মুজিবনগরে জমি-জায়গা নিয়ে বিরোধে সাধারণ মানুষ হয়রানির শিকার : একপক্ষের সংবাদ সম্মেলন

মুজিবনগর প্রতিনিধি: মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের মৃত জোনাব আলীর ছেলে রমজান আলীর সাথে প্রতিপক্ষ বাকের মহলদারের ছেলে আসানের জমি-জায়গা সংক্রান্ত বিরোধে সাধারণ মানুষ জেল-জরিমানার শিকার হওয়ায় মুজিবনগর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সোনাপুর গ্রামের রমজান আলীর ছেলে হানিফ। গতকাল বুধবার বিকেলে মুজিবনগর প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের মৃত জোনাব আলীর ছেলে রমজান আলী সাথে প্রতিপক্ষ বাকের মহলদারের ছেলে আসানের জমি-জায়গা সংক্রান্ত বিরোধে উভয়পক্ষ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পর থেকে আহসান ও তার লোকজন প্রায় রমজান আলীকে মারধরসহ অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করতে থাকে। এ ঘটনায় রমজান আলী দায়ের করা সি.আর ১০/২০১৮ মামলা দায়ের করলে আসামি আসান আলী, ছহিরউদ্দিন, মহির উদ্দিন, ইসলাম আলী, জান্দার আলী ও ফকিরদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে আদালত ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদ-াদেশ দেন। আসামিরা সাজার আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে আদালত সাজা বহাল রাখে। এরপর পুনরায় আসামিরা রমজান আলীকে মারধর করেন। এতে রমজান আলী মামলা দায়ের করলে (মামলা নং- জিআর ২৭/১৬) আসান আলীর ৮ মাসের কারাদ-াদেশ দেন আদালত। এরপর একের পর এক মামলা হতে থাকে যাতে রমজান আলীসহ ৫-৭ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করতে থাকেন আসানসহ তার পক্ষের লোকজন বাদী হয়ে। আসান আলীর দায়ের করা জিআর ১১৮/১৭ নং মামলায় রমজান আলীসহ ৭ জনকে আসামি করা হয়। জিআর ৫/১৯ মামলায় রমজান আলীর ছেলে হানেফসহ ৪ জনকে এবং জিআর ৩১/২০২০ মামলায় রমজানসহ ৭ জনকে আসামি করে মামলা করে। এখানেই শেষ নয়, ক্ষিপ্ত প্রতিপক্ষ রেহেনাকে বাদী ও রমজানসহ ৭ জনকে আসামি করে সি.আর ৪৬/২০২০, চম্পাকে বাদী ও ৬ জনকে আসামি করে পিং ২২১/১৯, আসান বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামি করে পিং-২৪৫/১৯, জানদার বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামি করে পিং-১৭১/২০২০ এবং হেকমত আলীকে বাদী করে হানিফসহ কয়েক জনকে আসামি করে মিথ্যা মামলা করে।
এসব মামলায় সোনাপুর গ্রামের ভ্যানচালক রমজান আলী, ডিমের ফেরিওয়ালা হানেফ, একই গ্রামের ভ্যানচালক নজরুল, লেবার রহমান, কলিমুদ্দিন ও আব্দুর রাজ্জাককে বিবাদী করে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা করেন। প্রভাবশালীদের সহযোগিতায় এ মামলা করা হয়। শুধুমাত্র হানেফের সাথে থাকার কারণে কলিমুদ্দিনকে ও আব্দুর রাজ্জাককে জেলাখাটতে হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে হানেফ বলেন, আব্দুর রাজ্জাক ও তার ছেলে হানেফের সাথে বিবাদীর জমি-জায়গা নিয়ে বিরোধে কেন কলিমুদ্দিন ও আব্দুর রাজ্জাকদের মতো লোকের বিরুদ্ধে মামলা হলো এবং তাদের জেল-জরিমানার শিকার হতে হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সোনাপুর গ্রামের মৃত কালু শেখের ছেলে আহম্মদ শেখ, মৃত জমির উদ্দিন শেখের ছেলে সাহেব আলী, মৃত কিতাব মোল্লার ছেলে নাজিম উদ্দিন মোল্লা, মধুর আলীর ছেলে কলিমুদ্দিন ওরফে কালু প্রমুখ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More