওয়ার পথে ডিসি

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ায় এক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ নতুন করে ২০ জনের শরীরে করোনাভাইরাসে শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্ত ইউএনও হলেন খোকসা উপজেলায় সদ্য যোগ দেয়া মেজবাহ উদ্দীন। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে  বুধবার (১৭ জুন) ১২৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ২০টি পজিটিভ পাওয়া যায়।

রাতে কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন কার্যালয়সূত্রে জানা গেছে, নতুন আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৮জন, দৌলতপুরে ৬ জন, কুমারখালীতে ৫ জন ও খোকসাতে ১ জন। এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় করোনা রোগী শনাক্ত হলো ২৭৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭১ জন।

ইউএনও মেজবাহ উদ্দীন কয়েক দিন আগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যোগদান করেছেন।  তিনি সার্কিট হাউসে থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। বুধবার প্রতিবেদনে জানতে পারেন তিনি পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। গতক মঙ্গলবার খোকসাতে দায়িত্ব বুঝে নেয়া কথা ছিল। নমুনা দেয়ায় দায়িত্ব নেয়া হয়নি। সার্কিট হাউসেই আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি। শরীরে তেমন কোনো করোনার উপসর্গ নেই। তিনি বলেছেন, ‌’সুস্থ আছি। দোয়া করবেন যেন দ্রুত করোনাজয় করতে পারি।’ জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি) সিরাজুল ইসলাম করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়ে হোম আইলোসনে রয়েছেন। মঙ্গলবার ডিসি আসলামের নমুনা নেগেটিভ এসেছে। তারপরও তিনি হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। আরও একবার নমুনা পরীক্ষার পর নেগেটিভ হলে স্বাভাবিক কাজকর্ম শুরু করবেন। অন্যথায় নিতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ। কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন ডা.এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন,জেলায় করোনা রোগী বেড়েই যাচ্ছে। গত এক সপ্তাহে ১শ রোগী শনাক্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে জেলার ১৮টি এলাকা লাল অঞ্চল চিহ্নিত করে লকডাউন করা হচ্ছে। এটা ২১দিন বাস্তবায়ন করা গেলে রোগীর সংখ্যা কমবে বলে আমরা আশা করছি।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More