মোবারকগঞ্জ চিনিকলে আখ রোপণ ও দেশী চিনি বেশি উৎপাদনের লক্ষ্যে আলোচনা

 

কালীগঞ্জ প্রতিনিধি: দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ভারি শিল্প প্রতিষ্ঠান ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার মোবারকগঞ্জ চিনিকলে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৫ অক্টোবর) সকালে মোবারকগঞ্জ চিনিকলের প্রশাসনিক ভবন চত্বরে আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বে করেন মোবারকগঞ্জ চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন ও চিনিকল শ্রমিক ফেডারেশনের আইন ও দরকষাকষি সম্পাদক গোলাম রসুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাকিবুল ইসলাম খান। আরো উপস্থিত ছিলেন চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন (কারখানা), আশিকুর রহমান (প্রশাসন), জাহিদুল ইসলাম (অর্থ), মঞ্জুরুল ইসলাম (ইক্ষু কৃষি), গৌতম ম-ল (ইক্ষু বিভাগের ডিজিএম সম্প্রসারণ), বিধান চন্দ্র রায় (ডিসিএমই যন্ত্র) ও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাসহ মোচিক শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম। আলোচনা সভায় বক্তব্যে রাখেন ৪নং নিয়ামতপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও মোচিক ইক্ষু করনিক লিটন হোসেন ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা এবং শ্রমিক কর্মচারীবৃন্দ। আলোচনা সভায় মূল বক্তব্য ও দিক নির্দেশনা বক্তরা তুলে ধরেন আখ থেকে দেশি চিনি উৎপাদন কিভাবে বেশি করা যায় তার ওপর। এ ব্যাপারে চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, বিগত বছরের চেয়ে এবছর সরকার আখের দাম বৃদ্ধিসহ জমিতে বেশি ফলনের জন্য আখের বীজ আখ চাষিদের দেয়া হয়েছে ও হচ্ছে। তিনি আখ চাষিদের কাছে আবেদন করেন বেশি করে আখ চাষ করুন। তাহলে আখ থেকে উৎপাদনকৃত দেশীয় চিনি উৎপাদন লক্ষ্য পূরণ হবে। চিনিকলের শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি বলেন, আখ চাষ করুন, চাষিদের দাবি সময়মতো পূরণ করবো। তিনি শ্রমিক কর্মচারীদের কাছে বক্তব্যে মাধ্যমে বলেন, চিনিকলে যারা চাকরি করেন তারা স্ব স্ব দ্বায়িত্ব গুরুত্বপূর্ণভাবে পালন ও সময়মতো অফিসে এসে যথাযথ কর্ম মনোযোগ দিয়ে করবেন। আপনাদের বেতন ভাতা সময়মতো দেয়া হচ্ছে ও হবে। তিনি সরকারের কাছে আবেদন করেন, দেশীয় চিনি উৎপাদন বেশি করার জন্য ব্যাংকের থেকে সুদবিহীন লোন পেলে চাষিদের সঠিক সময়ে আখের দাম, বীজ ও সার দিতে পারলে আখচাষিরা আখ আরো বেশি করবে এবং লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী চিনি উৎপাদন করতে সক্ষম হবে। তিনি বলেন, প্রতি কেজি চিনি তৈরি করতে সব খরচ মিলে উৎপাদন খরচ হয় ২০০ টাকার চেয়েও বেশি। কিন্তু সরকারের দাম নির্ধারণ অনুযায়ী বিক্রি হচ্ছে বর্তমানে মাত্র ৭৩ টাকা দরে। তাই চিনির দাম বেশি না করলে লাভ কখনো হবে না। তাই সরকারের কাছে এ শিল্প প্রতিষ্ঠান টিকিয়ে রাখার জন্য আকুল আবেদন জানাই।

প্রধান অতিথি ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য বক্তব্যের মাধ্যমে বলেন, দেশীয় চিনি উৎপাদন করতে এই মোবারকগঞ্জ চিনিকলের দেশের জন্য এক বিরাট শিল্প প্রতিষ্ঠান। তাই আপনাদের কথা শুনেছি, আমি সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে আপনাদের ডাকে এসেছি। আপনাদের ভালো মন্দ সমস্যার কথা শুনেছি। আমিও আপনাদের দাবির সাথে একমত পোষণ করি। আমি চাই মোবারকগঞ্জ চিনিকলের আগামী বছরগুলো ভালো রাখতে হলে চিনিকলের দেশী চিনি উৎপাদনের একমাত্র প্রধান কাঁচামাল আখ। তাই আখ চাষ বেশি হলে এ শিল্প বাঁচিয়ে রাখা যাবে সুন্দরভাবে।

এ আলোচনাসভা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে মোবারকগঞ্জ চিনিকলের শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More