এলাকার মানুষের কাছে এ বইটি ইতিহাস হয়ে থাকবে

জীবননগরের আন্দুলবাড়িয়ায় ‘৪০০ বছরের ইতিহাস’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচনকালে পুলিশ সুপার

আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি: জীবননগরের আন্দুলবাড়িয়া সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে ইউনিয়নের ৪০০ বছরের ইতিহাস বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেল ৪টায় ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন হলরুমে সাহিত্য পরিষদের আয়োজনে আলোচনাসভা শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে অতিথিবৃন্দ বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। সাহিত্য পরিষদের সভাপতি ৪০০ বছরের ইতিহাস লেখক নারায়ণ ভৌমিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাও. আব্দুস সামাদ ও পবিত্র গীতা পাঠ করেন স্বপন চক্রবর্তী। চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবু সাইফের উপস্থাপনায় অতিথিদের ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান সাহিত্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা আশরাফুন নাহার শোভা, জাহিদুল ইসলাম মামুন, মোল্লা রকিব উদ্দিন, খাইরুল ইসলাম, নাইমুর রহমান, রাজা ও দর্জি নজরুল ইসলাম, ডা. মীর আনিছুজ্জামান, হাফিজুর রহমান, শঙ্কর প্রমাণিক। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি মো. হাফিজুর রহমান হাফিজ, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী, জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আন্দুলবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম মামুন। স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন সাহিত্য পরিষদের সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ ফকির, মোল্লা আলতাব হোসেন ফেলা। আলোচনাসভা শেষে অতিথিবৃন্দ আনুষ্ঠানিকভাবে আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৪০০ বছরের ইতিহাস বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে যুদ্ধকালীন থানা কমান্ডার মুজিবুর রহমান ফন্টু, বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, জীবননগর থানার ওসি (অপেরেশন) মোল্লা সেলিম, শাহাপুর ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই সোলাইমান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন, সমাজকর্মী মহাসীন আলী খান, ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিদুল ইসলাম মধু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এসএম আশরাফুজ্জামান টিপু, শেখ আতিয়ার রহমান, সাংবাদিক আকিমুল ইসলাম, জিএ জাহিদুল ইসলাম, আবু মহিদ, আতিয়ার রহমান, মিঠুন মাহমুদ, বাজার কমিটির সভাপতি মুন্সি আমিনুল বাসার কবু, শেখ আসাউল ইসলাম গোলাপ, বিজয় হালদার, মোতাহরুল ইসলাম চঞ্চল, শেখ সেকেন্দার আলী, মোল্লা ফকরুল ইসলাম টুটুলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, ব্যবসায়ী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার বলেন, ৪০০ বছরের ইতিহাস নিয়ে বই লেখা কম কথা নয়। লেখকের বয়স অনুযায়ী তিনি যে বই লিখেছেন তা এ এলাকার মানুষের কাছে ইতিহাস হয়ে থাকবে।

অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম জাহিদ আন্দুলবাড়িয়া-সরোজগঞ্জ সড়কে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের স্থান পরিদর্শন করেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More