গুজরাটে ঝুলন্ত সেতু ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯১

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ভারতের গুজরাটে মোরবি জেলার মাচ্চু নদীর ওপর একটি ঝুলন্ত সেতু ভেঙে পড়েছে। এতে সেতু থেকে পড়ে নিহত হয়েছেন নারী ও শিশুসহ অন্তত ৯১ জন। আরও শতাধিক মানুষ ভেঙে পড়া সেতুতে আটকা পড়ে আছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেতুটি ভেঙে পড়ার সময় প্রায় ৫০০ মানুষ এর ওপরে ছিলেন। তাদের অধিকাংশই পর্যটক। অনেকে বিশেষ পূজার আচার পালন করছিলেন। এ ঘটনায় আহত ১৭ জনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। রোববার স্থানীয় সময় বিকেল ৬টা ৪২ মিনিটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এক দশক বয়সী সেতুটির সংস্কারকাজ শেষে গত ২৬ অক্টোবর নতুন করে চালু করা হয়েছিলো। গতকালের একটি ভিডিওতে দেখা গেছে লোক চলাচলের সময় সেতুটি দুলছিল। ভারতের একাধিক গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে উদ্ধারকাজ চললেও পরে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী ও পুলিশ গিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু করে। উদ্ধারকাজ এখনো চলছে। আপৎকালীন পরিস্থিতির মোকাবিলায় অনেকগুলো অ্যাম্বুলেন্সকে ঘটনাস্থলে আনা হয়েছে। সেতুটি ভেঙে পড়ার পরে কিছু মানুষ সাঁতরে তীরে আসার চেষ্টা করেন। কিছু মানুষকে ভাঙা সেতুর রেলিং ধরে প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করতেও দেখা যায়।  গুজরাটে মোরবি জেলার মাচ্চু নদীর ওপরের ঝুলন্ত সেতু ভেঙে পড়েছে। ঘটনার পরই গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র পটেলকে ফোন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি রাজ্য প্রশাসনকে উদ্ধারকাজে গতি আনার নির্দেশ দিয়েছেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয় থেকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়, দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করার জন্য এবং পরিস্থিতির দিকে সজাগ নজর রাখার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। ইতোমধ্যেই আহতদের ভারতীয় মুদ্রায় ৫০ হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য দেয়ার ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র পটেলের পক্ষ একটি টুইট করে জানানো হয়, এই ঘটনায় তিনি মর্মাহত। আহতদের চিকিৎসা ও নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারকাজে গতি আনতে মুখ্যমন্ত্রী জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More