চুয়াডাঙ্গায় হামলা-ভাঙচুরের প্রতিবাদে দু’নারীর সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় বাড়ির রাস্তা দখলের উদ্দেশে হামলা, ভাঙচুর ও সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ফরিদপুরের মধুখালী থানার ওসি আমিনুল ইসলামের স্ত্রী আফরোজা খাতুন ও প্রতিবেশী সাহিদা খাতুন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। অভিযোগকারীরা চুয়াডাঙ্গা শহরের কাঠপট্টি এলাকার বাসিন্দা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আফরোজা খাতুন ও সাহিদা খাতুন নামের দুই নারী দাবি করেন, পাশের একটি জমির সঙ্গবদ্ধ ১৫ মালিক তাদের নির্ধারিত রাস্তা ব্যবহার না করে আফরোজা খাতুন ও সাহিদা খাতুনের ব্যক্তিগত রাস্তা জোরপূর্বক ব্যবহারের জন্য পূর্ব থেকেই নানা পরিকল্পনা করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৪ ফেব্রুয়ারি বিনা উস্কানিতে তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির বিভিন্ন স্থান এবং সদর দরজা ভাঙচুর করে। পরবর্তীতে গত ৯ ফেব্রুয়ারি তারা মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে, ‘আমরা দুই পরিবার আমাদের নিজ জমির দক্ষিণ পাশে যৌথভাবে ১৪ লিং জমি পথ হিসেবে ব্যবহার করে আসছি। ওই পথ আমাদের উভয় পরিবারের নিজ দলিলি সম্পত্তি। যার দলিল নং-৩৮৬০/০৩। আমাদের জানমাল ও বাড়ির সুরক্ষার জন্য আমরা উভয় পরিবার বাড়ির পশ্চিম পাশের অংশে নিরাপত্তা গেট এবং দক্ষিণ পাশে পাঁচিল নির্মাণ করি। এ অবস্থায় সম্পূর্ণ বিনা উস্কানিতে কাঠপট্টি এলাকার আকবর আলী, তার দুই ছেলে সোহেল ও জুয়েল পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক ১৫-২০ জন দুষ্কৃতীকে সঙ্গে নিয়ে হাতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ আমাদের নিরাপত্তা গেইট ভেঙে জোরপূর্বক বাড়ির ভেতরে ঢোকে এবং আমার বাসার মেন গেট ভাঙার চেষ্টা করে। পরে পকেট গেট দিয়ে বাসার মধ্যে জোরপূর্বক প্রবেশ করে। আমি এসবের কারণ জানতে গেলে অনুপ্রবেশকারীরা (সোহেল ও জুয়েলসহ) আমাকে মারধরে আহত করে। দক্ষিণ পাশের পাঁচিল ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। আমাদের মেরে ফেলারও হুমকি দেয়। এই ন্যাক্কারজনক অপরাধের কারণে আমি চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মামলা দায়ের করেছি। মামলা নং- ৮, তারিখ- ০৭/০২/২০২১। এছাড়াও চুয়াডাঙ্গার দেওয়ানি আদালতে জমি সংক্রান্ত একটি মামলা চলমান রয়েছে। বর্তমানে আমরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তারা আমার পরিবারের বিরদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা আমাদের ব্যক্তিগত জমি ষড়যন্ত্রমূলকভাবে নিজেদের দলিলে অন্তর্ভুক্ত করেছে। তাদের জমির দক্ষিণ পাশে (পূর্বনির্ধারিত) ১২ ফুট রাস্তার ব্যবহার না করে গায়ের জোরে আমাদের জমি জবর দখলের পাঁয়তারা করছে। অভিযুক্ত আকবর গং আমাদের জমির সন্নিকটে জমি কেনার পর থেকেই নানাভাবে আমাদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে আসছে। যার প্রতিবাদ করতে গেলেই তারা নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে থাকে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More