কোভিড-১৯: বিশ্বে এখন মাথাপিছু মৃত্যুহার সুইডেনে সর্বোচ্চ

জামান সরকার, হেলসিংকিঃ স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশ সুইডেনে দ্রুত গতিতে বাড়ছে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ও মৃতের সংখ্যা। করোনাভাইরাসে মাথাপিছু মৃত্যুহারে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, স্পেন, ফ্রান্স এবং ইতালিকে ছাড়িয়ে গেছে সুইডেন। বিশ্বে করোনায় মাথাপিছু মৃত্যুহার সুইডেনে এখন সর্বোচ্চ।

দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৫৪ জনের মৃত্যু ঘটেছে। ফলে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ৯২৫ জন। ১৩ মে থেকে ২০ মে পর্যন্ত এই সাত দিনের গড় হিসাবে করোনায় মৃত্যু সুইডেন বিশ্বে প্রথম স্থানে উঠে এলো। দেশটি জনসংখ্যা ১ কোটি ৯২ হাজার ৩৭১। শুক্রবার সুইডেনের রাষ্ট্রীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় শনাক্ত হয়েছে ৬৩৭ জন। সরকারি হিসেবে এই পর্যন্ত ২ লক্ষ ৯ হাজার ৯০০ শত জনকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরীক্ষা করে ৩২ হাজার ৮০৯ জন মানুষের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিকে সুডেনের প্রতিবেশী দেশ ফিনল্যান্ডে করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমে এসেছে এবং শিথিল হতে শুরু করেছে লকডাউনের সব ধরনের কড়াকড়ি। গত ২৪ ঘণ্টায় ফিনল্যান্ডে কোন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। প্রাথমিক স্কুলগুলো খুলেছে, শিল্পকারখানাগুলো পুরোদমে উৎপাদন শুরু করেছে এবং মন্ত্রণালয় ও সরকারি অফিস-আদালত খুলবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব। বার ও রেস্টুরেন্ট এবং ছোটখাটো সব হোটেলও ১ জুন থেকে চালু হয়ে যাবে।লকডাউন ও সামাজিক চলাচলে নিষেধাজ্ঞামূলক সিদ্ধান্তকে আমলে না নেয়ায় সুইডেনে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ফিনল্যান্ডের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ অ্যান্ড ওয়েলফেয়ারে পরিচালক মিকা সালমিনেন।টানা দুই মাস প্রতিবেশী দেশ সুইডেনের সাথে ফিনল্যান্ডের সীমান্ত যোগাযোগ সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রয়েছে। এই মুহুর্তে সীমানা উন্মুক্ত হলে সুইডেনের করোনা ভাইরাসের ব্যাপক বিস্তার ও সক্রিয়তা ফিনল্যান্ডে স্বাস্থ্যের ঝুঁকির কারণ হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন মিকা সালমিনেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More