আলমডাঙ্গার ইমরান হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতার দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের ধরতে আল্টিমেটাম : আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা এলাকাবাসীর
আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ইমরান হত্যা মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবি তুলেছেন গ্রামবাসী। বিক্ষোভ মিছিলে কয়েক হাজার নারী-পুরুষ অংশ নেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে গ্রাম থেকে বের হওয়া মিছিলটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ মঞ্চে সমাবেশ করে। ৭দিন পার হলেও বাকি আসামিরা গ্রেফতার না হওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয় এলাকাবাসী। সমাবেশে বক্তারা আল ইমরান হত্যায় জড়িত সকল আসামিদের আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেফতার করা না হলে হরতালসহ বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচির ঘোষণা দেয় এবং হত্যার বিচার দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে সংগ্রাম কমিটি গঠন করে।
চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা পৌর এলাকাধীন গোবিন্দপুর গ্রামের আবদুল জলিল ওরফে জুড়োনের ছেলে আল ইমরান (২৫) ছিলেন আলমডাঙ্গা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক। গত ১৬ সেপ্টেম্বর দিনদুপুরে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরদিন ইমরানের পিতা বাদী হয়ে ৬ জনের নামে থানায় হত্যামামলা করেন। ওইদিনই উপজেলার দুর্লভপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে মামলার প্রধান আসামি মাসুদকে পুলিশ গ্রেফতার করে।
এদিকে শুক্রবার বেলা ৫টার দিকে উপজেলা শহরে গ্রামবাসীর উদ্যোগে হাজারো নারী-পুরুষ ও শিশু কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তারা ইমরান হত্যার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান। এদিকে বিক্ষোভ শেষে ইমরান হত্যার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার বাস্তবায়নে সংগ্রাম কমিটি গঠন করা হয়। বক্তব্য রাখেন কমিটির আহ্বায়ক আলমডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা এম সবেদ আলীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। সমাবেশ থেকেই তারা বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ২৫ সেপ্টেম্বর আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানার ওসির নিকট স্মারকলিপি পেশ। ২৭ সেপ্টেম্বর চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নিকট স্মারকলিপি পেশ এবং ২৯ সেপ্টেম্বর আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরে মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর গ্রহণ কর্মসূচি।
ইমরান হত্যার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার বাস্তবায়নের দাবিতে সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম সবেদ আলী, উপদেষ্টা মীর মনিরুজ্জামান মঞ্জু মাস্টার, বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার ইসমাঈল হোসেন, যুগ্মআহবায়ক পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান ফারুক, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার সালমুন আহমেদ ডন, মিরাজুল ইসলাম। সংগ্রাম কমিটির সদস্য সিরাজুল ইসলামের উপস্থাপনায় সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সংগ্রাম কমিটির সদস্য মীর শফিকুল ইসলাম, আলমডাঙ্গা মহিলা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক শফিউল হক মিল্টন, কাউন্সিলর ডালিম হোসেন, বাপ্পি, পৌর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু ডালিম, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক সাইফুর রহমান পিন্টু, সাবেক কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন, জাহিদুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আনিচুর রহমান, আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক সোহেল রানা শাহীন, আসাবুল হক মন্টু, রেজাউল হক তবা তবা, আব্দুর রশিদ, শামিম, মনিরুজ্জামান হিটু ও সাদেকুর রহমান পলাশ, তরিকুল ইসলাম টুকুল, খাইরুল ইসলাম নাসিম, আতিয়ার রহমান, সেলিম হোসেনসহ গোবিন্দপুর গ্রামের কয়েক হাজার সাধারণ নারী পুরুষ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More