চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ৭১ কোটি ৭৬ লাখ টাকার বাজেট পেশ

উন্নয়নে পৌরবাসীর আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন মেয়র খোকন

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ২০২১-২২ অর্থ-বছরের বাজেট পেশ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১২টায় পৌরসভার সভাকক্ষে এ বাজেট পেশ করা হয়। এতে ৭১ কোটি ৭৬ লাখ ৩৭ হাজার টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করা হয়। এতে রাজস্ব খাত থেকে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪ কোটি ৩৪ লাখ ৭৫ লাখ ও উন্নয়ন খাত থেকে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৭ কোটি ৪১ লাখ ৬২ হাজার টাকা। চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার (২০২১-২০২৫) নির্বাচিত জনপ্রতিধিদের এটিই প্রথম বাজেট। বাজেট উপস্থাপন করেন পৌরসভার সচিব কাজী শরিফুল ইসলাম। বাজেট সভায় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক, প্যানেল মেয়র-১ সুলতান আরা রতœা, প্যানেল মেয়র-২ মো. উজ্জ্বল হোসেন, প্যানেল মেয়র-৩ ফরজ আলী শেখ, কাউন্সিলর শাহিনা আক্তার, শেফালি খাতুন, মুনছুর আলী মনো, আব্দুল আজিজ জোয়ার্দ্দার, মুন্সি আলাউদ্দিন আহম্মেদ ও কামরুজ্জামান চাঁদ, নির্বাহী প্রকৌশলী আয়ুব আলী বিশ্বাস, সাবেক হিসাবরক্ষক মো. আবুবকর, প্রধান সহকারী আশাবুল হক বিশ্বাস ও হিসাব রক্ষক মমতাজ বেগমসহ পৌর কাউন্সিলর-কর্মকর্তা-কর্মচারী, টিএলসিসি সদস্যবৃন্দ ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় টিএলসিসির সদস্য সিরাজুল ইসলাম, সালাউদ্দিন মোর্তুজা, লোটন জোয়ার্দ্দার, নাবিলা ছন্দা, নুঝাত পারভীন, নুরুন্নাহার কাকলি, সাংবাদিক অ্যাড. রফিকুল ইসলাম, শাহ আলম সনি, বিপুল আশরাফ ও ইসলাম রকিব বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বলেন, পৌরসভার সাপ্লাই পানির ফোর্স খুবই সামান্য। মহল্লার ভাঙাচুরা রাস্তাগুলো নির্মাণ ও সংস্কার করা, ড্রেন নির্মাণ, ড্রেনের স্লাব বসানো দরকার, ড্রেনগুলো নিয়মিত পরিস্কার করা, মশা নির্ধণে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা, কুকুরের ভ্যাকসিনেশন করা, মহামারী করেনা-১৯ বিষয়ে মানুষকে সচেতন করা, পৌর নাগরিকদের খেলাধুলা ও বিনোদনের ব্যবস্থা করা। শহরে জনসাধারণের জন্য গণসৌচগার নির্মাণ ও ফুটপাতগুলো মানুষের চলাচলের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। বাজেটে শ্রীমন্ত টাউন হলে ১০ তলা বিশিষ্ট মার্কেট নির্মাণ করা হবে। এখাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এছাড়া, জলবায়ু খাতে ৫ কোটি টাকা, বর্জ্য শোধনাগার খাতে ৬ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।
বাজেট পেশকালে পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক বলেন, গণসৌচাগার-ডাস্টবিন নির্মাণসহ উন্নয়ন কাজে কেউই জায়গা দেয় না। ময়লা ফেলার জন্য বর্জ্য শোধনাগার তৈরী করা হচ্ছে। আগামী বছর এ সমস্যা থাকবে না। ড্রেনগুলো পরিস্কার করা হচ্ছে। খেলাধুলা ও বিনোদনের ব্যবস্থা কিভাবে করা যায় সে বিষয়ে পরিকল্পনা রয়েছে। মশা নিধনে পরিকল্পনা রয়েছে। ঠিকাদারদের কাজ সময় মতো হচ্ছে না। আমরা চেষ্টায় আছি। সর্বপ্রথম ট্রাক টার্মিনাল করা হবে। বর্তমান সরকার যেভাবে বরাদ্দ দিচ্ছে তাতে নিশ্চয় উন্নয়ন হবে। আমরা পৌরবাসীর আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি পৌর উন্নয়নে।
চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব খাত থেকে আয় ধরা হয়েছে ১১ কোটি ৭৩ লাখ ৮৯ হাজার টাকা ও ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ কোটি ৩০ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। রাজস্ব থেকে উদ্বৃত্ত ৪৩ লাখ টাকা। পানি সরবরাহ শাখা থেকে আয় ২ কোটি ৬০ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ও ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৫০ লাখ ২৪ হাজার টাকা। উদ্ধৃত্ত রয়েছে ১০ লাখ ৬২ হাজার টাকা। উন্নয়ন খাত থেকে সম্ভাব্য প্রাপ্তি ধরা হয়েছে উন্নয়ন এডিপি খাতে ৯০ লাখ, উন্নয়ন এডিপি (বিশেষ) ও অন্যান্য খাতে ১ কোটি ২৫ লাখ টাকা, রাজস্ব ও পানি খাত থেকে রাজস্ব উদ্ধৃত্ত ৫৩ লাখ ৬২ হাজার টাকা। মোট সরকারি ও রাজস্ব উন্নয়ন মোট ২ কোটি ৬৮ লাখ ৬২ হাজার টাকা। জলবায়ু প্রকল্পে ৫ কোটি টাকা, গুরুত্বপূর্ণ নগর অবকাঠামো উন্নয়ন ১২ কোটি ৫৮ লাখ টাকা, জেলা শহর উন্নয়ন প্রকল্প ১০ কোটি টাকা। তৃতীয় নগর পরিচালন অবকাঠামো উন্নতিকরণ (সেক্টর) আয় ২৭ লাখ ১৫ হাজার টাকা। সংশোধিত বাজেট ৭ কোটি ৮ লাখ ৯ হাজার ৭৫০ টাকা।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More